বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

শিক্ষার্থীরা যেন চূড়ান্ত বর্ষে উঠে শিক্ষানবিশ হিসেবে কাজ করে অভিজ্ঞতা অর্জন করতে পারেন, সে জন্য তাঁদের সহায়তা করেন সহকারী অধ্যাপক মিজানুর রহমানসহ অন্যান্য শিক্ষকেরা। সাউথইস্টের সিএসইর বিভাগের অধিকাংশ স্নাতক বিভিন্ন সফটওয়্যার প্রতিষ্ঠান বা তথ্যপ্রযুক্তি প্রতিষ্ঠানে কর্মরত আছেন। এ ছাড়া ব্যাংক বা আর্থিক প্রতিষ্ঠানে কাজ করছেন কেউ কেউ। উদ্যোক্তা হিসেবেও আত্মপ্রকাশ করেছেন অনেক শিক্ষার্থী।

উল্লেখযোগ্য শিক্ষকের মধ্যে আছেন অধ্যাপক সায়ীদ সালাম ও শাহরিয়ার মনজুর। এ বিভাগের অধিকাংশ শিক্ষকের ইন্ডাস্ট্রিতে কাজ করার অভিজ্ঞতা আছে। ফলে তাঁরা ছাত্রছাত্রীদের সঙ্গে তাঁদের অভিজ্ঞতা বিনিময় করতে পারেন। সাউথইস্ট ইউনিভার্সিটির সিএসই বিভাগ আইইবি ও বিএইটিই স্বীকৃত।

সফটওয়্যার প্রতিষ্ঠান এসএসএল ওয়্যারলেসের ডেপুটি সিটিও মো. ইফতেখার আলম সাউথইস্ট ইউনিভার্সিটির সাবেক শিক্ষার্থী। তিনি বলেন, ‘আমি যখন সাউথইস্টে ভর্তি হই, তখন অনেকগুলো অনিশ্চয়তা ছিল আমার জীবনে। কিন্তু এখানে কাটানো সময় আমাকে আত্মবিশ্বাসী করেছে। এই ক্যাম্পাসে এসেই সিএসইর ছাত্র হিসেবে আমি প্রথম প্রোগ্রামিং প্রতিযোগিতায় অংশ নিয়েছি। প্রবলেম সলভিংয়ের এই দক্ষতা পরবর্তী জীবনে আমাকে সহায়তা করেছে।’

বিভাগীয় চেয়ারম্যান শাহরিয়ার মনজুর বলেন, ‘সাউথইস্ট ইউনিভার্সিটির সিএসই বিভাগের শিক্ষকেরা যোগ্যতাসম্পন্ন গ্র্যাজুয়েট তৈরিতে প্রতিশ্রুতিবদ্ধ। এ বিভাগের গ্র্যাজুয়েটরা যেমন নামকরা আইটি প্রতিষ্ঠানে কাজ করছে, তেমনি বিশ্বের স্বনামধন্য বিশ্ববিদ্যালয়ে পড়ালেখা বা শিক্ষকতাও করছে। এই করোনাকালে শিক্ষক এবং শিক্ষার্থীদের মধ্যে ডিজিটাল মাধ্যমে সার্বক্ষণিক যোগাযোগ বিভাগের মূল চালিকাশক্তি।’

খন্দকার শাহাদাৎ হোসেন বর্তমানে সিএসই বিভাগের ছাত্র। তিনি জানালেন তাঁর অনুভূতি, ‘সাউথইস্ট ইউনিভার্সিটির সিএসই বিভাগে ভর্তি হওয়ার সিদ্ধান্ত যে ভুল ছিল না, তা আমি এখন মনেপ্রাণে উপলব্ধি করি। আমাদের শিক্ষকেরা দেশ-বিদেশের বিশ্ববিদ্যালয়ে পড়েছেন, অভিজ্ঞতা অর্জন করেছেন। আধুনিক প্রযুক্তির সঙ্গে সামঞ্জস্য রেখেই তাঁরা আমাদের পড়ান। তাই কর্মক্ষেত্রের জন্য প্রস্তুত হওয়াও সহজ হয়।’

সাউথইস্টের সিএসই বিভাগে চার বছরের স্নাতক কোর্সের মোট খরচ ৬ লাখ ১৯ হাজার ৫০০ টাকা। তবে উচ্চমাধ্যমিক পর্যায়ে ভালো ফলের ওপর ভিত্তি করে নানা ধরনের বৃত্তি বা ওয়েভারের সুযোগ আছে। বিস্তারিত জানা যাবে বিশ্ববিদ্যালয়ের ওয়েবসাইটে

প্র স্বপ্ন নিয়ে থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন