default-image

নকশার ভিন্নতা

বিভিন্ন শোরুম ঘুরে দেখা গেছে, সাদা ও হালকা রঙের শার্টই বেশি চলছে। অন্য রঙের মধ্যে প্রাধান্য পেয়েছে গোলাপি, নীল, সাদা, লেবু, হলুদ, কমলা, ছাই বা সবুজ রং। ইজি ফ্যাশন লিমিটেডের বসুন্ধরা সিটি শোরুমের শাখা ম্যানেজার মোহাম্মাদ সানী বলেন, এবারের ঈদে তরুণদের পছন্দের শীর্ষে রয়েছে শতভাগ দেশীয় সুতি কাপড়ের তৈরি শার্ট। কিছুটা ঢিলা কাট এবং একটু লম্বা শার্ট বেশি চলবে। তবে আঁটসাঁট কাটের শার্টগুলোর চাহিদাও কম নয়। ব্র্যান্ডভেদে শার্টের কাপড় ও বোতামের ডিজাইনে রয়েছে ভিন্নতা। বোতামহীন পলো শার্টও থাকছে।

default-image

বৈচিত্র্য

ঈদে ছেলেদের পোশাকে বৈচিত্র্য নিয়ে এসেছে অনেক ফ্যাশন হাউস। ডিজাইনেও এসেছে পরিবর্তন। ফ্যাশন ব্র্যান্ড ক্লাবহাউজের বসুন্ধরা সিটি শোরুমের আউটলেট অপারেশন ম্যানেজার সোহেল আহমেদ বলেন, সত্তর ও আশির দশকের পোশাকের আদলে ছেলেদের এবারে ঈদের পোশাক তৈরি করা হয়েছে। পুরোনো সিনেমার পোস্টারে অলংকৃত করা হয়েছে পোশাক। পোশাকে পোস্টার তুলে ধরার জন্য ব্যবহার করা হয়েছে বিশেষ রং। শার্টের পাশাপাশি পলো শার্টেও ভিন্নতা আনার চেষ্টা করেছে প্রতিষ্ঠানগুলো। পলো টিশার্টে একই সঙ্গে স্মার্ট ও অভিজাত লুক দিয়েছে ফ্যাশন হাউসগুলো। ইনফিনিটি মেগা মলের বিক্রয় ব্যবস্থাপক আনোয়ার হোসেন জানান, এবারের ঈদে পলো শার্টে ডোরাকাটা নকশা আর চেকের ব্যবহার দেখা যাবে। পাশাপাশি ছাপা নকশার পলো টিশার্টেরও চাহিদাও আছে। ফ্যাশন হাউসগুলো তারুণ্যকে প্রাধান্য দিয়ে পোশাক তৈরি করেছে এবার। ঈদের পোশাক আরামদায়ক করতে কাপড়ের ওপর গুরুত্ব দেওয়া হয়েছে। উজ্জ্বল ও হালকা—দুটো রংই চলছে এবার।

default-image

কোথায় পাবেন

ইজি, ক্যাটস আই, এক্সট্যাসি, অঞ্জন’স, জেন্টল পার্ক, রং বাংলাদেশ, বিশ্বরঙ, ডিমান্ড ফ্যাশন, আড়ং, ইয়েলো, লা-রিভ, দেশীদশ, দর্জিবাড়ি, মেনজ ক্লাব, রিচম্যান, ওয়েস্টেক্স, টেক্সমার্ট, কে-ক্রাফট, ফ্রিল্যান্ড, র‌্যামন্ড, মুসলিম কালেকশনসহ বেশ কিছু ফ্যাশন হাউসে পেয়ে যাবেন শার্ট, পলো শার্ট ও টিশার্ট। এ ছাড়া ঘুরে ঘুরে কিনতে চাইলে বসুন্ধরা, যমুনা ফিউচার পার্ক, নিউমার্কেট, নূরজাহান মার্কেট, পলওয়েলে পাবেন ছেলেদের পোশাক। দামের বিষয়টি নির্ভর করবে উপকরণ ও নকশার ওপর। তবে ৪৫০ টাকা থেকে শুরু করে সাড়ে ৪ হাজার টাকার মধ্যেই পেয়ে যাবেন পছন্দের শার্ট।

নকশা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন