বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

চলছে গ্রামীণফোন অ্যাকসিলারেটর (জিপিএ) প্রোগ্রামের সপ্তম সিজনের রেজিস্ট্রেশন। ১৬ সেপ্টেম্বর থেকে শুরু হয়েছে। আবেদন করা যাবে ১৫ অক্টোবর পর্যন্ত। ১৬ অক্টোবর থেকে ৩০ অক্টোবর পর্যন্ত চলবে নির্বাচন প্রক্রিয়া। নভেম্বরের ২ তারিখে চূড়ান্ত ফল ঘোষণা করা হবে। এর সাথে থাকবে ৬ মাসের প্রশিক্ষণ। ইতিমধ্যে ৪৪টি সম্ভাবনাময় স্টার্টআপের মাধ্যমে ৫ লাখ কর্মসংস্থান সৃষ্টি করেছে তাঁরা। এই প্রোগ্রামের মাধ্যমে গ্রামীণফোন ১৪ কোটি ২০ লাখ টাকার বেশি সহায়তা প্রদান করেছে।

এক নজরে জিপিএর ছয় ব্যাচের হাইলাইটস

  • ছয়টি ব্যাচ, ৪৪টি সফল উদ্যোগ, প্রায় পাঁচ লাখ মানুষের কর্মসংস্থান।

  • এই প্রোগ্রামের মাধ্যমে গ্রামীণফোন এখনও পর্যন্ত ১৪ কোটি ২৯০ লাখ টাকার সমপরিমাণ পৃষ্ঠপোষকতা করেছে। এর ভেতর সরাসরি ৪ কোটি ২০ লাখ টাকা দেওয়া হয়েছে। আর ১০ কোটি টাকা অর্থমূল্যের সহায়তা দেওয়া হয়েছে।

  • নির্বাচিত প্রতিটি দল গড়ে ৬৫ লাখ টাকা অর্থমূল্যের সহায়তা পায়।

  • সেবা এক্সওয়াইজেড, সিএমইডি হেলথ আর পার্কিং কই- জিপিএ- এর এই তিনটি অ্যালামনাই কোম্পানি ব্যাপক সফলতা অর্জন করেছে। এই তিনটি কোম্পানির বাজারমূল্য এখন ৫০ লাখ ডলার বা আজকের দিনে ৪২ কোটি ৮৪ লাখ টাকা।

  • চার মাসের যে বুটক্যাম্প হয়, তাতে একেকটা কোম্পানির মূল্যমান চার গুল বাড়ে বলে জানিয়েছে তাঁদের গবেষণা দল।

  • ডেমো থেকে শেষ দিন পর্যন্ত অংশগ্রহণকারীরা তাঁদের আইডিয়া, প্রজেক্ট নিয়ে এগিয়ে যাওয়ার মতো প্রয়োজনীয় রসদ পায়।

  • দেশের প্রযুক্তি নিয়ে স্টার্টআপের ক্ষেত্রে বৈষম্য কমিয়ে সমতার দিকে নিয়ে যাওয়া।

  • চাকরির বাজার তৈরি হওয়া।

জীবনযাপন থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন