আপনাদের জন্য নকশায় শুরু হলো বিশেষ প্রশ্ন-উত্তর পর্ব ‘নকশার সমাধান’। এই বিভাগে সাজ, ফ্যাশন, রান্না, খাবার ও অন্দরসজ্জাবিষয়ক প্রশ্ন পাঠাতে পারবেন পাঠকেরা। প্রশ্নগুলোর উত্তর দেবেন সংশ্লিষ্ট বিষয়ের বিশেষজ্ঞরা। আজ থাকছে সৌন্দর্যচর্চার প্রশ্ন ও উত্তর।

বিজ্ঞাপন

নকশার সমাধান বিভাগে পাঠকের রূপ-নকশা সমস্যাগুলোর সমাধান দিয়েছেন রূপবিশেষজ্ঞ শারমিন কচি।

default-image

প্রশ্ন: আমার তিনটি প্রশ্ন:

১. ত্বকে আইসবার্ন হলে কী করা উচিত?

২. আমার অ্যালার্জির সমস্যা আছে। চোখের নিচের কালো দাগ সারাতে ঘরোয়াভাবে কিছু করা যায়?

৩. শীতে কি মুখে ময়েশ্চারাইজার হিসেবে পেট্রোলিয়াম জেলির লোশন ব্যবহার করা যাবে? আমার ত্বক তৈলাক্ত।

তোয়া ইসলাম

বিজ্ঞাপন

পরামর্শ:

১. পরিষ্কার একটি রুমাল কুসুম গরম পানিতে (৪০-৪২ ডিগ্রি সেলসিয়াস তাপমাত্রা) ভিজিয়ে নিন। তারপর সেটা নিংড়ে নিয়ে আইসবার্ন হওয়া অংশে আস্তে আস্তে লাগান। মসুর ডাল, বেসন, মধু, দুধ পরিমাণমতো নিয়ে মিশ্রণ তৈরি করুন। মিশ্রণটি সারা মুখে লাগিয়ে রাখুন। কিছুক্ষণ পর ধুয়ে ফেলুন।

২. চোখের নিচের কালো দাগ দূর করতে শসা অত্যন্ত কার্যকর। শসা কুচি করে কেটে চোখের নিচে রেখে দিন ৩০ মিনিট। এ ছাড়া শসার রস তুলার বলে লাগিয়েও ব্যবহার করতে পারেন। গোলাপ জল ত্বকের টোনার হিসেবে ভালো কাজ করে। এটিও তুলার বলের সাহায্যে চোখের নিচে লাগাতে পারেন। চোখের ক্লান্তি দূর হবে। ত্বকের কালো দাগ ও ছোপ দূর করতে আলুও বেশ কার্যকর। আলু থেঁতলে চোখের ওপর ১৫ মিনিট রাখতে পারেন। এরপর ঠান্ডা পানি দিয়ে ধুয়ে ফেলুন। কাঁচা দুধ ত্বকের জন্য উপকারী। দুধে রয়েছে ভিটামিন এ। তুলার বল বা মেকআপ রিমুভার প্যাডে পরিমাণমতো কাঁচা দুধ নিয়ে চোখের নিচে লাগিয়ে রাখুন। ১৫ মিনিট পর ধুয়ে ফেলুন। এভাবে সপ্তাহে তিন-চার দিন কাঁচা দুধ ত্বকে ব্যবহার করলে কালো দাগ দূর হবে। ব্যবহৃত টি–ব্যাগ ঠান্ডা হলে চোখের নিচে ব্যবহার করতে পারেন। এতে কালচে ভাব অনেকটা হালকা হবে ও চোখের ফোলা ভাবও কমে যাবে।

৩. এই লোশন আলাদাভাবে মুখে ব্যবহার করলে ত্বক খুব অল্প সময়ের মধ্যে প্রাণবন্ত হয়ে উঠতে পারে। যেহেতু এটি খুবই হালকা এবং এতে ইলুমিনেটিং উপাদান আছে, ব্যবহারের সঙ্গে সঙ্গেই ত্বকে উজ্জ্বল ভাব চলে আসবে। তাড়াতাড়ি মিশেও যাবে। বাইরে ব্যবহারের জন্যও উপযোগী। আমার মতে এই লোশন শীত বা গ্রীষ্ম যেকোনো ঋতুতেই ব্যবহারের জন্য ভালো। বিশেষ করে ঘরের বাইরে যাওয়ার সময়। সে ক্ষেত্রে অর্ধেক বডি লোশনের সঙ্গে সামান্য পরিমাণ পানি মিশিয়ে লাগাবেন। কারণ মুখের ত্বক শরীরের অন্যান্য ত্বকের তুলনায় পাতলা হয়। পানি মেশালে অতিরিক্ত তৈলাক্ত ভাবও চলে যাবে।

বিজ্ঞাপন

প্রশ্ন পাঠানোর ঠিকানা—

প্রথম আলো, নকশা, ১৯ কারওয়ান বাজার, ঢাকা–১২১৫।

ই-মেইল: naksha@prothomalo.com

ফেসবুক পেজ: www.fb.com/Naksha.PA

মন্তব্য পড়ুন 0