default-image

অন্দরসজ্জায় বেশ কিছুদিন ধরেই চলছে দেয়ালজুড়ে আসবাবের ব্যবহার। ইদানীং শুধু আসবাবই নয়, দেয়ালে যুক্ত করা হচ্ছে টেলিভিশন। একদিকে কমে আসছে বাড়ির আয়তন, অন্যদিকে টেলিভিশনের আকৃতিতেও এসেছে পরিবর্তন। বড় পর্দার টেলিভিশনই এখন চলছে বেশি। অন্দরে জায়গা বাঁচানোর পাশাপাশি দেখার সুবিধার্থে এখন ঘরের দেয়ালে টেলিভিশন স্থাপনের বিষয়টি বেশ জনপ্রিয় হয়ে উঠছে, এমনটাই জানালেন রেডিয়েন্ট ইনস্টিটিউট অব ডিজাইনের অন্দরসজ্জাবিদ গুলসান নাসরীন চৌধুরী। 

default-image

দেয়ালে টেলিভিশন রাখার জন্য বেশির ভাগ ক্ষেত্রে সাধারণত বসার ঘরের দেয়ালটাকেই বেছে নেওয়া হয়। এ সময় অন্দরসজ্জায় আরও কিছু বিষয়ে খেয়াল রাখার পরামর্শ দিলেন এই অন্দরসজ্জাবিদ। যেখান থেকে টিভি দেখতে কারও কোনো অসুবিধা হবে না, ঘরের এমন কোনো দেয়াল বেছে নিতে হবে। এরপর দেয়ালের ঠিক মাঝ বরাবর বসাতে হবে টিভিটা। এ ক্ষেত্রে দৃষ্টি থেকে কতটুকু দূরত্বে টেলিভিশন স্থাপন করবেন, তা সম্পূর্ণই টেলিভিশনরে আয়তনের ওপর নির্ভর করবে। দেয়ালে মাঝ বরাবর টিভি বসানোর পর বাকি দেয়ালটুকু হয়তো ফাঁকাই পড়ে থাকে। এ জন্য ঘরে কোনো শোপিস কেবিনেট বা শোকেস না রেখে টিভির চারপাশের দেয়ালজুড়ে বসানো হচ্ছে নান্দনিক নকশার তাক। আয়তাকার, বর্গাকার বা ত্রিভুজাকৃতি তাকে নানা রকম জ্যামিতিক নকশার প্রয়োগ তো আছেই; পাশাপাশি ইংরেজি বর্ণমালার বিভিন্ন বর্ণের (এ, ই, এল ইত্যাদি) আকৃতিও শোভা পায়। তাকের ফাঁকে ফাঁকে বসিয়ে দিতে পারেন পছন্দের শোপিস। তবে যাতে হিজিবিজি না দেখায়, সেদিকটাও খেয়াল রাখার পরামর্শ দিলেন এই অন্দরসজ্জাবিদ। কারণ, এতে টিভি দেখার সময় তা দৃষ্টির ব্যাঘাত ঘটাতে পারে।
টেলিভিশনের মনিটরটা অনেক বড় হলে অবশ্য দেয়ালজুড়ে তাক না বসানোই ভালো। এ ক্ষেত্রে মনিটরের নিচে মেঝে থেকে ছয় ইঞ্চি বরাবর ফাঁকা রেখে ড্রয়ার বা দরজা দেওয়া তাক বানাতে পারেন। এবার টেলিভিশনের পেছনের দেয়ালটিতে বসিয়ে নিতে পারেন ওয়াল পেপার।
দেয়ালে লাগানোর পর টেলিভিশনের তারগুলো যাতে ঘরের সৌর্ন্দযে বাধা হয়ে না দাঁড়ায়, সে জন্য মনিটরের নিচ বরাবর দেয়াল থেকে ছয় ইঞ্চি দূরত্বে ওয়াল পেপার লাগানো আরেকটি পারটেক্স বোর্ড বসিয়ে দিন। তাতে আড়াল হয়ে যাবে তারগুলো।
চলছে বিশ্বকাপ ক্রিকেট খেলা। এই সময়টায় প্রায় সব বাড়িতেই থাকছে দলে-বলে মিলে খেলা দেখার আয়োজন। এ জন্য টিভিটাকে দেয়ালে রাখাই ভালো। এতে একসঙ্গে অনেকেই খেলা দেখার সুযোগ পাবেন। খেলা দেখার জন্য মেঝেতে বিছিয়ে নিতে পারেন শতরঞ্জি বা ম্যাট। তাতে কয়েকটি ছোট কুশনও রাখতে পারেন। এ ছাড়া যাঁদের মেঝেতে বসতে অসুবিধা, তাঁদের বসার জন্য দেয়ালের একদিকে সোফার ব্যবস্থাও রাখতে পারেন।
গ্রন্থনা: বিপাশা রায়

বিজ্ঞাপন
নকশা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন