গর্ভাবস্থায় উড়োজাহাজে চড়লে নানা ধরনের ঝুঁকি বাড়তে পারে। তবে এর বেশির ভাগই তেমন গুরুতর কিছু নয়। যেমন: বিমানের ভেতরে বাতাসের চাপের তারতম্যে কান ও নাকের সমস্যা, বমি-বমি ভাব, পায়ে পানি আসা ইত্যাদি।
তবে অনেকক্ষণ এক জায়গায় বসে থাকলে তাঁদের ডিপ ভেইন থ্রম্বোসিস বা পায়ের শিরায় সমস্যা হতে পারে। এ জন্য তাঁদের বিমানের ভেতরেই বারবার উঠে দাঁড়িয়ে হাঁটাহাঁটি করতে হবে বা ব্যায়াম করতে হবে এবং প্রচুর পানি পান করতে হবে। আকাশযানের অভ্যন্তরীণ তেজস্ক্রিয়তা তেমন বড় ধরনের কোনো ঝুঁকি বয়ে আনে না বলেও সম্প্রতি গবেষকেরা জানিয়েছেন।
সবকিছু বিবেচনা করে সম্প্রতি রয়েল কলেজ অব অবস্টেট্রিকস অ্যান্ড গাইনোকলজি নির্দেশনা দিয়েছে যে ঝুঁকিহীন গর্ভাবস্থায় ৩৭ সপ্তাহ পর্যন্ত এবং যমজ শিশু ধারণ করলে ৩২ সপ্তাহ পর্যন্ত একজন নারী নিরাপদে আকাশভ্রমণ করতে পারবেন। তবে ২৮ সপ্তাহের পর যেকোনো গর্ভবতী নারীকে উড়োজাহাজে চড়ার জন্য নিজের চিকিৎসকের ছাড়পত্র নিতে হবে। সূত্র: বিবিসি হেলথ

বিজ্ঞাপন
জীবনযাপন থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন