default-image

বাজারে এখন চোখে পড়বে নানা আকারের জাম্বুরা। এটি বাতাবি লেবু নামেও পরিচিত। ভিটামিন সি, বিটা ক্যারোটিন আর ভিটামিন বি-তে ভরপুর এ জাম্বুরা। এর রস শরীরের বাড়তি আমিষ ও চর্বিকে ভেঙে ওজন কমাতে সাহায্য করে। শিরা-উপশিরার দেয়ালে চর্বি জমতে বাধা দেয়।

বার্ধক্য দূরে ঠেলতে ও ইনফেকশনের সমস্যা (প্রধানত ত্বক, মুখ, জিব) দূর করতে এই ফল রাখে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা। খাবার হজমের সাহায্যকারী এনজাইম হিসেবে কাজ করে এই লেবুর রস। অতিরিক্ত গরমে আমাদের শরীরে ফোড়া হয়। যেকোনো চর্মরোগ, ফোড়া ও ঘায়ের বিরুদ্ধে যুদ্ধ করে এই ফল।

পুষ্টিবিদ আলেয়া মাওলার তথ্য অনুযায়ী, প্রচুর ভিটামিন সি, বিটা ক্যারোটিন, ভিটামিন বি, ফলিক অ্যাসিড, পটাশিয়ামসহ শরীরের প্রয়োজনীয় বিভিন্ন পুষ্টি উপাদান আছে এতে। তাই কখনো রোগ নিরাময়ে, কখনো রোগ প্রতিরোধে এবং শরীরের ঘাটতি পূরণের জন্য জাম্বুরা খুব কার্যকর।

জাম্বুরার কিছু বিশেষ গুণ

রুচি বাড়ায়
জাম্বুরা মূলত লো ক্যালরিসমৃদ্ধ ফল। খাবারের রুচি বাড়াতে জাম্বুরা বেশ কার্যকর। মাল্টার চেয়ে জাম্বুরায় পানির পরিমাণ বেশি হওয়ায় ত্বকের জন্য এটি বেশ ভালো কাজ করে।

পেটের জন্য ভালো
যাঁরা পাকস্থলীর সমস্যায় ভুগছেন, তাঁদের জন্যও জাম্বুরা বেশ ভালো। এমনকি উচ্চ রক্তচাপের রোগীর জন্যও লবণ ছাড়া জাম্বুরা ভালো। তবে যাঁদের ক্রিয়েটিনিন বেশি এবং কিডনির সমস্যায় ভুগছেন, তাঁদের জন্য এই ফল এড়িয়ে যাওয়া ভালো।

ওজন কমাতে
ওজন কমাতে বিশেষভাবে সাহায্য করে। যাঁরা ওজন কমাতে চান, তাঁরা জাম্বুরা খেতে পারেন।

জ্বরের পথ্য
গরম, ঠান্ডাজনিত সমস্যা বা ঘাম জমে যে জ্বর হয়, জাম্বুরা তাঁদের জন্য দরকারি পথ্য।

ত্বক ভালো রাখে
জাম্বুরায় আছে প্রচুর ভিটামিন সি। তাই রক্তনালির সংকোচন-প্রসারণের ক্ষমতা বৃদ্ধিতে এটি সহায়ক। মুখের ভেতরে ঘা, জ্বর, পাকস্থলী ও অগ্ন্যাশয়ের বিভিন্ন রোগের উপশমকারী।

বিজ্ঞাপন
মন্তব্য পড়ুন 0