default-image

ব্রিটেনের রানি এলিজাবেথ এবং যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট বারাক ওবামা দুজনেরই আছে সেলফিপ্রীতি। হলিউড-বলিউডের তারকারাও এখন এই জ্বরে আক্রান্ত। ২০১৪ অস্কার আসরে ইলেন ডিজেনারেসের সেই তারকাবহুল সেলফি তো রীতিমতো হইচই ফেলে দিয়েছিল সারা বিশ্বে। এর পর থেকে গ্রুপ সেলফি অথবা ‘উইফি’ তোলার ঝোঁকও বেড়ে গেছে।
কম যান না আমাদের দেশের তারকারাও। মডেল ও অভিনেত্রী শবনম ফারিয়ার কথাই ধরুন না কেন, তাঁর ফোন পরিবর্তন করার মূল কারণই নাকি ‘সেলফি’। নতুন ফোন কেনার সময় তাই বেছে বেছে এমনই এক সেট কিনেছেন যেটির সামনের ক্যামেরা ভালো মানের ছবি ধারণ করতে পারে। কোথাও গেলেই সেলফি তুলে চেক–ইনসহ তা সঙ্গে সঙ্গে ফেসবুকে আপলোড করে দেয়া চাই-ই চাই, বললেন ফারিয়া নিজেই। তিনি আরও জানালেন, সামনের ক্যামেরায় যেহেতু ফ্ল্যাশ থাকে না তাই যেখানে আলো বেশি এমন জায়গা বেছেই ছবি তোলা হয়। আউটডোর শুটের চেয়ে ইনডোর ফটোশুটেই চেহারার খুঁতগুলো বেশি ধরা পড়ে বলে বেশি মেকআপের প্রয়োজন পড়ে।
কথা হলো ছবি তোলার প্রতিষ্ঠান ড্রিম উইভারের জ্যেষ্ঠ আলোকচিত্রী মাজহারুল ইসলামের সঙ্গে। কোন কৌশলে সুন্দর মুহূর্তগুলোকে ফ্রেমবন্দী করা যেতে পারে, তা-ও জানালেন তিনি। ছবি তোলার জন্য সবচেয়ে ভালো জায়গাটাকেই বেছে নিতে হবে। অর্থাৎ যেখানে পর্যাপ্ত পরিমাণ আলো আছে এবং পটভূমি সুন্দর এমন কোনো জায়গা। যার ছবি তোলা হবে তার পোশাক এবং পেছনের পটভূমির (ব্র্যাকগ্রাউন্ড) রং মিলে গেলে দেখতে ভালো লাগবে না। বরং ব্যাকগ্রাউন্ডে যে রং আছে তার থেকে গাঢ় রঙের পোশাকে মডেল আরও দৃশ্যমান হয়ে উঠবেন। সঠিক কোণ (অ্যাঙ্গেল) নির্বাচন করাও একটি গুরুত্বপূর্ণ বিষয়। ছবি তোলার সময় পারতপক্ষে ফ্ল্যাশ না ব্যবহার করাই ভালো। তবে যদি এমন হয় আলো কম থাকার কারণে ছবিতে কিছুই দেখা যাচ্ছে না সে ক্ষেত্রে ফ্ল্যাশ অন করে ছবি তোলা যেতেই পারে। খুব জড়োসড় হয়ে থাকলে ছবি ভালো দেখাবে না। সেলফি তোলার সময় হাত না নাড়ানোর পরামর্শ দেন তিনি।
অনেকে মিলে সেলফি তুললে যিনি তুলবেন তাঁকে অন্যদের থেকে একটু সামনে এগিয়ে আসতে হবে, তাহলে একই ফ্রেমেই সবাইকে আনা সম্ভব হবে। ব্যবহার করা যেতে পারে সেলফি স্টিকও। তরুণেরা ইদানীং অনেক রকম মুখভঙ্গি করে সেলফি তোলেন, এতেও বেশ মজা আছে। ছবিতে ডাবল চিন বা থুতনির ভাঁজ এড়াতে ক্যামেরা ওপর থেকে ধরতে হবে। এতে চোখটাও সুন্দর দেখা যায়।

একটি সুন্দর সেলফি তুলতে কতই না কসরত করতে হয়। আলোকচিত্রী প্রীত রেজার কাছ থেকে জেনে নিন সুন্দর ছবি তোলার গুরুত্বপূর্ণ কিছু নিয়ম—
. ছবি তোলার ক্ষেত্রে আলো খুব গুরুত্বপূর্ণ বিষয়। ছবির বিষয়কে তাই আলোর বিপরীতে রাখতে হবে যেন মুখে আলো এসে পড়ে।
. পটভূমি দেখে নিতে হবে। ব্যাকগ্রাউন্ডে অপ্রয়োজনীয় অনেক কিছু থাকলে ছবি ভালো দেখায় না।
. হাতটা কীভাবে রাখলে ভালো দেখাবে সেটাও ভেবে দেখতে হবে।
. যতটা পারা যায় স্বাভাবিক থাকতে হবে। অঙ্গভঙ্গি দেখে যেন একেবারেই কৃত্রিম মনে না হয়। তাই ছবি তোলার সময় সহজ, স্বাভাবিক ও প্রাণবন্ত থাকতে হবে।
. ছবিকে আরও সুন্দর করার জন্যই এডিট করা হয়। তবে তা যেন সম্পূর্ণ এডিটনির্ভর হয়ে না যায়। তাহলে একে গ্রাফিক কাজ বলেই মনে হবে। পিকাসা ও ইন্সটাগ্রামের মাধ্যমে খুব সহজেই ছবি এডিট করা যায়। এ ছাড়াও রয়েছে ফটোশপ এবং লাইটরুম সফটওয়্যার। স্মার্ট ফোনগুলোতে থাকা এডিট অপশন ব্যবহার করেও সম্পাদনার কাজটি করা যেতে পারে।

বিজ্ঞাপন
জীবনযাপন থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন