ওয়াজি স্পাইবি। ছবি: সংগৃহীত
ওয়াজি স্পাইবি। ছবি: সংগৃহীত

১৯৭০ সালে ঘূর্ণিঝড়ের পর বাবাকে হারানো শিশু ওয়াজিউল্লাহর ঠাঁই হয়েছিল ভোলার চরফ্যাশনের এতিমখানায়। এরপর তাঁকে দত্তক নেন অস্ট্রেলিয়ার জ্যাক স্পাইবি ও জোন স্পাইবি। অস্ট্রেলিয়ার মেলবোর্নে গিয়ে সেই পরিবারে তাঁর নাম হয়ে যায় ওয়াজি স্পাইবি। ওয়াজি এখন অস্ট্রেলিয়ার নামী শেফ। তাঁর হাতের খাবার ‘ওয়াজি ফুড’ ছাড়া তাসমানিয়া রাজ্যের বড় কোনো অনুষ্ঠানই যেন পূর্ণতা পায় না। বর্তমানে ‘ওয়াজি ফুড’ নামে নিজস্ব ক্যাটারিং সার্ভিস চালাচ্ছেন ওয়াজি। তাঁকে নিয়ে গত ১৭ অক্টোবর প্রতিবেদন ছাপা হয়েছিল প্রথম আলোর ছুটির দিনে ক্রোড়পত্রে।

নকশার পাঠকদের জন্য ওয়াজি স্পাইবি দিয়েছেন কয়েক পদের খাবারের রেসিপি।

বিজ্ঞাপন

আলুর রয়েস্টি ও স্যামন মাছ

default-image

উপকরণ: স্যামন মাছ ভাজা ৩০০ গ্রাম, সেদ্ধ আলু মাঝারি ৪টি, মাখন ১০০ গ্রাম, কাঁচা পেঁপেকুচি ১টি, শসাকুচি ১টি, পেঁয়াজকুচি ১টি, লেবুর রস ১টি, খেজুরের গুড় ৬০ মিলি ও মরিচবাটা ১ টেবিল চামচ।

প্রণালি: সেদ্ধ আলু ছিলে ভালো করে ভর্তা করে নিন। হালকা আঁচে কড়াইয়ে মাখন দিয়ে দিন। বড় চামচ দিয়ে আলুগুলো চাপ দিন। রুটির আকার করে ফেলুন। এরপর দুই দিক মচমচে ভাজার মতো হওয়ার আগপর্যন্ত চুলায় রাখুন। হয়ে গেলে প্লেটে নামিয়ে নিন। অন্যান্য উপকরণ দিয়ে সালাদ তৈরি করুন এবং আলুর রয়েস্টির ওপর ঢেলে দিন। ওপরে স্যামন মাছগুলো সাজিয়ে দিন।

গরুর মাংস ও সালাদ

default-image

উপকরণ: গরুর মাংস (৪ অংশ করে) ২৫০ গ্রাম, বিফ পাউডার (গরুর মাংসের গুঁড়া) ৫০ গ্রাম, তেল ২০ গ্রাম, লেটুসপাতাকুচি পরিমাণমতো, টমেটোকুচি ৪টি, শসা ২টি, জলপাই তেল ১০০ গ্রাম, কাসুন্দি ১ টেবিল চামচ, লবণ ও মরিচ পরিমাণমতো।

প্রণালি: গরুর মাংস মসলা দিয়ে মাখিয়ে গরম তেলে ভেজে নিন ১৫ থেকে ২০ মিনিট। বাকি সব উপকরণ একসঙ্গে মাখিয়ে একটি সালাদ তৈরি করে নিন। এরপর নিজের মতো সাজিয়ে পরিবেশন করুন।

কোয়েল ফ্রাই

বিজ্ঞাপন
default-image

উপকরণ: চীনা লাল খাবারের রং ১ টেবিল চামচ, বড় আকারের আস্ত কোয়েল (চামড়া ছাড়ানো) ৪টি, তেল ২৫০ গ্রাম, পাঁচফোড়ন ১ টেবিল চামচ, লবণ পরিমাণমতো, ভুট্টার আটা ১ টেবিল চামচ, কাটা শসা ২টি, পেঁয়াজ কাটা ১টি, পাকা টমেটো কাটা (মাঝারি) ২টি, খেজুরের গুড়ের রস বা শিরা ৬০ মিলি লিটার ও চীনা মসলাদার লবণ ১ টেবিল চামচ।

প্রণালি: ১ লিটার পানিতে লাল খাবারের রং ভালো করে মিশিয়ে পানি গরম করুন। এবার লাল গরম পানিতে কোয়েল দিয়ে ৩০ সেকেন্ড পর চুলার আগুন নিভিয়ে দিন। পানি থেকে তুলে রেখে ঠান্ডা হতে দিন। ঠান্ডা হয়ে গেলে কোয়েলগুলোকে মসলা, লবণ ও ভুট্টার আটা দিয়ে মাখিয়ে নিন। মাখানোর সময় অল্প পানি দিন। এরপর গরম তেলে দুটি করে কোয়েল একসঙ্গে দিয়ে দিন। ভালো করে ভেজে নিন। ভাজা হয়ে গেলে কোয়েল উঠিয়ে পেপার টিস্যুতে রেখে তেল শুকিয়ে নিন। এবার সালাদের উপাদান দিয়ে সালাদ বানিয়ে এর ওপর ভাজা কোয়েল রেখে ওপরে মসলাদার লবণ ছিটিয়ে দিয়ে পরিবেশন করুন।

মুরগির থাই কারি

default-image

উপকরণ: তেল ১ টেবিল চামচ, পেঁয়াজ কাটা ২টি, মরিচবাটা ৩ টেবিল চামচ, মুরগির মাংস, লম্বা টুকো ৮০০ গ্রাম, সবুজ ও লাল ক্যাপসিকাম কাটা (মাঝারি) ১টি করে, পেঁয়াজ শাক ১ গুচ্ছ, নারকেল ক্রিম ৫০০ মিলি, কাফির লাইম পাতা ৪টি, মটরশুঁটি (মাঝখান দিয়ে কাটা) ১৫০ গ্রাম, পেঁয়াজ ভাজা ২০ গ্রাম ও ধনেপাতা ১ গোছা।

প্রণালি: প্রথমে পেঁয়াজকুচি এবং অন্যান্য বাটা মসলা একসঙ্গে ভেজে নিন। এরপর মুরগির মাংস এবং লবণ যুক্ত করে আরও কিছু রান্না করে নিন। পেঁয়াজ ভাজা এবং ধনেপাতা ছাড়া বাকি সব একসঙ্গে দিয়ে রান্না করুন। মাংস সেদ্ধ না হওয়া পর্যন্ত। রান্না হয়ে গেলে নামিয়ে পেঁয়াজ ভাজা এবং ধনেপাতা ছিটিয়ে পরিবেশন করুন।

ডিমের লাল ঝাল তরকারি

default-image

উপকরণ: মাঝারি আকারের পেঁয়াজ ২টি, তেল ৩০ মিলিগ্রাম, হলুদ ১ চা-চামচ, লাল মরিচবাটা ৩ টেবিল চামচ, পাকা টমেটো (টুকরা করা) ৩টি, টমেটোবাটা ২০০ গ্রাম, লবণ ও মরিচ পরিমাণমতো, সেদ্ধ ডিম (যেকোনো) ৮টি, তেল ভাজার জন্য ৪০০ মিলিগ্রাম, পেঁয়াজ ভাজা ২০ গ্রাম, ধনেপাতা ১ বা ২ গোছা।

প্রণালি: প্রথমে গরম তেলে ২টি পেঁয়াজ কেটে ভেজে নিন। পেঁয়াজ বাদামি রঙের হয়ে গেলে এতে হলুদ এবং লাল মরিচবাটা দিয়ে দিন। এরপর এতে তাজা টমেটো ঢেলে এক মিনিট রান্না করুন এবং এরপর টমেটোবাটা দিয়ে আরও ১ মিনিট রান্না করুন। তৈরি হয়ে গেলে আপনার রেড চিলি কারি ঢেলে নিন। এবার সেদ্ধ ডিমগুলো গরম তেলে বাদামি রং না হওয়া পর্যন্ত ভেজে নিন। ভাজা ডিমগুলো মাঝখানে কেটে নিয়ে কাটা অংশ ওপরের দিকে করে রেড চিলি কারির ওপর বসিয়ে দিন, খেয়াল রাখবেন যেন ডিম কারিতে ডুবে না যায়। এভাবে ৫ মিনিট রেখে দিন। এবার ডিমের ওপর পেঁয়াজ ভাজা এবং ধনেপাতা ছড়িয়ে দিয়ে পরিবেশন করুন।

বিজ্ঞাপন
মন্তব্য পড়ুন 0