বিজ্ঞাপন

বাণিজ্য, বিজ্ঞান এবং পরিবহনবিষয়ক সিনেট কমিটির প্রধান রজার উইকার স্বাগত ভাষণের শুরুতেই ভুলটা করেন। এরপর সিনেটর এমি ক্লোবুশার দ্বিতীয় চেষ্টায় ঠিক উচ্চারণ করলেও সিনেটর মারিয়া ক্যান্টওয়েল, মার্শা ব্ল্যাকবার্ন এবং মাইক লি ভুল উচ্চারণ অর্থাৎ ‘পিক-আই’তে ফিরে যান।

সিনেটরদের এমন ভুল উচ্চারণ হয়তো উপেক্ষা করা যেত। কিন্তু শুনানিতে যে তিনজনকে প্রশ্ন করা হয়েছে, তাঁদের মধ্যে কেবল পিচাই অভিবাসী, কেবল তিনিই শ্বেতাঙ্গ নন। তিনি বেড়ে উঠেছেন ভারতের চেন্নাইয়ে, এখন ভারতীয়-আমেরিকান।

জাকারবার্গ ও ডরসির নামের উচ্চারণে সিনেটররা ভুল করেননি। যদিও সিনেটর রন জনসন একবার ‘মি. জাকারম্যান’ বলে সঙ্গে সঙ্গে নিজেকে সংশোধন করে নেন। পিচাইয়ের বেলায় অন্তত সেই সৌজন্যটুকুও দেখাতে পারতেন।

default-image

সিনেটররা কিন্তু এর আগে কঠিন সব নামের উচ্চারণ ঠিকঠাক করেছেন। বাজফিড নিউজের এক প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, ২০১১ সালে সিনেটর জন স্প্র্যাটের মুখ থেকে সাবলীলভাবে বেরিয়ে এসেছে পিটার অরজ্যাগ (Orszag)। গত মাসে শুনানিতে অস্ট্যান গুলসবির (Goolsbee) নাম উচ্চারণে কেউ ভুল করেননি। ২০০৯ সালে এরিক শিনসেকি (Shinseki), গত বছর ড্যান ব্রুয়েট (Brouillette) কিংবা স্টিভেন মনুশিনের (Mnuchin) নামও কারও কাছে কঠিন মনে হয়নি। আর মোটামুটি সবাই একযোগে ভুল করলেন কিনা ‘পিচাই’ ডাকতে।

এ নিয়ে মোট তিনবার মার্কিন কংগ্রেসে শুনানির মুখোমুখি হলেন সুন্দর পিচাই। সিনেটররা চাইলে শুনানির আগে তাঁর নাম উচ্চারণের অনুশীলন করে নিতে পারতেন। বিশেষ করে সে ‘পিক-আই’ যখন ২০০৮ সাল থেকে এ পর্যন্ত সিনেট সদস্য কিংবা তাঁদের দলের নির্বাচন তহবিলে ৯৩ হাজার ডলার দান করেছেন।

ওয়াশিংটন পোস্টের ভিডিওতে দেখুন

একটু থামুন থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন