বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

বছরজুড়ে খুশকির সমস্যা কিছুটা কম থাকলেও শীতকালে তা বেড়ে যায়। কারণ, শুষ্ক আবহাওয়া ও ঠান্ডা বাতাস। যাঁদের ত্বক শুষ্ক, তাঁরা একটু বেশিই এ সমস্যায় ভোগেন। খুশকি পুরোপুরি নির্মূল করা কঠিন। এ সময় মাথার ত্বকের স্বাস্থ্য ভালো রাখাই প্রথম সমাধান। সাধারণ ও সহজ উপায় প্রয়োগ করা যায়। এতে কার্যকর ফলাফলও পাওয়া যাবে, মতামত হার্বস আয়ুর্বেদিক ক্লিনিকের আয়ুর্বেদ রূপবিশেষজ্ঞ আফরিন মৌসুমির।

প্রতিদিন শ্যাম্পু করা

মাথার ত্বক পরিষ্কার করতে চাই শ্যাম্পু। কিন্তু প্রাকৃতিক উপায়ে পরিষ্কার করতে পারলে ভালো ফল পাওয়া যাবে। কুসুম গরম পানিতে সারা রাত রিঠা ভিজিয়ে রেখে সকালে সেই পানি দিয়ে চুল পরিষ্কার করে নিতে পারেন। আধা কাপ মৌরি ও ১ কাপের তিন ভাগের এক ভাগ মেথি সারা রাত পানিতে ভিজিয়ে রাখতে হবে। পরে মৌরি ও মেথির ঘন মিশ্রণ তৈরি করে নিন। এতে দিতে হবে সামান্য মেথি ও মৌরি ভেজানো পানি। এবার এই মিশ্রণটি মাথার ত্বকে ব্যবহার করতে হবে। ৩০ মিনিট পর শ্যাম্পু করে নিলে খুশকি অনেকটাই কমবে। শ্যাম্পুর সঙ্গে অবশ্যই লেবুর রস মিশিয়ে নিতে হবে। ২ টেবিল চামচ শ্যাম্পুর জন্য লেবুর রস নিতে হবে ১ চা–চামচ।

যাঁরা সহজ উপায় চান, তাঁরা ১ কাপ মৌরি, ১ কাপ আমলকী, আধা কাপ মেথি ও ৬ কাপ পরিষ্কার পানি নিয়ে নিন। সব উপকরণ একসঙ্গে জ্বাল দিয়ে ১ কাপ করে নিতে হবে। এবার ঠান্ডা করে একটি স্প্রে বোতলে ফ্রিজে রেখে দিতে পারেন। সাত দিন পর্যন্ত সংরক্ষণ করতে পারবেন। এটি ব্যবহার করতে হবে প্রতিদিন, তেল ছাড়া মাথার ত্বকে। ২০ মিনিট পর শ্যাম্পু করে ধুয়ে ফেলুন। এতে দ্রুত খুশকি কমবে।

চুল আঁচড়ালে কমবে খুশকি

চুল আঁচড়ানোর সঙ্গে খুশকি কমার সম্পর্ক আছে। কিন্তু নিয়ম হতে হবে সঠিক। মাথা নিচু করে সব চুল উপুড় করে সামনে নিয়ে আসুন। এবার চিরুনি দিয়ে ঘাড়ের দিক থেকে চুল আঁচড়ে কপালের দিকে আনুন। এতে খুশকি কমে আসবে অনেকটাই।

নকশা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন