বিজ্ঞাপন

প্রচণ্ড দাবদাহে জনজীবন অতিষ্ঠ হয়ে উঠেছে। মাথাব্যথা, পেটের অসুখ, জ্বর, হিট স্ট্রোক বিভিন্ন ব্যাধিতে আক্রান্ত হচ্ছেন অনেকেই। এ সময় খাবারের বিষয়ে সচেতন হলে এই গরমেও নিজেদের সুস্থ রাখা সম্ভব।

পানি

গরমে শরীরে পানির ঘাটতি দেখা দেয়। তাই পর্যাপ্ত পরিমাণে পানি পান করতে হবে। দৈনিক দুই থেকে তিন লিটার পানি পান করুন। সঙ্গে শরীর থেকে লবণ বের হয়ে যায়, তাই সামান্য লবণ মিশিয়ে পানি অথবা স্যালাইন পান করতে পারেন। লেবুপানি ক্লান্তি দূর করবে। তা ছাড়া পান করতে পারেন ডাবের পানি।

রসাল ফল

default-image

বাজার এখন ফলে টইটম্বুর। তরমুজ, আম, জামরুল প্রভৃতি ফল শরীরে পানির ঘাটতি পূরণ করবে। অনেকেই আছেন বেশি পানি খেতে পারেন না। এসব ফল সেই পানির ঘাটতি পূরণ করবেন।

অল্প তেলে কম মসলাযুক্ত খাবার

default-image

গরমে মসলা যেমন হজম হতে চায় না, তেমনি বেশি তেলের খাবারও পরিপাকে ব্যাঘাত ঘটায়। তাই কম তেলে ও কম মসলায় রান্না করুন। ১ গ্রাম তেলে ৯ কিলোক্যালরি তাপ উৎপাদন করে। যেসব খাবারে তেল ও মসলা কম লাগে যেমন সবজি, পাতলা ডাল, আমডাল, ছোট মাছের ঝোল, করলার তরকারি, লাউ–চিংড়ি, পেঁপে অথবা চালকুমড়া দিয়ে মাছ অথবা মুরগির পাতলা ঝোল প্রভৃতি খাবার এই গরমে খেতে হবে। ভাজাপোড়া খাবার গরমে পরিহার করুন।

default-image

দইয়ের তৈরি খাবার

দই খাবার তালিকায় রাখুন। দইয়ের লাচ্ছি, দইয়ের শরবত, আম দই, দইয়ের সালাদ প্রতিদিন খাবার তালিকায় রাখতে পারেন। রান্নাতেও দই ব্যবহার করতে পারেন। সকালের নাশতাতেও দই, চিড়া, আম অথবা কাঁঠাল রুটি সবজির বিকল্প হিসেবে রাখতে পারেন।

যেসব খাবার পরিহার করবেন

default-image

এই গরমে বেশ কিছু খাবার আছে, যা খেলে আপনি অসুস্থ হতে পারেন, সেসব খাবার পরিহার করুন। তৃষ্ণা মেটানোর জন্য কোমল পানীয়, কোল্ড ড্রিংকস, জাঙ্ক ফুড, ফাস্ট ফুড থেকে নিজেকে সরিয়ে রাখুন। আইসক্রিম শিশু থেকে বুড়ো পর্যন্ত সবার পছন্দের একটি খাবার। তবে এ খাবারটিও পরিহার করতে হবে। আইসক্রিম খেয়ে তৃষ্ণা মেটানো যায়, তবে এর চর্বি পরে শরীরের গরম বাড়িয়ে তোলে। তবে ললি আইসক্রিম খেতে পারেন কিংবা চকলেটবিহীন আইসক্রিম অল্প পরিমাণে খেতে পারেন। ক্রিমবিহীন দই দিয়ে ঘরে তৈরি আইসক্রিম খেতে পারেন। ফ্রিজ থেকে খাবার বের করে সঙ্গে সঙ্গে খাবেন না। পানি কিংবা অন্য যেকোনো খাবার ফ্রিজ থেকে বের করে কয়েক মিনিট স্বাভাবিক তাপে রেখে দিন। এরপর খাবারটি খেতে পারবেন। মাংস, পোলাও, বিরিয়ানি এ–জাতীয় খাবার এই গরমে পরিহার করুন। আটার রুটি শরীরের পানি শুষে নেয়। তাই রাতে রুটির পরিবর্তে সমপরিমাণ ভাত খেতে পারেন। বেশি তেলের খাবার, ঘি দিয়ে তৈরি খাবারগুলো পরিহার করুন। বাইরের খাবার না খেয়ে ঘরের তৈরি খাবার খান। গরম খাবার যেমন স্যুপ, মমো, ভাজাপোড়া খাবারগুলোকে এই গরমে ছুটি দিন। সঠিক উপায়ে সঠিকভাবে খাবার খেলে এই গরমে আপনি থাকবেন নিরাপদ এবং সুস্থ।

নকশা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন