বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

আকারে ছোট এবং সহজে বহনযোগ্য ফার্নিচারের চাহিদা দিন দিন বাড়ছে। নাভানা গ্রুপের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা ওয়াহেদ আজিজুর রহমান বলেন, ‘নাভানার আসবাবে আধুনিক নকশার সমন্বয় করা হয়েছে। ক্রেতাদের চাহিতা অনুযায়ী আমরা আসবাব তৈরি করে দিই।’ আসবাবের ভারী নকশার চেয়ে ক্রেতারা এখন নতুনত্বকেই প্রাধান্য দিচ্ছেন। আসবাবের নকশায় এখন বেশি কারুকার্য রাখা হচ্ছে না। ইশো ফার্নিচারের লিড আর্কিটেক্ট পিণাক পাণি সাহা আসবাবের নতুনত্ব নিয়ে বলেন, এখন মানুষ সহজাত নকশা বেশি পছন্দ করে। পুরোনো আসবাবে বেশি কারুকার্য পছন্দ করত মানুষ। আসবাবগুলো ব্যবহার করা হতো কয়েক যুগ ধরে। বর্তমানে মানুষের চাহিদা খুব তাড়াতাড়ি পরিবর্তিত হচ্ছে। এর প্রভাব অন্দরসজ্জায়ও দেখা যাচ্ছে।

default-image

নকশার ভিন্নতা

বর্তমানে ফার্নিচারে নকশার বা ডিজাইনের বেশ ভিন্নতা দেখা যাচ্ছে। বাসা বা অফিসে ফার্নিচার ব্যবহারে যেন কম জায়গা লাগে, সেই ভাবনা থেকেই এখনকার আসবাবগুলো বানানো হচ্ছে। জায়গা বাঁচানোর জন্য স্পেস সেভিং বেড, সোফা কাম বেড, স্পেস সেভিং ডাইনিং সেট, ওয়াল ক্যাবিনেট, চেয়ার অ্যান্ড ল্যাডার, রিডিং ইউনিটের জনপ্রিয়তা এখন বেশি।

default-image

কোথায় পাবেন

ব্র্যান্ডের পাশাপাশি বর্তমানে নন-ব্র্যান্ডের চাহিদাও বেশ ভালো। ব্র্যান্ডের ফার্নিচারের মধ্যে নাভানা, ইশো, সেভয়ের, বহু, হাতিল, অটবি, অ্যাশলে, নাদিয়া পারটেক্স, আখতার ফার্নিচার, ব্রাদার্স ফার্নিচারের চাহিদা বেশি। রাজধানীর পান্থপথ, খিলগাঁও, মীরপুর, যাত্রাবাড়ি, রামপুরা, পুরান ঢাকা, মোহাম্মদপুরসহ ঢাকার প্রায় সব এলাকাতেই আসবাব পাওয়া যায়। এ ছাড়া জেলা ও উপজেলা শহরে ফার্নিচারের দোকান রয়েছে।

নকশা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন