শাশুড়ি সুজলা চৌধুরীকে নিয়ে স্বপ্না ভৌমিক রাঁধলেন পূজার রান্না
শাশুড়ি সুজলা চৌধুরীকে নিয়ে স্বপ্না ভৌমিক রাঁধলেন পূজার রান্নাখালেদ সরকার

ছোটবেলা কেটেছে মাগুরায়। বড় হয়েছেন যৌথ পরিবারে, ৩০-৩৫ জন সদস্যের সেই পরিবারে রান্না মানেই ছিল এলাহি ব্যাপার। আর পূজার সময়, তখন তো কথাই নেই। অষ্টমী থেকে দশমী পর্যন্ত নানা স্বাদের সুস্বাদু নিরামিষ খাবারের আয়োজন হতো বাড়িতে, এভাবেই ছোটবেলার পূজার স্মৃতিচারণা করলেন বিশ্বখ্যাত মার্কস অ্যান্ড স্পেনসারের কান্ট্রি ডিরেক্টর (বাংলাদেশ প্রধান) স্বপ্না ভৌমিক।

default-image

জানালেন, তাঁর মা সাধনা ভৌমিকের রান্নার হাতও ছিল অসাধারণ। ‘মা রাঁধতে রাঁধতে গান শোনতে ভালোবাসতেন। এদিকে চেনা কিছু রান্নায় তিনি প্রয়োগ করতেন নতুন কিছু কৌশলের, যে কারণে তাঁর হাতের রান্না পেত ভিন্নস্বাদ। আর এ দুটি বিষয়ই আকৃষ্ট করত আমাকে।’ মা যখন রান্না করতেন, তখন রান্নাঘরের সামনে টুল নিয়ে বসে মুগ্ধ হয়ে দেখতেন তিনি। শর্ষে ইলিশে লেবুপাতা, খিচুড়িতে পাঁচফোড়ন, কমলালেবুর রসে মাছের ঝোল—এসব ছিল তাঁর মায়ের হাতের রান্নার বিশেষ বৈশিষ্ট্য। যে ধারাটা স্বপ্না ভৌমিক নিজের রান্নাতেও বজায় রাখেন।

default-image

এদিকে বিয়ের পর পেলেন নতুন আরেক মাকে। স্বপ্না ভৌমিকের শাশুড়ি সুজলা চৌধুরী রান্নার হাতও দারুণ। এখন ৭৫ বছর বয়সেও সংসারের রান্নার দায়িত্বটা তিনিই সামলান।

বিজ্ঞাপন
default-image

পোস্তবাটায় লাবড়া

উপকরণ: সব ধরনের মৌসুমি সবজি ডুমো করে কাটা আধা কেজি, পোস্তবাটা ১ কাপ, এলাচি ৪টি, কাঁচা মরিচ ১০টি, তেল দেড় কাপ, চিনি স্বাদমতো, ঘি ২ টেবিল চামচ ও পাঁচফোড়ন ১ চা–চামচ।

প্রণালি: প্রথমেই কড়াইয়ে তেল গরম করে তেজপাতা ও পাঁচফোড়নের ফোড়ন দিয়ে পোস্তবাটা দিয়ে কিছুক্ষণ নাড়াচাড়া করতে হবে। এবার কেটে রাখা সবজি দিয়ে দিতে হবে। স্বাদমতো লবণ ও হলুদ দিয়ে হালকা নেড়ে আধা ঘণ্টার জন্য ঢেকে দিতে হবে। এবার কাঁচা মরিচ ও স্বাদমতো চিনি দিয়ে নামিয়ে নিতে হবে।

default-image

নারকেল মোচার ঘন্ট

উপকরণ: কলার মোচা ১টি (মাঝারি আকারের), নারকেলবাটা ১ কাপ, আলু ২টি (মাঝারি আকারের), জিরাবাটা ২ টেবিল, আদাবাটা ১ চা–চামচ, এলাচি ৪টি, দারুচিনি ৭ টুকরা, তেল ১ কাপ, ঘি ২ টেবিল চামচ, গরমমসলার গুঁড়া ১ চা–চামচ, ভাজা জিরার গুঁড়া ১ চা–চামচ, মরিচের গুঁড়া ৩ চা–চামচ, হলুদের গুঁড়া ২ চা–চামচ, চিনি ২ টেবিল চামচ ও জল আধা কাপ।

প্রণালি: কলার মোচা বেছে কুচিয়ে নিতে হবে। এরপর জলে সেদ্ধ করে জল ফেলে হাত দিয়ে চটকে নিতে হবে। এবার কড়াইতে তেল গরম করে সব মসলা কষিয়ে নিতে হবে। এরপর নারকেলবাটা দিয়ে আবার অনেকক্ষণ কষাতে হবে। আরেকটি কড়াইয়ে আলাদা করে আলু ভেজে রাখতে হবে। আলু ভাজা হয়ে এলে তা নারকেলবাটার মধ্যে দিয়ে কিছু সময় কষাতে হবে। আলু কিছুটা নরম হয়ে এলে মোচা দিয়ে দিতে হবে। ১০ মিনিট নাড়াচাড়া করে আধা কাপ জল দিতে হবে। জল শুকিয়ে এলে ভাজা জিরার গুঁড়া, গরমমসলার গুঁড়া ও একটু চিনি দিয়ে নেড়েচেড়ে নিতে হবে। নামানোর আগে ঘি ঢেলে নামাতে হবে।

default-image

কষা খাসির মাংস

উপকরণ: খাসির মাংস ১ কেজি, তেল ২ কাপ, জিরার গুঁড়া ১ টেবিল চামচ, আদাবাটা ১ টেবিল চামচ, জিরাবাটা ১ টেবিল চামচ, ধনেবাটা ১ টেবিল চামচ, পেঁয়াজবাটা ২ টেবিল চামচ, ঘি ২ টেবিল চামচ, পেঁয়াজ ৬টি, জিরার গুঁড়া ২ চা–চামচ, ধনেগুঁড়া ২ চা–চামচ, হলুদগুঁড়া ১ চা–চামচ, মরিচগুঁড়া ১ চা–চামচ ও লবণ স্বাদমতো।

প্রণালি: প্রথমেই খাসির মাংস জিরাবাটা, আদাবাটা, পেঁয়াজবাটা ও ধনেবাটা দিয়ে ভালোভাবে মেরিনেট করে রাখতে হবে। এবার কড়াইয়ে তেল গরম করে পেঁয়াজকুচি বাদামি করে ভেজে নিতে হবে। ভাজা হয়ে এলে আদাবাটা, রসুনবাটা, জিরার গুঁড়া, ধনেগুঁড়া, মরিচের গুঁড়া ও হলুদের গুঁড়ায় জল দিয়ে অনেকক্ষণ কষাতে হবে। এবার মেরিনেট করা মাংসটুকু দিতে হবে। তারপর তিন থেকে চার কাপ জল অল্প অল্প করে মাংসে দিয়ে কষাতে হবে। ২০ থেকে ২৫ মিনিট রান্নার হওয়ার পর ঘি ও স্বাদমতো লবণ দিতে হবে। এবার গরমমসলা বেটে জলে গুলিয়ে মাংসের ওপর দিয়ে দিলেই তৈরি হয়ে যাবে কষা মাংস।

বিজ্ঞাপন
default-image

লেবুপাতায় ইলিশ

উপকরণ: শর্ষের তেল ১ কাপ, আস্ত শর্ষে ১ টেবিল চামচ, শর্ষে ও কাঁচা মরিচবাটা ৩ টেবিল চামচ, ইলিশ মাছ ২ কেজি (লেজ ও মাথা ছাড়া), বাতাবি লেবুর রস ৪ টেবিল চামচ, লেবুপাতা ৪টি, হলুদ ১ টেবিল চামচ ও মরিচের গুঁড়া ১ টেবিল চামচ।

প্রণালি: প্রথমে কড়াইয়ে শর্ষের তেল দিয়ে আস্ত শর্ষের ফোড়ন দিতে হবে। এরপর বাটা মসলা দিয়ে চুলার হালকা আঁচে ভালো করে কষিয়ে নিয়ে ছয় কাপ জল দিতে হবে। পরে বলক উঠলে মাছগুলো দিতে হবে। অন্য চুলায় আরেকটি পাত্রে তেল গরম করে লেবুর রস ও লেবুপাতা দিয়ে অল্প আঁচে ১০ মিনিট রান্না করতে হবে। এবার ইলিশ মাছ আধা সেদ্ধ হয়ে এলে লেবুপাতাসহ লেবুর রস মাছের ওপর ছড়িয়ে দিতে হবে।

মন্তব্য পড়ুন 0