রবি আজিয়াটা লিমিটেডের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা (সিইও) মাহতাব উদ্দিন আহমেদ বলেছেন, ‘চতুর্থ শিল্পবিপ্লবে যে অনেকের চাকরি যাবে, তা বিশ্বাস করি না।’ বিএসআরএম নিবেদিত ‘মিট দ্য এক্সপার্ট’ শীর্ষক অনুষ্ঠানে এক প্রশ্নের জবাবে এ কথা বলেন মাহতাব উদ্দিন আহমেদ।

বেসরকারি গ্রিন ইউনিভার্সিটি অব বাংলাদেশের শিক্ষার্থী হাসিব আহমেদ নেছার মাহতাব উদ্দিন আহমেদের উদ্দেশে প্রশ্ন করেন, ‘স্যার, আমরা চতুর্থ শিল্পবিপ্লবের দ্বারপ্রান্তে দাঁড়িয়ে। তৃতীয় বিশ্বের দেশ হিসেবে আমাদের চাকরির সংকট এমনিই রয়েছে। শিল্পবিপ্লবের কারণে আরও চাকরি চলে গেলে তরুণ প্রজন্ম এর সমাধানের জন্য কী করতে পারে?’

জবাবে মাহতাব উদ্দিন আহমেদ বলেন বলেন, ‘চতুর্থ শিল্পবিপ্লবে যে অনেকের চাকরি চলে যাবে, প্রথমত আমি এটা বিশ্বাস করি না। এ ব্যাপারে আমার অনেকের সঙ্গে বিতর্ক হয়েছে, নীতিনির্ধারকদের সঙ্গেও। আপনি দেখেন প্রথম, দ্বিতীয় ও তৃতীয় শিল্পবিপ্লব—এ তিন ঘটনাতেই কিন্তু এই ভয়টা ছিল। কিন্তু কখনোই এটি প্রমাণিত হয়নি। নতুন শিল্পবিপ্লব আমাদের কাজে দক্ষতা, কর্মক্ষমতা আনে, যার মাধ্যমে লাভজনক ও আরও মানসম্পন্ন কাজ করা সম্ভব, যেটা চাহিদাও সৃষ্টি করে।

default-image

ছোট উদাহরণ দিয়ে বলা যায়, প্রথমে আমরা গরুর গাড়ি, ঘোড়ার গাড়ি ব্যবহার করতাম। সেখান থেকে এল মোটরগাড়ি। সেই সময় কিছু মানুষ চাকরি হারালেও নতুন চাকরিরও সৃষ্টি হয়েছে। গাড়ির ফ্যাক্টরি, গাড়ির লোন, ইনস্যুরেন্স, গাড়ির গ্যারেজ—এই যে এগুলো লাগবে। এই যে আর্টিফিশিয়াল ইন্টেলিজেন্স, ব্লক চেইন, এগুলো আসছে, কিন্তু কে এগুলো চালাবে। যন্ত্রের পিছের মানুষ মানে তোমরা। বিপুল পরিমাণ কাজের সৃষ্টি হবে এই নতুন জায়গাগুলোয়। রোবোটরা কাজ নিয়ে যাবে না, বরং আমাদের কাজের কর্মদক্ষতা বৃদ্ধি করবে আরও।’

এ সময় অনুষ্ঠানের উপস্থাপক আয়মান সাদিক আরও যোগ করেন, ‘চাকরি আসলে চলে যাচ্ছে না, চাকরির ধরন, ক্ষেত্র আসলে পরিবর্তিত হচ্ছে, যা সৃষ্টির আদিকাল থেকেই হচ্ছে।’

বিজ্ঞাপন
মন্তব্য পড়ুন 0