বিজ্ঞাপন

বর্ষার সোঁদা গন্ধ দূর করতে ঘর শুকনা রাখার কোনো বিকল্প নেই বলে জানান তাসমিয়া জান্নাত। বাড়ির আসবাব, জানালা—সবকিছুই শুকনো কাপড় দিয়ে মুছতে হবে এই সময়। ঘরের মেঝে ডিটারজেন্ট এবং গরম পানি দিয়ে মুছে নিতে পারেন। এ ছাড়া সোঁদা গন্ধ দূর করতে লেবুর রসের জুড়ি নেই। লেবুর রসে থাকা অ্যাসিডিক ফরমেশন ব্যাকটেরিয়া ও ফাঙ্গাস দূর করে। ঘর মোছার সময় বালতির পানির সঙ্গে লেবুর রস মিশিয়ে নিন। গন্ধ দূর হবে নিমেষেই। এরপর ফ্যানের বাতাসে ঘর শুকান। লেবুর রস ছাড়া ঘরের মেঝে মোছার সময় ভিনেগার ব্যবহার করতে পারেন। ঘর পরিষ্কার হওয়ার সঙ্গে সঙ্গে হবে গন্ধবিহীন।

default-image

বৃষ্টির দিনে ঘরের মেঝে ঘেমে উঠলে শুকনা কাপড় দিয়ে মুছে দিন। তারপর ফ্যানের বাতাসে ঘর শুকিয়ে নিন। এ ছাড়া বৃষ্টির সময় ঘরের দরজা-জানালা বন্ধ থাকলেও বৃষ্টি শেষ হওয়ার পর পর জানালা খুলে বাইরের বাতাস ঘরে ঢুকতে দিন। এতে ঘরের সোঁদা গন্ধ অনেকটা কমে যাবে। ঘরে সতেজ ভাব নিয়ে আসতে রাখতে পারেন বর্ষার সুগন্ধি ফুল।

বর্ষাকালে ঘরে সোঁদা গন্ধ হওয়ার আর একটি কারণ হলো ধোয়া কাপড় শুকানো। বৃষ্টির কারণে বারান্দা বা ছাদে কাপড় শুকানো যায় না। ঘরে কাপড় শুকানো হলে ভেজা গন্ধ থেকেই যাবে। এই সমস্যা থেকে রেহাই পেতে ড্রাই ওয়াশ অথবা ওয়াশিং মেশিনে কাপড় ধোয়া যেতে পারে। সেটা সম্ভব না হলে বৃষ্টি বন্ধ হলে বাইরে শুকাতে হবে, তারপর ফ্যানের বাতাসে কাপড় শুকিয়ে নিতে হবে। সামান্য ভেজা কাপড়ও ভাঁজ করে তুলে রাখা যাবে না, বলে জানান তাসমিয়া জান্নাত।

আরও কিছু

 ঘরের সোঁদা গন্ধের স্থানে বেকিং সোডা ছিটিয়ে রাখুন। একটু পরেই দেখবেন গন্ধ উধাও হয়েছে।

 ঘরে সূর্যের আলো প্রবেশ করতে দিন। বাড়ির দরজা, জানালা অল্প সময় হলেও খোলা রাখুন।

 সপ্তাহে অন্তত এক দিন রান্নাঘরটি জীবাণুনাশক দিয়ে পরিষ্কার করুন।

 লবঙ্গ ও দারুচিনি পানিতে প্রায় আধা ঘণ্টা ভিজিয়ে রাখুন। এরপর এই পানি ফুটিয়ে এটি রুম ফ্রেশনার হিসেবে ব্যবহার করুন।

 স্যাঁতসেঁতে হয়ে যাওয়া দেয়ালগুলো ঠিক করতে, ফাটলগুলো পানিরোধক চুন ভরে দিন। এর ফলে আবার সেই জায়গা স্যাঁতসেঁতে হবে না।

 আলমারিতে ন্যাপথলিন এবং সিলিকা জেল রেখে দিন। সব ধরনের আর্দ্রতা থেকে দূরে রাখে, কাপড়ও ভালো রাখে।

নকশা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন