default-image

আমি যুক্তরাষ্ট্রের বিখ্যাত চিত্রশিল্পী বব রুজেনবার্গের একটি গল্পের প্রেমে পড়েছি। গল্পটি এ রকম: তরুণ বয়সে রুজেনবার্গ একবার তাঁর আদর্শিক গুরু ভিলিয়েম ডি কুনিংয়ের সঙ্গে দেখা করতে গিয়েছিলেন। তিনি ভীষণ নার্ভাস বোধ করছিলেন। তবে তা এ জন্য নয় যে তিনি বিখ্যাত এই আঁকিয়ের সঙ্গে দেখা করতে গেছেন। কারণটা হলো, তিনি গুরুর আঁকা একটা ছবি চাইতে গিয়েছিলেন।

ভিলিয়েম ডি কুনিং জানতেন, রুজেনবার্গ সম্প্রতি তাঁর চিত্রকর্ম নিয়ে পরীক্ষা-নিরীক্ষা শুরু করেছেন। সে সময় রুজেনবার্গ একেকটা ছবি আঁকতেন আর মুছে ফেলতেন। কিন্তু এটাই তাঁর কাছে যথেষ্ট মনে হচ্ছিল না। তিনি ঠিক করেন, এবার তাঁর গুরুর আঁকা একটা ছবি মুছে ফেলবেন! তরুণ রুজেনবার্গকে বিস্মিত করে ডি কুনিং রাজি হলেন, তবে যথেষ্ট সময় নিলেন। নিজের স্টুডিও ঘুরে ঘুরে তিনি তাঁর পছন্দের একটি ছবি খুঁজছিলেন, এমন এক ছবি, যেটি মুছে ফেলা খুব কঠিন হবে। অবশেষে একটা ছবি তিনি রুজেনবার্গকে দিলেন। বব রুজেনবার্গ জানান, ছবিটা মুছতে তাঁর প্রায় দুই মাস সময় লেগেছিল। পরে জ্যাসপার জোন্স (যুক্তরাষ্ট্রের আরেক আঁকিয়ে) ছবিটা বাঁধিয়ে নাম দিয়েছিলেন, ‘বব রুজেনবার্গের হাতে মুছে ফেলা ডি কুনিংয়ের চিত্রকর্ম’। এই কাজটি করতে গিয়ে রুজেনবার্গ নিজেই নতুন এক শিল্পকর্মের জন্ম দিয়েছিলেন।

বিজ্ঞাপন

গল্পটা আমার ভীষণ পছন্দের। কারণ, ভিলিয়েম ডি কুনিং এটা মেনে নেওয়ার মতো নম্র ছিলেন যে পরের প্রজন্মের জন্য পথ করে দেওয়াই আমাদের জন্য সর্বোত্তম। যে আমাকে মুছে ফেলবে, তাঁকে স্বাগত জানানোই আমার কাজ! আমি বহুবার একটা প্রশ্নের সম্মুখীন হয়েছি। ‘তুমি কেন তোমার ব্যবসাটা বিক্রি করে দিচ্ছ না? খুব বেশি আয় তো হচ্ছে না। এটা স্রেফ খামখেয়ালি। তুমি বরং এই সময়টা নৌকায় করে ঘুরতে পারতে। নৌকায় ঘুরতে সবাই ভালোবাসে। তোমার সমস্যাটা কোথায়?’ এখন আমি জানি, যখন লক্ষ্য থেকে সরানোর জন্য কেউ পেছনে লাগবে, তখন বুঝবে—তুমি ঠিক পথেই আছ। তুমি শেষ পর্যন্ত হাল ছেড়ে দাও বা না দাও, আসল কথা হলো—তুমি কিছু শিখছ। আমরা যখন আমাদের কোম্পানিটি বিক্রি করতে চাইনি, তখন মানুষ আমাদের পাগল বলেছে, অহংকারী বলেছে। আমাদের প্রজন্মের অনেককে বোঝাতে গিয়েই যে শব্দগুলো বারবার ব্যবহৃত হয়েছে। আমি বোঝাতে চাইছি—জীবনের সবচেয়ে মূল্যবান শিক্ষাটা অর্জন করো তোমার নিজের জীবন থেকেই।

বব রুজেনবার্গের হাতে মুছে ফেলা ডি কুনিংয়ের চিত্রকর্মের মজার দিকটি হলো, সেটি বিক্রির জন্য নয়, ছবিটি এখন সানফ্রান্সিসকোর এক জাদুঘরে নিরাপদে শোভা পাচ্ছে। চিত্রকর্মটি ভীষণ মূল্যবান, কিন্তু এর কোনো বিক্রয়মূল্য নেই। তোমার স্বপ্নকে অনুসরণ করতে যা কিছু দরকার, তার সবটা ইতিমধ্যেই তোমার মধ্যে আছে। নিজের ওপর বিশ্বাস রাখো। বিশ্বাস রাখো সেই মানুষটার ওপর, যে মানুষটা তুমি হতে চাও।

প্র স্বপ্ন নিয়ে থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন