বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

শুষ্ক ত্বক

default-image

বেসন, কাঁচা হলুদবাটা ও এক কাপ পানি ফুটিয়ে নিতে হবে। হালকা কুসুম গরম অবস্থায় মুখে লাগিয়ে শুকানো পর্যন্ত রাখুন। এই প্যাকটি তোলার সময় পানি ব্যবহার করা যাবে না। ফ্রিজে বরফ করা শসার রস দিয়ে হালকাভাবে ঘষে প্যাক তুলে ফেলুন।

বেশি শুষ্ক ত্বকের জন্য

এক কাপ দুধের মধ্যে এক টেবিল চামচ বেসন ও এক টেবিল চামচ চালের গুঁড়া ফুটিয়ে ত্বকে ব্যবহার করতে হবে। শুকিয়ে গেলে সমপরিমাণ পানি ও সমপরিমাণ তরল দুধের মিশ্রণে তৈরি করা বরফ ঘষে প্যাকটি তুলে ফেলুন।

মিশ্র ত্বকের জন্য

default-image

যাদের ত্বক অতিরিক্ত শুষ্ক, তাদের ত্বকে অক্সিজেনের মাত্রা অনেকটাই কম। সে ক্ষেত্রে চালের গুঁড়া সমপরিমাণ পানি দিয়ে ফুটিয়ে নিতে হবে। কুসুম গরম অবস্থায় এতে এক চিমটি কর্পূর মিশিয়ে ত্বকে ব্যবহার করতে হবে। শুকিয়ে গেলে বরফ করা গাজরের রস দিয়ে তুলে নিন।

তৈলাক্ত ত্বক

যাদের ত্বকে ব্রণের সমস্যা রয়েছে, তারা সমপরিমাণ পুদিনাপাতা, তুলসীপাতা ও নিমপাতা থেঁতো করে রস বের করে নিতে হবে। এতে অল্প বেসন দিয়ে ফুটিয়ে নিন। কুসুম গরম অবস্থায় মুখে ব্যবহার করতে হবে। শুকিয়ে এলে বিটরুটের রস দিয়ে তৈরি বরফ দিয়ে আলতো ঘষে প্যাকটি তুলে নিতে হবে।

বিশেষ পরামর্শ

ত্বকে অক্সিজেনের মাত্রা বাড়াতে সব থেকে উপকারী হলো মালিশ। এতে ত্বকে রক্ত সঞ্চালন ভালো হয় এবং অক্সিজেন বাড়ার উপকার পাওয়া যায়। তবে অনেকেই না জেনে ত্বকে মালিশ করে, যা একেবারেই ক্ষতিকর। মালিশের নির্দিষ্ট কিছু নিয়ম ও পদ্ধতি রয়েছে, যা না জেনে কোনোভাবেই নিজে নিজে প্রয়োগ করা ঠিক নয়।

নকশা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন