default-image

আপনি নিজেই আপনার ভাগ্য নিয়ন্ত্রণ করতে পারেন শতকরা ৯০ থেকে ৯৬ ভাগ। বাকিটা আমরা ফেট বা নিয়তি বলতে পারি। ভাগ্য অনেক সময় অনির্দিষ্ট কারণে আপনা থেকেও গতিপথ বদলাতে পারে। এখানে রাশিচক্রে আমি ‘নিউমারলজি’ বা ‘সংখ্যা-জ্যোতিষ’ পদ্ধতি প্রয়োগ করেছি।

মেষ ২১ মার্চ-২০ এপ্রিল। ভর # ৬

১৯৯০ সালে ইংল্যান্ডের প্রধানমন্ত্রী হন জন মেজর। তিনি এর আগে থেকেই আমার মেজ ভাই ননী চৌধুরীর ঘনিষ্ঠ বন্ধু ছিলেন। জন মেজর প্রধানমন্ত্রী হওয়ার পর আমার ভাই অক্সফোর্ডে একটি নতুন রেস্তোরাঁ খোলেন। রেস্তোরাঁটি উদ্বোধন করতে আসেন জন মেজর। ব্যাংকুয়েটে খেতে বসে আলাপ শুরু হয়। জন মেজর বলেন, এই যে তোমরা হাত দিয়ে খাবার খাও, তোমাদের কি মনে হয় না, এটা একটু অস্বাস্থ্যকর? আমার ভাই একজন সুতার্কিক হিসেবে বিখ্যাত ছিলেন। তিনি মোটেও দমে না গিয়ে বললেন, ‘অস্বাস্থ্যকর কেন হবে? এই যে তোমার হাতটা, এটা তুমি গরম পানিতে ধুয়ে ঘষে একেবারে পরিষ্কার জীবাণুমুক্ত করে নাও, তারপর খাও, কোনো সমস্যা নেই। আর এই যে তুমি ছুরি কাটা ব্যবহার করছ, আমি রেস্তোরাঁ আজকে আনুষ্ঠানিকভাবে উদ্বোধন করলেও অন্তত এক সপ্তাহ আগে থেকে কাজ শুরু হয়েছে, অনেক লোকেই এই ছুরি কাটা ব্যবহার করেছে। তোমার কি একটুও খারাপ লাগছে না?’ জন মেজর হেসে বললেন, ‘হ্যাঁ, তোমার কথায় যুক্তি আছে। আমার তো একটু খারাপই লাগছে।’ সেই যুগে জন মেজর ওটা মেনে নিয়েছিলেন। আজকে জন মেজর নিশ্চয়ই হাত ধুতে ধুতে হয়রান হয়ে যাচ্ছেন! যাহোক, এটা প্রাসঙ্গিকভাবে এল বলেই বললাম। কথাটা সবার জন্য প্রযোজ্য।

বৃষ ২১ এপ্রিল-২১ মে। ভর # ১

সম্ভবত ১৯৪০–এর দশকে সিলেটের সুবোধ পুরকায়স্থ বলে এক ভদ্রলোক কলকাতায় গিয়ে গীতিকার হিসেবে বেশ নাম করেন। অথচ আমি আজও জানি না, এই গীতিকারের লেখা গান কী কী। এটাই একজন গীতিকারের নিয়তি হয়তো। আমাদের এক প্রয়াত গীতিকার–বন্ধু খুবই সরল ছিল। তখন সে নতুন নতুন গান লিখতে শুরু করেছে। একদিন এক পানের দোকানে রেডিওতে তার লেখা গান বাজছিল। সে উত্তেজনায় থাকতে না পেরে একজনকে বলল, ‘এই যে ভাই, শোনেন, এই গানটা না আমার লেখা!’ শুনে লোকটি বলল, ‘ধুর মিয়া, যান!’ তাহলে দেখুন, একজন গীতিকারের জীবনে কত রকমের সমস্যা! যাহোক, গীতিকার গান লেখেন তাঁর নিজের আনন্দে, সেই গান পরিচিতি পায় শিল্পীর নামে। এতে নালিশ করার কিছু নেই। আমি গীতিকার, আমিও এতে কোনো নালিশ করার মতো কিছু দেখি না।

মিথুন ২২ মে-২১ জুন। ভর # ৬

মিথুনের তো এখন খুব ভালো সময় চলার কথা। একটা কথা মনে পড়ল, মিথুন রাশির কবি নির্মলেন্দু গুণকে একজন প্রশ্ন করেছিলেন, ‘আপনি দাড়ি রাখেন কেন?’ তিনি পাল্টা প্রশ্ন করেন, ‘আপনি দাড়ি রাখেন না কেন?’ আমাকেও একজন জিজ্ঞেস করেছিল, ‘আপনি দাড়ি রাখেন কেন?’ আমি বলেছিলাম, আমি তো দাড়ি রাখি না, দাড়ি আপনা থেকেই আসে। কথার পিঠে কথার মোক্ষম জবাব দেওয়া মিথুন রাশির একটা বৈশিষ্ট্য। প্রিয় মিথুন, একটা প্রশ্ন করলে সঠিক জবাব দিয়ে দেবেন, তারপরে আমি আছি!

কর্কট ২২ জুন-২২ জুলাই। ভর # ২

কর্কট নারী–পুরুষের একটা প্রধান শক্তি হচ্ছে তার কল্পনাশক্তি। এই কল্পনাশক্তিকে সবাই কাজে লাগাতে পারেন। ধরুন, আমি আজীবন ঘুমের আগে একটা সুন্দর কল্পনা করতে থাকি নিজেকে নিয়ে। আস্তে আস্তে কখন ঘুম চলে আসে, আমি টেরই পাই না। প্রিয় কর্কট, এভাবে নিজের কল্পনাশক্তিকে কাজে লাগান।

সিংহ ২৩ জুলাই-২৩ আগস্ট। ভর # ১

চলতি সপ্তাহটিকে আমি নিবেদন করতে চাই সিংহ রাশির নারীদের উদ্দেশে। এ সপ্তাহে তাঁরাই জয়ী হবেন বেশির ভাগ ক্ষেত্রে। পুরুষেরাও যে একেবারে যাবেন তা নয়। তবু সিংহ পুরুষকে অনুরোধ, তাঁরা সিংহ নারীকে একটু সমঝে চলবেন। শুধু সিংহ পুরুষকে নয়, সব পুরুষকেই এই অনুরোধ।

কন্যা ২৪ আগস্ট-২৩ সেপ্টেম্বর। ভর # ২

কন্যা উচ্চাভিলাষী হলেও তিনি কখনো প্রতিযোগিতায় অন্যকে ল্যাং মেরে ফেলে এগিয়ে যেতে ইচ্ছুক নন। তিনি সুস্থ প্রতিযোগিতার পক্ষপাতী। চলতি সপ্তাহে সুস্থ প্রতিযোগিতার মাধ্যমেই কন্যা জয়ী হবেন। জয় হোক।

তুলা ২৪ সেপ্টেম্বর-২৩ অক্টোবর। ভর # ২

তুলা রাশির নারী–পুরুষ সাধারণত খুব সক্রিয় থাকেন তাঁদের চিন্তায় ও কাজে। চলতি সপ্তাহটি তাঁদের কাছে অনেক কাজের সুযোগ নিয়ে আসবে। অতএব আমার অনুরোধ থাকবে, তুলা রাশির নারী–পুরুষের প্রতি তাঁরা যেন খুবই তৎপর থাকেন এ সপ্তাহে। এই তৎপরতার পুরস্কার তাঁরা অবশ্যই পাবেন।

বৃশ্চিক ২৪ অক্টোবর-২২ নভেম্বর। ভর # ২

হেমন্ত মুখোপাধ্যায়ের একটা গানে আছে, ‘যা কিছু পেয়েছি কাছে তাই সঞ্চয়, যা কিছু পেলাম নাকো সে আমার নয়।’ চলতি সপ্তাহে কেন, প্রিয় বৃশ্চিক সব সময়ই এই কথাটা মনে রাখুন। রবীন্দ্রনাথের ভাষায় বলতে গেলে কী পাইনি, তারই হিসাব মেলাতে মন মোর নহে রাজি।

ধনু ২৩ নভেম্বর-২১ ডিসেম্বর। ভর # ৯

কোনো অবস্থায়ই পরাজয় স্বীকার না করাটাই ধনুর চরিত্র। তার মানে এই নয় যে আপনার এখন খারাপ সময় চলছে। খারাপ সময় চলুক আর ভালো সময়ই চলুক, মনের মধ্যে যে চেতনা আছে, সেটাকে জাগ্রত রাখুন এবং সামনে চলুন। জয় হোক।

মকর ২২ ডিসেম্বর-২০ জানুয়ারি। ভর # ৩

মকর একজন নেতৃস্থানীয় মানুষ, সে তিনি নারীই হোন বা পুরুষ হোন। তাঁকে দেখে তাঁর চারপাশের মানুষেরা উদ্দীপিত হয়, উৎসাহিত হয়। কাজেই মকরকে সেইভাবে চলতে হবে। মনে রাখতে হবে যে তিনি চলছেন, সঙ্গে তাঁর অনেক অনুগামী রয়েছেন। জয় হোক আপনার।

কুম্ভ ২১ জানুয়ারি-১৮ ফেব্রুয়ারি। ভর # ৯

অনেকে আছেন, যাঁরা একটা কথা বলতে বা লিখতে শুরু করতে জানেন, কিন্তু শেষ করতে জানেন না। এতে শ্রোতা বা পাঠকের মনোযোগ নষ্ট হয় এমনকি বিরক্তিও আসে। কাজেই আপনি যা বলবেন এবং যা লিখবেন, তা যথাসম্ভব সংক্ষেপে প্রকাশ করার চেষ্টা করুন। এতে আপনারই লাভ হবে।

মীন ১৯ ফেব্রুয়ারি-২০ মার্চ। ভর # ৩

মীন রাশিতে খুঁজে পাওয়া যাবে অজস্র মহামানব। হ্যাঁ, বর্তমান পৃথিবীতে মহামানবের সংখ্যা নেই বললেই চলে। জানি না আবার আমরা কবে মহামানবের দেখা পাব। প্রিয় মীন, আপনি যে একদিন মহামানব হবেন না, তা কে জানে? কাজেই আপনি আপনার কাজ করে যান। কল্যাণ হোক আপনার।

বিজ্ঞাপন
মন্তব্য পড়ুন 0