কিছু টিপস

বিজ্ঞাপন

 ঢাকা থেকে মালয়েশিয়া এয়ার এশিয়া অথবা মালয়েশিয়ান এয়ারলাইনসের টিকিট পাবেন। খরচ জনপ্রতি রিটার্নসহ ১৮ থেকে ৩০ হাজার টাকা। কুয়ালালামপুরে ইচ্ছা করলে হোটেলে না থেকে গেস্ট হাউসে থাকতে পারেন। এখানে বাংলাদেশিদের গেস্ট হাউস আছে, যা আপনাকে একেবারে ঘরোয়া অনুভূতি দেবে। খরচ পড়বে টাকায় এক হাজার ২০০ থেকে দুই হাজার। কুয়ালালামপুরে শপিংয়ের জন্য সানওয়ে লেগুন, মাইনস, মাইডিন, টাইমস স্কয়ার, চায়না টাউন, মিড ভ্যালি আর লাংকাউইতে লাংকাউই ফেয়ার শপিং মল উল্লেখযোগ্য। ইলেকট্রনিকস যেকোনো পণ্যের জন্য অতি পরিচিত কুয়ালালামপুরের লে ইয়াট মার্কেট। ট্যাক্সিতে না ঘুরে বাসে যেতে পারেন, অনেক সাশ্রয়ী। এ ছাড়া আছে মনোরেল। শহরজুড়ে মাথার ওপর রেলপথ। অসাধারণ সার্ভিসে খরচ জনপ্রতি এক-পাঁচ রিঙ্গিত। বুকিট বিনতান সদা জমজমাট রেস্তোরাঁ, শপিং আর স্পা ম্যাসাজের পসরা নিয়ে। ইন্ডিয়ান ফুড, চায়নিজ ফুড, পাকিস্তানি ফুড আর মালয় ফুড খেতে পারেন স্বাদ বদলানোর জন্য। আর বিপদের সঙ্গী কেএফসি আর ম্যাকডোনাল্ডস তো আছেই গলির মোড়ে মোড়ে। লাংকাউইতে ড্রাইভিং লাইসেন্স নিতে ভুলবেন না। কারণ, ড্রাইভিং লাইসেন্সের কপি জমা দিয়ে নামীদামি সব গাড়ি সারা দিনের জন্য ভাড়া নেওয়া যায় অনায়াসে। যাঁদের স্পোর্টস কার চালানোর স্বপ্ন, তাঁদের জন্য লাংকাউই স্বর্গ। কম খরচে নিজের হয়ে যাবে দামি দামি সব স্পোর্টস কার। গেনটিং হাইল্যান্ডের জন্য গরম কাপড় অবশ্যই নেবেন। অনেক উঁচুতে বলে মেঘের রাজ্যে শীতটা একটু বেশি। পুরো মালয়েশিয়া একদম নিরাপদ। তাই চুটিয়ে ঘুরে বেড়ান সারা দিন, এমনকি সারা রাত।

বিজ্ঞাপন
মন্তব্য পড়ুন 0
বিজ্ঞাপন