default-image

বিরোধীদলীয় নেতার সাক্ষাৎকার
রস+আলো: ক্রিকেট উন্মাদনায় মেতেছে বাংলাদেশ।
আপনার অনুভূতি কী?
বিরোধীদলীয় নেতা: সেই উন্মাদনার ঢেউ আমাদের আন্দোলনেও লেগেছে।
র.আ.: বিস্তারিত বলুন।
বি.নে.: আমাদের দেশে এমন অনেক ক্রিকেটার আছেন, যাঁরা রানিং বিটুইন দ্য উইকেটে খুব ভালো। অনেক দূর থেকে বল মেরে স্টাম্পে ঠিকভাবে আঘাত করতে পারেন। অথচ বোলিং, ব্যাটিং না পারায় তাঁরা আজ উপেক্ষিত। আমরা খুঁজে খুঁজে সেসব উপেক্ষিত ক্রিকেটারের জন্য কর্মসংস্থানের ব্যবস্থা করেছি। আমাদের আন্দোলনের কাজে লাগিয়েছি!
র.আ.: কীভাবে?
বি.নে.: খেলার মাঠে সেসব উপেক্ষিত ক্রিকেটার রাজনীতির মাঠে দক্ষ পিকেটার নামে পরিচিত। সব কথা কি আর খুলে বলা যায়?
কিছু কথা থাক না ‘গুপন’!

default-image

সরকারি দলের নেতার সাক্ষাৎকার
রস+আলো: বিশ্বকাপ উপলক্ষে আপনাদের বিশেষ কোনো উদ্যোগ আছে কি?
সরকারদলীয় নেতা: রাস্তার মোড়ে মোড়ে বড় স্ক্রিনে খেলা দেখানোর ব্যবস্থা করা হবে। বড় স্ক্রিনে খেলা দেখার মাধ্যমে সাধারণ মানুষ হরতাল–অবরোধ উপেক্ষা করে রাস্তায় জড়ো হয়ে বিরোধী দলকে প্রত্যাখ্যান করবে!
র.আ.: বাংলাদেশ বনাম আফগানিস্তানের ম্যাচ নিয়ে কিছু বলুন।
স.নে.: আফগানিস্তানে বোমা হামলায় অনেক মানুষ মারা গেছে। আমাদের দেশেও বিগত এক মাসে পেট্রলবোমায় প্রায় প্রতিদিনই মানুষ মারা গেছে। বাংলাদেশকে আফগানিস্তানে পরিণত করার চেষ্টা করছে দুষ্কৃতকারীরা।
বাংলাদেশ ক্রিকেট দল আফগানিস্তানের বিপক্ষে জিতে প্রমাণ করবে, দুষ্কৃতকারীরা শত চেষ্টা করেও বাংলাদেশকে আফগানিস্তানের মতো
ব্যর্থ রাষ্ট্রে পরিণত করতে পারবে না।
র.আ.: খেলার মধ্যে রাজনীতি টেনে আনা কি উচিত?
স.নে.: রাজনীতিবিদের কাছে খেলা সম্পর্কে প্রশ্ন করা কি উচিত?
র.আ.: ধন্যবাদ, বুঝতে পেরেছি!

বিজ্ঞাপন
জীবনযাপন থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন