বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

ইইই বিভাগে মূলত পাওয়ার, ইলেকট্রনিকস, কমিউনিকেশন, এমবেডেড সিস্টেম ও রোবটিকস, ভিএলএসআই, বায়োমেডিক্যাল প্রকৌশল, নবায়নযোগ্য জ্বালানি, মোবাইল সেলুলার, কম্পিউটার নেটওয়ার্কিংসহ নানা বিষয়ে যুগোপযোগী কোর্স পড়ানো হয়। ‘আউটকাম বেজড এডুকেশন’ (ওবিই) পদ্ধতির সঙ্গে সামঞ্জস্য রেখে ছাত্রছাত্রীদের আধুনিক শিক্ষায় শিক্ষিত করার প্রচেষ্টায় সাজানো হয়েছে পুরো পাঠ্যক্রম। শিক্ষকেরা জানালেন, চতুর্থ শিল্পবিপ্লবের মূলমন্ত্র—‘অটোমেশন’ কে সামনে রেখে বিভাগে ছাত্রছাত্রীদের হাতে-কলমে কাজ শেখানোর ওপর গুরুত্ব দেওয়া হয়। এই লক্ষ্যে বিভাগটিতে রয়েছে হার্ডওয়্যার ও সফটওয়্যার সংশ্লিষ্ট ১৩টি ল্যাব। হার্ডওয়্যার নির্ভর পাওয়ার, কমিউনিকেশন ও অন্যান্য ল্যাব ছাড়াও রয়েছে কেডেন্স সংযুক্ত ভিএলএসআই ল্যাব। চতুর্থ বর্ষের শিক্ষার্থীদের জন্য রয়েছে আলাদা গবেষণাগার।

বিভাগের ‘সেন্টার ফর এনার্জি রিসার্চ’ প্রায় এক যুগ ধরে নবায়নযোগ্য জ্বালানি নিয়ে গবেষণা করছে। দেশের কয়েকটি বড় সৌরবিদ্যুৎ কেন্দ্রেও গবেষণার সুফল লক্ষণীয়।

ইইই বিভাগের জ্যেষ্ঠ শিক্ষক অধ্যাপক ড. এম রিজওয়ান খানের পরিচালনায় ইনস্টিটিউট ফর অ্যাডভান্স রিসার্চ শিক্ষকদের গবেষণায় উদ্বুদ্ধ করতে কাজ করছে। ইউনাইটেড গ্রুপ এ ক্ষেত্রে অগ্রণী ভূমিকা পালন করছে। গবেষণাকে প্রাধান্য দিয়ে ইইই বিভাগ নবায়নযোগ্য জ্বালানির ওপর আইসিডিআরইটি নামে একটি সম্মেলন আয়োজন করে।

ইলেকট্রিক্যাল ইলেকট্রনিকস ক্লাব, রোবটিকস ক্লাবসহ ক্যাম্পাসের কয়েকটি সংগঠন সারা বছর জুড়ে বিভিন্ন কর্মশালা, প্রশিক্ষণ ও প্রতিযোগিতা আয়োজন করে। বোর্ড অব অ্যাক্রেডিটেশন ফর ইঞ্জিনিয়ারিং অ্যান্ড টেকনিক্যাল এডুকেশনের স্বীকৃতিপ্রাপ্ত এই বিভাগে যুক্ত আছেন যুক্তরাষ্ট্র, যুক্তরাজ্য, কানাডা, জাপানসহ নানা দেশ থেকে পিএইচডি সম্পন্ন করা শিক্ষক।

ইউআইইউর ইইই বিভাগ থেকে পাস করে শিক্ষার্থীদের অনেকেই সরকারি-বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়, বিদ্যুৎকেন্দ্র, ভিএলএসআই শিল্প ও অন্যান্য প্রতিষ্ঠানে কাজ করছেন। শিক্ষার্থীদের একটি বড় অংশ বৃত্তি নিয়ে বিভিন্ন দেশে উচ্চশিক্ষা নিচ্ছেন।

ইউআইইউর ইইই বিভাগে পড়তে মোট খরচ হয় ৭ লাখ ৭৫ হাজার টাকা। তবে নানা ধরনের বৃত্তি ও টিউশন ফি মওকুফের সুবিধা রয়েছে। বিশেষ সুবিধা রয়েছে ডিপ্লোমা প্রকৌশলীদের জন্য। বর্তমানে ‘ফল ২০২১’ সেমিস্টারের ভর্তি প্রক্রিয়া চলছে। ১ অক্টোবর পর্যন্ত ভর্তি কার্যক্রম চলবে। বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরি কমিশনের নির্দেশনা অনুযায়ী ভর্তি পরীক্ষা নেয় ইউআইইউ কর্তৃপক্ষ। তবে করোনা মহামারির কারণে ভর্তি পরীক্ষার বদলে এসএসসি ও এইচএসসি পরীক্ষার ফলাফলের ভিত্তিতে শিক্ষার্থী নির্বাচন করা হচ্ছে।

মাধ্যমিক ও উচ্চমাধ্যমিক পরীক্ষায় আলাদা আলাদাভাবে ন্যূনতম ২.৫ সিজিপিএ অর্জনকারী শিক্ষার্থীরা স্নাতক পর্যায়ের ভর্তি ফরম সংগ্রহ করতে পারেন। উচ্চমাধ্যমিক পরীক্ষায় জিপিএ ৫ ও ইংরেজি মাধ্যমের ক্ষেত্রে ‘ও-লেভেলে’ চারটি এ পাওয়া ছাত্রছাত্রীরা সরাসরি ভর্তি হতে পারেন। বিস্তারিত জানা যাবে ইইই বিভাগের ওয়েবসাইটে

প্র স্বপ্ন নিয়ে থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন