বিজ্ঞাপন

বুকে ব্যথা হলেই কি সেটা হৃদ্‌রোগের লক্ষণ? অতিরিক্ত দুশ্চিন্তা, মানসিক চাপ কি হৃদ্‌রোগের সঙ্গে সম্পর্কিত?—সাব্বির আহমেদ, ঢাকা

বুকে ব্যথা হলেই সেটা হৃদ্‌রোগের লক্ষণ নয়, কিন্তু বয়স ও ব্যথার ধরন বিবেচনা করে হৃদ্‌রোগ কি না, সেটা নিশ্চিত করা উচিত। অতিরিক্ত দুশ্চিন্তা বা মানসিক চাপ হৃদ্‌রোগের সঙ্গে সম্পর্কিত।

মা-বাবা হৃদ্‌রোগে আক্রান্ত হয়ে থাকলে সন্তানের আক্রান্ত হওয়ার আশঙ্কা কতটুকু? হৃদ্‌রোগ থেকে মুক্ত থাকার সাধারণ কিছু জীবনচর্চা বা অভ্যাস সম্পর্কে বলুন।—শিমুল খালেদ, মৌলভীবাজার

মা-বাবার হৃদ্‌রোগ থাকলে সন্তানের ৫০ শতাংশের চেয়ে বেশি হৃদ্‌রোগে আক্রান্তের আশঙ্কা থাকে। হৃদ্‌রোগ থেকে মুক্ত থাকতে নিয়মিত শারীরিক পরিশ্রম করুন, শরীরের ওজন নিয়ন্ত্রণে রাখুন, ফলমূল ও শাকসবজি বেশি খান, লবণ ও চিনি কম খান, চর্বিযুক্ত খাবার পরিহার করুন, উচ্চ রক্তচাপ ও ডায়াবেটিস নিয়ন্ত্রণে রাখুন, অতিরিক্ত মানসিক চাপ পরিহার করুন, তামাক ও তামাকজাত দ্রব্য পরিহার করুন।

পরামর্শ দিয়েছেন— ডা. মো. হাফিজুর রহমান, সহযোগী অধ্যাপক, কার্ডিয়াক সার্জারি বিভাগ, ন্যাশনাল হার্ট ফাউন্ডেশন হাসপাতাল অ্যান্ড রিসার্চ ইনস্টিটিউট, ঢাকা।

আমার বয়স ২০ বছর। ওজন ৫৩ কেজি, উচ্চতা ৫ ফুট ২ ইঞ্চি। ১২ বছর বয়স থেকেই মুখ ও গালের পাশ দিয়ে অনেক লোম। আর আমার প্রচুর ঘাম হয়, বিশেষ করে মুখে। সামান্য গরমেও সারা শরীর ঘেমে–নেয়ে একাকার হয়ে যায়। আমার পিরিয়ড স্বাভাবিক। কী করলে এই সমস্যা থেকে মুক্তি পাব?—নাম ও ঠিকানা প্রকাশে অনিচ্ছুক

পলিসিস্টিক ওভারি সিনড্রোম থাকতে পারে। এতে মুখে লোম গজায়। হরমোন পরীক্ষা আর আলট্রাসনোগ্রাম করলে শনাক্ত করা যাবে। ওজন বাড়তে দেবেন না। খাদ্য নিয়ন্ত্রণ আর নিয়মিত ব্যায়াম করবেন। অনেকের হরমোনের সমস্যা না থাকলেও পারিবারিক কারণে মুখে লোম থাকে। এর জন্য মুখে খাবার আর লাগানোর ওষুধ ব্যবহার করা যায়।

পরামর্শ দিয়েছেন—ডা. ইন্দ্রজিত প্রসাদ, সহযোগী অধ্যাপক, এন্ডোক্রাইনোলজি বিভাগ, ঢাকা মেডিকেল কলেজ।

প্র স্বাস্থ্য থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন