default-image

মায়া রোজের বয়স মাত্র ১২। নেশায় ‘বার্ড স্পটার টুইচার’। যারা বিভিন্ন পরিযায়ী পাখির চলাফেরার খোঁজ রাখে, গতিবিধি নজর রাখে তাদের বার্ড স্পটার টুইচার বলে। টুইচাররা পাখির পেছনে ঘুরে ঘুরে পাখি কোথায় যায়, কী করে, তা দুরবিন দিয়ে পর্যবেক্ষণ করে, ছবি তুলে রাখে। এরই মধ্যে পৃথিবী ঘুরে তিন হাজারের বেশি পাখির চলাচল মুখস্থ তার। শুধু যুক্তরাজ্যেরই নয়, বলা হয় সারা বিশ্বের কনিষ্ঠ বার্ড স্পটার হচ্ছে মায়া।
বাংলাদেশি বংশোদ্ভূত মায়া রোজের মা হেলেনা আহমেদ সিলেটের মেয়ে আর বাবা ক্রিস ক্রেইগ ব্রিটিশ। যুক্তরাজ্যের সমারসেটে বসবাস তাদের।
এই ফেব্রুয়ারিতে চামচঠুঁটো বাটান পাখির জরিপে বাংলাদেশে এসেছে মায়া। পৃথিবীতে মাত্র শ দুয়েক এই জাতের পাখি আছে।
ঢাকায় এক সাক্ষাৎকারে মায়া জানায়, ‘ব-দ্বীপের দেশ বাংলাদেশ। এখানে পাখির বৈচিত্র্য ঈর্ষণীয়। বিলুপ্তপ্রায় পাখি চামচঠুঁটো বাটান খুঁজতে এখানে আসতে পেরে আমি ভীষণ আনন্দিত। তা ছাড়া মায়ের দেশ বলে কথা!’
মা-বাবার ধরে চার বছর বয়স থেকেই পাখি দেখা শুরু তার। এরই মধ্যে অ্যান্টার্কটিকা বাদে সব মহাদেশেই পাখি গোনার কাজ করেছে মায়া। মায়ার মা হেলেনা আহমেদ জানান, ‘মায়ার জন্মের পরে শেখা তৃতীয় শব্দটি ছিল বার্ডি। আমরা ওর ভালো লাগার কাজে সব সময় উৎসাহ দিয়ে থাকি।’

বিজ্ঞাপন
জীবনযাপন থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন