default-image

আমাদের নীল গ্রহ পৃথিবীর জন্ম হয়েছিল আজ থেকে সাড়ে চার শ কোটি বছর আগে। আর সেদিনই পৃথিবীর সুন্দরতম দিন ছিল, যেদিন এই গ্রহে প্রথম ফুলটি ফুটেছিল। যেসব উদ্ভিদবিজ্ঞানী উদ্ভিদের ফসিল নিয়ে গবেষণা করেন, তাঁরা জানিয়েছেন যে পৃথিবীর প্রথম ফুলটি ফুটেছিল আজ থেকে ১৭ কোটি ৪০ লাখ বছর আগে। এ পর্যন্ত জানা সবচেয়ে প্রাচীন সপুষ্পক উদ্ভিদ প্রজাতিটির নামকরণ করা হয়েছে নানজিঙ্গানথাস ডেন্ড্রোস্টাইলা (Nanjinganthus Dendrostyla)।

default-image

ফসিল অর্থাৎ জীবাশ্ম বিশেষজ্ঞ উদ্ভিদবিজ্ঞানীদের একটি দল পূর্ব চীনের নানজিং শহরের অদূরে জুরাসিক শিলার আস্তরণ থেকে ২০০ সপুষ্পক উদ্ভিদের জীবাশ্ম সংগ্রহ করেছেন। সেখান থেকে অপরূপ ফুলসহ প্রায় অবিকৃত এমন ফসিল উদ্ভিদটি খুঁজে পেয়ে তাঁরা যারপরনাই বিস্মিত।

বিজ্ঞাপন
default-image

পৃথিবীর বুকে প্রথম জীবনের উন্মেষ ঘটেছিল প্রায় তিন শ সত্তর কোটি বছর আগে। সেসব জীবন ছিল একটি অবিন্যস্ত এবং সরল কোষের মধ্যেই সীমাবদ্ধ। ওই আদি অণুজীবকে উদ্ভিদ আর প্রাণীতে আলাদা করা যায় না। জীবাশ্ম বিশেষজ্ঞ উদ্ভিদবিজ্ঞানীদের মতে, পৃথিবীর বুকে সরল কাঠামোর উদ্ভিদ দেখা দিতে শুরু করে আজ থেকে প্রায় ৪৭ কোটি বছর আগে। তখন থেকেই এই গ্রহের বুকে দ্রুত প্রাণপ্রাচুর্যের উন্মেষ ঘটতে শুরু করে। সে এক দীপ্তি বিচ্ছুরিত সৌন্দর্যময় অধ্যায়।

অতি বৃহৎ প্রাণী ডাইনোসরের আগমন ঘটেছিল ২৩ কোটি বছর আগে। তত দিনে প্রচুর প্রাচীন উদ্ভিদে পৃথিবীর অনেকখানি অংশ ছেয়ে গেছে। তবে তাতে ফুলের কোনো হদিস পাওয়া যায় না—উদ্ভিদগুলো ছিল অপুষ্পক। সপুষ্পক উদ্ভিদ এসেছিল ডাইনোসরদের অনেক পরে।

সে হিসাবে আধুনিক মানুষের উদ্ভব খুব বেশি দিনের নয়, মাত্র ৩ লাখ বছরের খানিকটা বেশি। অর্থাৎ মানুষের আবির্ভাব ঘটেছিল ফুলের পৃথিবীতে, ফুলেল অভ্যর্থনায়। সেই থেকে আজ অবধি মানুষের ফুল নিয়ে বিস্ময় কাটেনি; আজও ফুলের প্রতি অপ্রতিরোধ্য আকর্ষণ অনুভব করে মানুষ।

default-image

পৃথিবীতে প্রথম ফুলটি যেদিন ফুটেছিল, সেই দিনটি ছিল সত্যিই পৃথিবীর সবচেয়ে সুন্দর দিন। তবে দিনটিকে আরও মহিমাময় করেছে যখন প্রথম কোনো মানব প্রথম কোনো মানবীকে প্রেম নিবেদনে একটি কিংবা একগুচ্ছ ফুল উপহার দিয়েছিল। ভালোবাসা, প্রেম থেকে ফুলকে আলাদা করা যায় না। আসলে ভালোবাসার দিনটির শুরু সেদিন থেকেই।

বিজ্ঞানীরা সে কথাই আমাদের জানিয়েছেন। কোটি কোটি বছর পাড়ি দিয়ে উদ্ভিদসহ ফুলটি শিলার বুকে নিজেকে ধরে রেখে পৌঁছে গেছে মানুষের কাছে। এ যেন ভবিষ্যৎ মানুষের জন্য কালের শিলালিপিতে লিখে রাখা ভালোবাসা-প্রেমের জন্মকাহিনি, এক অনন্য ইতিহাস। পাথরের বুকে খোদাই করা প্রকৃতির পুষ্পিত প্রেমের স্পন্দন, পৃথিবীর প্রথম ফুল এবং প্রেমের জন্মদিন।

সূত্র: জার্নাল ইলাইফ

একটু থামুন থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন