নকশার জন্য রান্না করেছিলেন রবীন্দ্রসংগীত শিল্পী মিতা হক (বাঁয়ে) ও তাঁর মেয়ে ফারহিন খান জয়িতা
নকশার জন্য রান্না করেছিলেন রবীন্দ্রসংগীত শিল্পী মিতা হক (বাঁয়ে) ও তাঁর মেয়ে ফারহিন খান জয়িতাছবি: খালেদ সরকার

আজ রোববার সকালে মারা গেছেন রবীন্দ্রসংগীত শিল্পী মিতা হক। মিতা হক ও তাঁর মেয়ে ফারহিন খান জয়িতার রান্না প্রথম আলোর নকশায় প্রকাশিত হয়েছিল ২০১৫ সালের ৫ মে। র মিতা হকের প্রতি শ্রদ্ধা জানিয়ে সেই রেসিপি আবার তুলে ধরা হলো।

বিজ্ঞাপন

‘আলাদা করে রবীন্দ্রনাথকে নিয়ে ভাবার অবকাশ হয়নি কখনো। কারণ, রবীন্দ্রনাথের সৃষ্টির সঙ্গে পরিচয় সেই ছোটবেলা থেকেই। আর তখন থেকে এখন পর্যন্ত প্রতিটি দিন রবীন্দ্রনাথেই বসবাস।’ এমনটাই জানিয়েছিলেন রবীন্দ্রসংগীতশিল্পী মিতা হক। ২০১৫ সালের ৫ মের নকশায় প্রকাশিত ''প্রতিটি দিনই রবীন্দ্রনাথে বসবাস'' শিরোনামের প্রতিবেদনে তুলে ধরা হয়েছিল তাঁর ও মেয়ে জয়িতা হকের করা বেশ কিছু রেসিপি। মিতা হক আজ সকালে মারা গেছেন।তাঁর প্রতি শ্রদ্ধা জানিয়ে পুরোনো সেই রেসিপিগুলো আরেকবার তুলে ধরা হলো এখানে।

default-image

নারকেল-সরিষায় সবজি

default-image

উপকরণ: আলু ও পটোল ৫০০ গ্রাম, কালিজিরা ও হলুদ এক চিমটি করে, সরিষা ও নারকেল বাটা আধা কাপ, চিনি ২ চা-চামচ, পানি এক কাপ, সাদা তেল পরিমাণমতো।
প্রণালি: পটোলগুলো লম্বা করে ৪ ফালি আর আলুগুলো চিকন করে ৮ ফালি করে লবণ দিয়ে মেখে রাখুন। কড়াইয়ে তেল গরম করুন। এবার আলু ও পটোল হালকা ভেজে নামিয়ে রাখুন। পাত্রে আবার সাদা তেল দিয়ে আস্ত কালিজিরা ফোড়ন দিন। এবার একটু পানি আর হলুদ দিয়ে নারকেল ও সরষে বাটা ভালো করে কষিয়ে নিন। নারকেলের পানি শুকিয়ে এলে কড়াইতে এক কাপ গরম পানি ঢেলে তার মধ্যে আলু ও পটোল দিয়ে ঢেকে দিন। সেদ্ধ হয়ে এলে ঢাকনা তুলে নিন। এরপর তরকারির পানি শুকিয়ে এলে চিনি দিয়ে নেড়ে নামিয়ে নিন।

বিজ্ঞাপন

কাঁচা আমের টক

default-image

উপকরণ: কাঁচা আম ফালি ৩০০ গ্রাম, পানি ৩০০ গ্রাম, চিনি দুই কাপ, লবণ এক চিমটি, আস্ত সরিষা আধা চা-চামচ, শুকনা মরিচ চার থেকে পাঁচটি।
প্রণালি: পানিতে আম সেদ্ধ করে নিন। থকথকে হয়ে এল চিনি দিয়ে নাড়তে থাকুন। এবার আমের টক ভাবটা দূর করতে এক চিমটি লবণ দিন। আরেকটি কড়াইতে আস্ত সরিষা, শুকনা মরিচ-ফোড়ন দিন। এবার এই ফোড়নটা কাঁচা আমের টকের ওপর ঢেলে নামিয়ে নিন।

লাবড়া

default-image

উপকরণ: পটোল, আলু, বরবটি, পেঁপে, মিষ্টিকুমড়া ৫০০ গ্রাম (মৌসুমি সব ধরনের সবজিই এই রান্নায় ব্যবহার করা হয়), পাঁচফোড়ন আধা চা-চামচ, গোটা জিরা এক চিমটি, শুকনা মরিচ ও তেজপাতা দুটি, থেঁতো করা আদা আধা চা-চামচ, চিনি দুই চা-চামচ, ঘি এক চা-চামচ, সাদা তেল পরিমাণমতো।
প্রণালি: সবজিগুলো কেটে ধুয়ে পানি ঝরিয়ে রাখুন। এবার একটি নন-স্টিক পাত্রে সাদা তেল গরম করে পাঁচফোড়ন দিন। এরপর গোটা জিরা, তেজপাতা, শুকনা মরিচ দিন। এই উপকরণগুলো কালচে হয়ে এলে থেঁতো করা আদা দিন। এবার সবজিগুলো কড়াইতে দিয়ে একটু হলুদ ও লবণ দিয়ে ঢেকে দিন। একটু পর পর ঢাকনা তুলে নাড়তে থাকুন। পানি শুকিয়ে সবজিগুলো গায়ে গায়ে লেগে এলে চিনি দিয়ে একটু নেড়ে নিন। এবার এক চা-চামচ ঘি দিয়ে পাঁচ মিনিট ঢেকে নামিয়ে নিন।

কাঁচা মুগডাল

default-image

উপকরণ: কাঁচা মুগডাল ২০০ গ্রাম, পানি ২৫০ গ্রাম, শুকনা মরিচ তিনটি, আস্ত জিরা আধা চা-চামচ, লবণ এক চা-চামচ, চিনি দেড় চা-চামচ, আদা এক ইঞ্চি, হলুদ এক চিমটি, সাদা তেল পরিমাণমতো।

প্রণালি: ডাল ধুয়ে ২০ মিনিট ভিজিয়ে রাখুন। এবার একটু হলুদ দিয়ে সেদ্ধ করে নিন। ডাল ঘন হয়ে এলে লবণ ও চিনি দিন। আরেকটি পাত্রে তেল গরম করে শুকনা মরিচ ও আস্ত কালিজিরা কালচে করে ভাজুন। এবার ডালটা এই পাত্রে ঢেলে দিন। ছেঁচে রাখা আদাটুকু ডালের মধ্যে দিয়ে নামিয়ে নিন।

বিজ্ঞাপন
নকশা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন