default-image

হাওরের দেশ সুনামগঞ্জের ছেলে আবু সাদাত স্কুলে পড়ার সময় থেকেই শুরু করেন সাহিত্যচর্চা। বন্ধুদের সঙ্গে নিয়ে বের করতেন হাতে লেখা সাহিত্য পত্রিকা জলোচ্ছ্বাস। স্কুল-কলেজের গণ্ডি পেরিয়ে বাংলাদেশ প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তি হয়ে শুরু করেন ছোট কাগজ নৈমিষ। পুরকৌশল শেষ বর্ষের শিক্ষার্থী সাদাতের সাহিত্যচর্চা আরও ডালপালা মেলেছে বুয়েট সাহিত্য সংসদের উদ্যমে।

‘কেউ বলতে পারেন, প্রকৌশলীদের সঙ্গে সাহিত্য বেমানান মনে হয়। আমাদের সংখ্যাটা হয়তো কম। কিন্তু কিছু শিক্ষার্থী আছেন, যাঁরা মন থেকেই সাহিত্য চর্চা করেন। অনেকে হয়তো নীরবে-নিভৃতে থাকেন; তাঁরাও আমাদের কার্যক্রমে আগ্রহী হচ্ছেন।’ বুয়েট সাহিত্য সংসদের সভাপতি আবু সাদাত এভাবেই বলছিলেন হবু প্রকৌশলীদের সাহিত্যপ্রেমের কথা।

বিজ্ঞাপন

খুব বেশি প্রচারণা নেই। তবে কর্মকাণ্ড চলছে জোরেশোরেই। একের পর এক সৃজনশীল কর্মসূচি বাস্তবায়ন করছে ‘বুয়েট সাহিত্য সংসদ’। শুধু এই করোনাকালেই অন্তত পাঁচটি বড় আয়োজন করেছে সংগঠনটি। এর মধ্যে বুয়েট শিক্ষার্থী আবরার ফাহাদের স্মরণে ‘পাঞ্জেরি’ নামের প্রকাশনাটি হৃদয় ছুঁয়েছে শিক্ষক-শিক্ষার্থীদের। পাঞ্জেরিতে আবরার ফাহাদকে নিয়ে লিখেছেন তাঁর বন্ধুরা।

অন্যদিকে সদ্য বিদায়ী বছরের ৯ থেকে ১৩ ডিসেম্বর বুয়েট সাহিত্য সংসদ আয়োজিত ‘বুয়েট লিট ফেস্ট’ অনুষ্ঠিত হলো মহাসমারোহে। এর আগেই সাহিত্য ও ডিজাইন প্রতিযোগিতা ‘হরবোলা’ অনুষ্ঠিত হয়। ছোটগল্প, প্রবন্ধ, বৈজ্ঞানিক কল্পকাহিনি, কবিতা, বই/চলচ্চিত্র পর্যালোচনা, ভ্রমণকাহিনি নিয়ে সারা দেশের ৩০টি কলেজ এবং বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা অংশ নেন উৎসবে। সবই চলে অনলাইনে।

পাঁচ দিনব্যাপী এই উৎসব আলোকিত করেছেন অনেকেই। ফেসবুক পেজের লাইভে বুয়েটের উপাচার্য সত্য প্রসাদ মজুমদারসহ বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষের সঙ্গে অংশ নেন কথাসাহিত্যিক আনিসুল হক। সংগীতের চমক নিয়ে চমকে দিয়েছিলেন বুয়েটের প্রাক্তন শিক্ষার্থী চমক হাসান। মজা করে গণিত শেখান বলে চমক অনলাইনের দুনিয়ায় বেশ জনপ্রিয়। এ ছাড়া লেখক সুহান রিজওয়ান, পশ্চিমবঙ্গের লেখক তপধীর ভট্টাচার্যের সঙ্গে ছিল বুয়েটেরই বাউল গানের দল ‘পিঞ্জিরার সুর’। পুরো আয়োজনে বিজয়ী ১০ জনকে পুরস্কারের বই পাঠানো হয়েছে কুরিয়ারে।

লিট ফেস্টে কবিতা পাঠিয়েছিলেন প্রথম বর্ষের শিক্ষার্থী আফিয়া সিদ্দিকা। পঞ্চম হয়েছেন তিনি। পছন্দের বই পুরস্কার পেয়ে দারুণ খুশি আফিয়া। পুরকৌশলের এই শিক্ষার্থী বলছিলেন, ‘বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তি হয়েই এমন প্ল্যাটফর্মে কবিতার জন্য পুরস্কৃত হওয়া একই সঙ্গে আনন্দ এবং বিস্ময়ের। করোনার বন্দী সময়ে এই প্রাপ্তি যেন মুক্তি দিয়েছে।’

এর আগেই অনুষ্ঠিত হয় ‘করোনার দিনগুলোতে সাহিত্য’। ৬ পর্বের ফেসবুক লাইভ আয়োজনে কথাসাহিত্যিক শাহাদুজ্জামান, জাভেদ হুসেন, লেখক সঞ্জয় দে, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সহযোগী অধ্যাপক মোহাম্মদ আজম, লেখক সুহান রিজওয়ান করোনাকালের সাহিত্যচর্চার অভিজ্ঞতা বর্ণনা করেন বুয়েট সাহিত্য সংসদের সদস্যদের সঙ্গে। বরেণ্য কথাসাহিত্যিক হুমায়ূন আহমেদকে নিয়ে স্মৃতিচারণা করেন নুহাশ হ‌ুমায়ূন।

বুয়েট সাহিত্য সংসদের এত সব আয়োজনে সম্পৃক্ত হচ্ছেন দেশসেরা প্রতিষ্ঠানের শিক্ষার্থীরা। সংগঠনটিও অসাম্প্রদায়িক মানুষ গড়ায় ভূমিকা রাখতে চায়।

বিজ্ঞাপন
প্র স্বপ্ন নিয়ে থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন