বিশ্বের বিভিন্ন দেশ করোনাভাইরাসের দ্বিতীয় ঢেউ সামাল দিতে রীতিমতো হিমশিম খাচ্ছে। অনেক দেশেই নতুন করে লকডাউন জারি হয়েছে। আক্রান্তের সঙ্গে মৃত মানুষের সংখ্যাও বাড়ছে। বাংলাদেশে করোনার দ্বিতীয় ঢেউ নিয়েও কম আলোচনা হচ্ছে না। তাই করোনা প্রতিরোধে সবাইকে সাধারণ সতর্কতা মেনে চলতেই হবে। যুক্তরাষ্ট্রের রোগ নিয়ন্ত্রণবিষয়ক সংস্থা সেন্টার ফর ডিজিজ কন্ট্রোল অ্যান্ড প্রিভেনশনের (সিডিসি) দেওয়া সতর্কতাগুলো আরেকবার জেনে নিন।

বিজ্ঞাপন

টিকা আসুক বা না আসুক, করোনাভাইরাস প্রতিরোধের সবচেয়ে বড় হাতিয়ার হলো মুখোশ বা মাস্ক। ভালো মানের তিন স্তরের মাস্ক ব্যবহার করোনা সংক্রমণের ঝুঁকি অনেকটাই কমিয়ে আনে। তাই ঘরের বাইরে গেলে অবশ্যই মাস্ক পরুন। বাড়ি না ফেরা পর্যন্ত মাস্ক খুলবেন না। মাস্ক থুতনির নিচে নামিয়ে রাখা চলবে না।

default-image

নানা কাজে বাইরে তো যেতে হচ্ছে, তবু ভিড় এড়িয়ে চলুন। পরস্পরের কাছ থেকে ন্যূনতম ছয় ফুট দূরত্ব বজায় রাখুন। বদ্ধ জায়গায় গাদাগাদি করে অবস্থান না করাই ভালো।

default-image
বিজ্ঞাপন

এখন পর্যন্ত ভাইরাসকে ধ্বংস করতে পারে—এমন পদ্ধতি হচ্ছে সাবান–পানি দিয়ে নিয়মমাফিক বারবার হাত ধোয়া। বাইরে থেকে ফিরে, হাতে নোংরা কিছু লাগলে বা কোনো বস্তু ধরার পর হাত সাবান–পানি দিয়ে অন্তত ২০ সেকেন্ড ধরে পরিষ্কার করুন।

default-image

সাবান–পানি না পেলে হ্যান্ডস্যানিটাইজার ব্যবহার করুন। বাইরে যাওয়ার সময় সঙ্গেই রাখুন ছোট পকেট স্যানিটাইজার।

default-image

পারতপক্ষে নাকে–মুখে হাত লাগাবেন না। লাগাতে হলে তার আগে হাত সাবান–পানি দিয়ে ধুয়ে নিন।

default-image
বিজ্ঞাপন
মন্তব্য করুন