default-image

আমি বেড়ে উঠেছি খুব গরিব একটা পরিবারে। অস্ট্রিয়ার একটি পুরোনো ভবনে ছিল আমাদের বসবাস। সেই ভবন দুই শ বছরেরও বেশি পুরোনো। সেখানে ছিল না কোনো টয়লেট, পানি। দূরের একটি কুয়া থেকে পানি তুলতে হতো। বালতি ভরে পানি বহন করে আনতাম আমরা। আমাদের মতো অনেক পরিবারের অবস্থাই ছিল করুণ। আমার তখন কখনোই নিজেকে গরিব মনে হয়নি।

আমাদের চারপাশে কৃষকেরা বাস করতেন, যাঁরা খুব কম অর্থের মালিক ছিলেন। সবার জীবন ছিল একই রকমের, যে কারণে আমার কখনোই বৈষম্যের কথা মনে হয়নি। কৃষক আর শ্রমিকেরা অনেক কষ্ট করতেন, কিন্তু আয় হতো কম। আমার বাবা ছিলেন পুলিশ কর্মকর্তা। তাঁর আয়ও খুব বেশি ছিল না। সবাই একইভাবে বসবাস করত, সব বাচ্চারা একই স্কুল যেত। সবই যেন এক নৌকায় চড়তাম আমরা। সেই পরিবেশ থেকেই আমি নিজের ওপর বিশ্বাস করতে শিখি। আমি বিশ্বাস করি, আপনার যদি নির্দিষ্ট লক্ষ্য স্থির থাকে, আপনি যেখানে যেতে চান, যা হতে চান তা হওয়া সহজ। লক্ষ্য স্থির থাকলে আপনি জানেন, কেন দিনে পাঁচ ঘণ্টা প্রশিক্ষণ প্রয়োজন। লক্ষ্য ঠিক জানা থাকলে আপনি নিজের সহ্য শক্তিকে ছাপিয়ে যাওয়ার কারণ সম্পর্কে জানবেন। আপনার কেন পরিশ্রম করতে হবে, কেন নিয়মের মধ্যে চলবে হবে, তা ঠিক করে দেয় স্থির লক্ষ্য। আমার লক্ষ্য আমি স্পষ্ট দেখতে পাই, যা আমাকে সব সময় অনুপ্রাণিত করে।

বিনয়ী হতে হবে

সাধারণ মানুষেরা ওয়ারেন বাফেট, বিল গেটস আর এলন মাস্কদের পছন্দ করে। সফল হিসেবে তাঁদের কথা সবাই শুনতে চায়। বিশ্বব্যাপী তারা পরিচিত। আর অন্যদিকে নেলসন ম্যান্ডেলার মতো ব্যক্তিত্বর কথাও আপনাকে বলতেই হবে। তিনি পৃথিবীকে দেখিয়েছেন, কীভাবে ক্ষমতা ও ধৈর্য প্রভাব তৈরি করে। তিনি দক্ষিণ আফ্রিকায় যে কাজ করেছেন তা শুধু আফ্রিকার জন্য না, সারা পৃথিবীর জন্য পথ তৈরি করেছে। দূর থেকে সবাই তাঁর কাজে অনুপ্রাণিত হয়। তিনি বিশাল ব্যক্তিত্ব। আমার সৌভাগ্য হয়েছিল তাঁকে দেখার, তাঁর সঙ্গে কাজ করার। আমি তাঁর সঙ্গে সময় কাটিয়েছিলাম। তাঁর ছিল অবিশ্বাস্য নেতৃত্বের গুণাবলি আর স্থির লক্ষ্য। তিনি ছিলেন ভীষণ বিনয়ী।

বিজ্ঞাপন

ক্রীড়া ক্ষেত্রে আমরা মোহাম্মদ আলীর কথা বলতে পারি। শুধু খেলাধুলায় সাফল্যের জন্য নয়, উদারতার জন্যও তিনি মহান। তিনি তাঁর সবকিছুই দান করে গেছেন। ছিলেন অসামান্য এক ক্রীড়াবিদ। তাঁদের মতো ব্যক্তিত্বের প্রভাব অনেক বেশি। আমি ইতিহাস থেকে রোমান সম্রাট সিনসিনাটাসের কথা বলতে চাই। আমেরিকার সিনসিনাটি শহর তাঁর নামে নামকরণ করা হয়। জর্জ ওয়াশিংটনের আদর্শ ছিলেন তিনি। সম্রাট সিনসিনাটাস ছিলেন মহান। তিনি স্বেচ্ছায় রাজ্য শাসনের সিংহাসন ছেড়ে দিয়ে রোমের শত্রুদের বিরুদ্ধে লড়াই করতে মাঠে নেমেছিলেন। তিনি কৃষি কাজ করতেন। রোমে শত্রুসৈন্যরা আক্রমণ করলে তিনি রোমানদের নেতৃত্ব দেওয়ার দায়িত্ব নেন আবার। যুদ্ধে জয় শেষে শাসনকাজে যুক্ত না হয়ে তিনি আবারও কৃষিকাজে ফিরে আসেন। শুধু একবার নয়, দুইবার তিনি এমনটি করেছিলেন। রোমের দুর্যোগে তিনি দারুণ নেতৃত্ব দেখিয়েছেন। সাধারণ মানুষকে এক করার দারুণ ক্ষমতা ছিল তাঁর। তিনি জানতেন কী ছেড়ে দিতে হবে, কীভাবে নিজের কাছে সৎ থাকতে হবে। কখনোই নিজেকে নিয়ে অহংবোধ যেন তৈরি না হয় সেদিকে খেয়াল রাখতে হবে।

নেতৃত্ব শিখতে হয়

আপনি যদি নেতা হতে চান তাহলে আপনাকে মানুষ হিসেবে চিন্তা করা শিখতে হবে। নারী বা পুরুষ হিসেবে এককভাবে চিন্তা করা যাবে না। যেখানে যেতে চান, যা করতে চান, যা আপনার লক্ষ্য তা দৃঢ়তার সঙ্গে মনের মধ্যে এঁকে ফেলুন। আপনি নিজে উজ্জীবিত হলে অন্যদেরও উজ্জীবিত করতে পারবেন, আপনি সামনে স্পষ্ট দেখতে পেলে আপনার পেছনে অসংখ্য মানুষ আপনাকে অনুসরণ করবে। নারী বা পুরুষ হিসেবে নিজেকে আটকে রাখা যাবে না। ইন্দিরা গান্ধী ব্যক্তি হিসেবে ভারতকে নেতৃত্ব দিয়েছেন, নারী হিসেবে নন। মার্গারেট থ্যাচার ইংল্যান্ডকে নেতৃত্ব দিয়েছেন নিজের ব্যক্তিত্ব গুণে।

আপনি যা-ই করুন না কেন। হয়তো গানের কোনো প্রতিযোগিতায় অংশ নিচ্ছেন, কিংবা সিনেমায় অভিনয় করবেন, বডিবিল্ডিং প্রতিযোগিতাতেও অংশগ্রহণ করতে পারেন, কিংবা কোনো প্রতিষ্ঠান পরিচালনা করবেন, সব ক্ষেত্রেই লেগে থাকা হচ্ছে মূল কথা। কতটা অনুশীলন করছেন, কতবার অনুশীলন করছেন, কতটা সময় ধরে অনুশীলন করছেন-এসব খুবই গুরুত্বপূর্ণ। আমি চর্চা ও অনুশীলনে ভীষণ বিশ্বাসী। চর্চা করতে হবে, বারবার অনুশীলনের বিকল্প কোনো কিছু নেই। আপনি যতই অনুশীলন করবেন ততই আপনার ভয় কেটে যাবে। জার্মান ভাষায় বলা হয়, ‘উবুং ম্যাশট দেন মেইস্টার’, যার অর্থ যতই অনুশীলন করবেন ততই আপনি কোনো বিষয় বেশি আয়ত্ত করতে পারবেন। এটাই কিন্তু বাস্তবতা।

প্র স্বপ্ন নিয়ে থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন