পরিবারসহ প্রিন্স ফিলিপ
পরিবারসহ প্রিন্স ফিলিপছবি: সংগৃহীত

প্রিন্স ফিলিপের জীবনের নানা তথ্য রইল এখানে

বিজ্ঞাপন

৯৯ বছর বয়সে ৯ এপ্রিল মারা গেছেন যুক্তরাজ্যের রানি দ্বিতীয় এলিজাবেথের স্বামী প্রিন্স ফিলিপ। নানা গল্প আছে ফিলিপকে ঘিরে। গ্রিসের ক্ষমতাচ্যুত এক রাজার ভাইপোর সঙ্গে ব্রিটেনের রাজা ষষ্ঠ জর্জের মেয়ের প্রণয় থেকে পরিণয় নিয়েও কম জল ঘোলা হয়নি। দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধের পর বিয়ে হয় এলিজাবেথ ও ফিলিপের। বিয়ের পাঁচ বছর পর হঠাৎ বাবার মৃত্যুর কারণে এলিজাবেথ রানি হলেন। পছন্দের নৌবাহিনীর পেশাগত জীবন ছেড়ে ফিলিপকে পাকাপাকি চলে আসতে হলো লন্ডনের বাকিংহাম প্যালেসে। সেখানে স্ত্রী–সন্তান ছাড়াও নানা রাজকর্ম সামলাতে হয়েছে ফিলিপকে। এখানে ফিলিপ সম্পর্কে থাকছে সাতটি তথ্য।

default-image

১. আর দশজন সাধারণ স্বামীর মতো ফিলিপও তাঁর স্ত্রীর সঙ্গে খুনসুটিতে মেতে থাকতেন বিভিন্ন সময়ে। এমনকি তিনি ভালোবেসে তাঁর স্ত্রী রানি দ্বিতীয় এলিজাবেথকে ‘সসেজ’ বলে ডাকতেন।

২. ১৩ বছরের কিশোরী এলিজাবেথের সঙ্গে ব্রিটানিয়া রয়্যাল নেভাল কলেজের ক্যাডেট ১৮ বছরের তরুণ ফিলিপের প্রথম দেখা হয় ১৯৩৯ সালে। প্রথম দেখার পর ক্যাডেট ফিলিপের প্রেমে পড়েছিলেন রাজকন্যা এলিজাবেথ। ফিলিপের নীল চোখ মুগ্ধ করেছিল এলিজাবেথকে।

৩. ক্রিকেট খেলতে ভালোবাসতেন তিনি। মিডিয়াম পেস বোলার হিসেবে সুখ্যাতি ছিল তরুণ ফিলিপের। সমুদ্রের সঙ্গেও দারুণ সখ্য ছিল তাঁর। বিভিন্ন সময়ে সাগরে স্কেটিং করতে দেখা গেছে তাঁকে।

৪. নানা সময়ে প্রিন্স ফিলিপের সঙ্গে অনেক নারীর বন্ধুত্বের খবর রটেছে। তবে তার কোনোটারই প্রমাণ মেলেনি কোনো দিন। রানি নিজেই সব সময় ফিলিপকে ভালোবাসতেন ও বিশ্বাস করতেন। এটা এলিজাবেথের আশপাশে থাকা লোকজনের জবানিতে এসেছে বহুবার। রানির পাশে ফিলিপ এসে দাঁড়ালেই তাঁর হাসি আরও চওড়া হয়ে যেত, সেটা হোক কোনো অনুষ্ঠানে বা রাজপ্রাসাদের বাগানে।

৫. রানি এলিজাবেথ তাঁদের বিয়ের ৫০ বছর পূর্তিতে ফিলিপ সম্পর্কে বলেছিলেন, ‘তিনিই একমাত্র ব্যক্তি, যিনি সহজে কোনো প্রশংসা নিতে চান না। কিন্তু তিনি আমার বিশেষ শক্তির জায়গা।’

৬. ১৯৫২ থেকে ২০১৭ সাল পর্যন্ত বাকিংহাম প্যালেসের হয়ে প্রিন্স ফিলিপ ৩২ হাজার কর্মসূচিতে একা অংশ নিয়েছেন (রানি ছাড়া) এবং প্রায় ৫ হাজার বক্তৃতা দিয়েছেন।

৭. ডিউক অব এডিনবার্গ প্রিন্স ফিলিপ নিজেই সিদ্ধান্ত নিয়েছিলেন, ৭০তম বিবাহবার্ষিকীর পর রাজকার্য থেকে অবসর নেবেন। আর সেভাবেই তিনি হঠাৎ অবসরের ঘোষণা দিয়েছিলেন। রানিও সমর্থন জানিয়েছিলেন তাঁর সিদ্ধান্তে।

সূত্র: ভোগ, গার্ডিয়ান, ইউএসএ টুডে, বিবিসি, ওয়াশিংটন পোস্ট।

default-image
বিজ্ঞাপন
নকশা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন