বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
default-image

মাঝখানে সিঁথি করে চুল দুই ভাগে ভাগ করে নিন। এবার বাঁ দিকের চুল আবার দুই ভাগ করুন। কানের পাশে অল্প কিছু চুল রেখে বাকি চুলের একটু মোটা করে গোছা নিন। চুলের সামনে থেকে সাধারণ বেণি বাঁধা শুরু করে পেছন পর্যন্ত বাঁধুন। বেণির শেষে পাঁচ থেকে ছয় ইঞ্চি চুল বের করে রেখে রাবার দিয়ে বাঁধুন। এবার কানের পাশে ছেড়ে রাখা চুল দিয়ে চিকন বেণি বেঁধে আগে করে রাখা লম্বা বেণির ভেতর ঢুকিয়ে ক্লিপ আটকে দিন। একইভাবে ডান দিকের চুলেও এমনভাবে ধাপে ধাপে ভাগ করে চুল বেঁধে নিন। টপ, স্কার্ট বা কুর্তির মতো পোশাকের সঙ্গে খুব মানিয়ে যাবে এই বেণি।

default-image

চুলে বেণি বাঁধার সময় শুধু পোশাকই নয়, চেহারার গড়নও বড় বিষয় দাঁড়ায়। যাঁদের গলার গড়ন একটু একটু লম্বাটে, তাঁদের অনেক সময় এক বেণির চুলে মানায় না। তাই বলে কি অপূর্ণ থেকে যাবে চুলে বেণি বাঁধার সাধ। না, তা নয়। বরং খোলা চুলেও বাঁধা বেণিতে আপনি হয়ে উঠতে পারেন আরও স্টাইলিশ। কীভাবে? ছবিতেই দেখুন না। কানের বাঁ দিক থেকে খুব বেশি চিকনও না আবার খুব বেশি মোটাও না, এমনভাবে চুল নিয়ে এক প্রান্ত থেকে বেণি বাঁধা শুরু করুন। অপর প্রান্তে বেণি বাঁধা শেষ হলে কানের পাশে ক্লিপ আটকে নিন। এবার সামনের দুই দিকে একেবারেই অল্প করে চুল নিয়ে চিকন বিনুনি বেঁধে ছেড়ে দিন।

default-image

চুল পাঁচ ভাগে ভাগ করুন। দুই পাশে চিকন করে মোট চারটি বিনুনি বাঁধুন। এবার মাঝখানের রেখে দেওয়া চুল দিয়ে মাঝবরাবর ফ্রেঞ্চ বেণি বেঁধে নিয়ে শেষের অংশে সাধারণ বেণি বাঁধুন।

default-image

চুলের দুই পাশে সিঁথি করে মাঝখানের চুল দিয়ে ফ্রেঞ্চ বেণি মাঝবরাবর বেঁধে নিন। দুই পাশের ছেড়ে রাখা চুল হালকা কার্ল করে নিন। খুব সহজেই বেঁধে নেওয়া এই বিনুনিতে সহজেই আসবে স্মার্ট। শাড়ি বা সালোয়ার-কামিজ, যেকোনো পোশাকের সঙ্গে তা মানিয়েও যাবে বেশ।

default-image

চুলের বাঁধনটা খেজুর বেণি, তবে উপস্থাপনায় পেয়েছে ভিন্নতা। যেমন সামনে বাঁ দিকে সিঁথি করে কিছু চুলে বেঁধে নেওয়া হয়েছে সাধারণ বেণি। পেছনে দুই ভাগ করা চুল, বেঁধে নেওয়া খেজুর বেণিতে সাধারণ চুল বাঁধাও পেয়েছে নতুনত্ব।

নকশা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন