default-image

প্রশ্ন: ১. আমার বয়স ১৫ বছর। মাথার চুল কোঁকড়া এবং চুলের আগা ফেটে গেছে। চুলে হালকা টান লাগলেই আগার কিছু অংশ ভেঙে পড়ে। সে ক্ষেত্রে আমি আমার চুল সোজা করানোর জন্য রিবন্ডিং, স্মুথনিং, ক্যারোটিন বা অন্য কোনো ট্রিটমেন্ট করাতে পারি কি? চুলের আগা ভেঙে ও ফেটে যাওয়া বন্ধে কী করতে পারি?

২. কনুই, বগলের নিচে, ঘাড়ে ও স্পর্শকাতর অঙ্গে কালো দাগ দূর করব কী করে?

৩. মিথাইল প্যারাবেন, প্রোপাইল প্যারাবেন রাসায়নিক পদার্থ দুটি কি কোনো বিউটি প্রোডাক্টসে থাকা ক্ষতিকর। আর যদি থেকেও থাকে সে ক্ষেত্রে তা ব্যবহার করা যাবে কি?

এম জে মায়িশা

উত্তর: ১. চুল ফেটে গেলে ফাটা অংশ কেটে ফেলতে হবে। কারণ, চুলের ফাটা অংশ আবার ঠিক করা সম্ভব নয়। এ ছাড়া চুলে তেল মালিশ করলে চুলের আগা ফাটা কমেই যায়। তাই শ্যাম্পু করার ১ ঘণ্টা আগে অবশ্যই চুলে তেল মালিশ করতে হবে। চুল ফেটে যাওয়া মানে হলো চুল দুর্বল। তাই এখন সোজা করানোর জন্য রিবন্ডিং, স্মুথনিং, ক্যারোটিন অথবা অন্য কোনো ট্রিটমেন্ট করানো ঠিক হবে না। কিছুদিন তেল মালিশে চুলের ফাটা কমে গেলে তখন এ ধরনের ট্রিটমেন্ট করাতে পারেন।

২. কালো দাগ কমাতে সমপরিমাণ টকদই, আলুর রস ও শসার রস ভালো কাজ করে। তবে টকদই ব্যবহারের আগে ছেঁকে পানি বের করে নিতে হবে, যেন মিশ্রণটি ঘন হয়। টকদই ব্যবহার না করতে চাইলে মধু ব্যবহার করা যাবে। গোপনাঙ্গে ব্যবহারের সময় অবশ্যই যথেষ্ট সাবধান থাকতে হবে।

৩. মিথাইল প্যারাবেন, প্রোপাইল প্যারাবেন সাধারণ তেলে বা ক্রিমে পরিমাণমতো ব্যবহার করা হয়। ত্বকে বা চুলে সহজেই ব্যবহার করা যাবে। তবে মিথাইল প্যারাবেন, প্রোপাইল প্যারাবেন সরাসরি ব্যবহার করা যাবে না। এ ক্ষেত্রে অবশ্যই অন্য উপাদানের সঙ্গে মিশিয়ে নিতে হবে।

বিজ্ঞাপন
মন্তব্য পড়ুন 0