বিজ্ঞাপন

স্ত্রীরোগ

আমার হবু স্ত্রীর রক্তের গ্রুপ এ নেগেটিভ আর আমার ও পজিটিভ। আমার স্ত্রীর সন্তান ধারণে কোনো সমস্যা হবে? হলে কোনো সমাধান আছে কি না?—নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক

অনেক সময় স্ত্রীর রক্তের গ্রুপ নেগেটিভ হলে প্রথম সন্তানের ক্ষেত্রে জটিলতা দেখা না দিলেও পরবর্তী সন্তান নেওয়ার ক্ষেত্রে দেখা দিতে পারে।

প্রথম গর্ভধারণে সাধারণত সমস্যা হওয়ার কথা নয়। তবে কোনো ধরনের সমস্যা দেখা দিলে গর্ভবতী মাকে অবশ্যই নিবিড় পর্যবেক্ষণে রাখতে হবে। অনেক সময় শিশুর জন্মের পরপরই মাকে অ্যান্টি-আরএইচ অ্যান্টিবডি ইনজেকশন দেওয়া হয়। এ ছাড়া সন্তান হওয়ার সময় খেয়াল রাখতে হবে যেন নির্ধারিত তারিখের মধ্যেই জন্ম নেয়।

পরামর্শ দিয়েছেন—অধ্যাপক ডা. মরিয়ম ফারুকী, সিনিয়র কনসালট্যান্ট, গাইনি ও অবস বিভাগ এবং ল্যাবএইড ফার্টিলিটি সেন্টার, ল্যাবএইড স্পেশালাইজড হাসপাতাল।

হরমোন

আমার বয়স ১৬ বছর, উচ্চতা ৪ ফুট ১১ ইঞ্চি। আমার বাবা-মা দুজনই খাটো। আমি নিয়মিত ব্যায়াম করি, তারপরও উচ্চতা বাড়ছে না। এই অবস্থায় আমার করণীয় কী?—নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক

মা–বাবার উচ্চতা কম থাকলে বংশগতভাবেই কারও উচ্চতা কম হতে পারে। ঠিক কতটুকু উচ্চতা প্রত্যাশা করা যায়, তা হিসাব করে বলা যায়। বয়সের সঙ্গে হাড়ের বৃদ্ধি সমন্বিত হচ্ছে কি না, তা এক্স–রে পরীক্ষার মাধ্যমে নির্ণয় করা যায়। সমন্বয়ের অভাব থাকলে একজন হরমোন বিশেষজ্ঞের সঙ্গে দেখা করুন। এ ছাড়া থাইরয়েড হরমোনের সমস্যা, অপুষ্টি মানে ভিটামিনের অভাব ইত্যাদি আছে কি না, তা দেখে নেওয়া উচিত।

পরামর্শ দিয়েছেন—ডা. ইন্দ্রজিত প্রসাদ, সহযোগী অধ্যাপক, এন্ডোক্রাইনোলজি অ্যান্ড মেটাবলিজম, ঢাকা মেডিকেল কলেজ

দন্ত

আমার বয়স ১৯ বছর। আগে একটু জোরে ব্রাশ করতাম। আমার একটা দাঁতের মাড়ি অনেকটা সরে গেছে। অন্যান্য দাঁতের মাড়িও একটু হালকা হয়ে যাচ্ছে। ধূমপান করি না, জর্দা খাই না। তবে ইনহেলার ব্যবহার করি। মাঝেমধ্যে লবণ গরম পানি দিয়ে কুলকুচা করি। কীভাবে ঘরোয়া পদ্ধতিতে মাড়ি মজবুত করতে পারি?—সিয়াম, ময়মনসিংহ

মাড়ি সরে গিয়ে রুট উন্মুক্ত হওয়ার অন্যতম কারণ নিয়মবহির্ভূত দাঁত ব্রাশ পদ্ধতি। এমন অবস্থায় দাঁতকে বড় দেখানোর পাশাপাশি শিরশির বা অতিসংবেদনশীলতা অনুভব হতে পারে, দাঁতের সঙ্গে মাড়ি ও হাড়ের বন্ধন দুর্বল হতে পারে। ফ্লোরাইডযুক্ত টুথপেস্ট দিয়ে দাঁতের গঠন ও অবস্থান অনুযায়ী সঠিক ব্রাশের নিয়ম জেনে দাঁত পরিষ্কার রাখতে হবে। প্রয়োজনে মাড়ির রঙের মতো ফিলিং করিয়ে নেওয়া যেতে পারে।

পরামর্শ দিয়েছেন—ডা. মো. আসাফুজ্জোহা রাজ, দন্ত বিশেষজ্ঞ, ঢাকা।

প্রশ্ন পাঠানোর ঠিকানা

স্বাস্থ্য জিজ্ঞাসা

ই-মেইল: prosha[email protected] ফেসবুক পেজ: fb.com/ProShastho

ডাকযোগে: প্র স্বাস্থ্য, প্রথম আলো, ১৯ কারওয়ান বাজার, ঢাকা-১২১৫

প্র স্বাস্থ্য থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন