default-image

ওজন কমানোর টিপস
আয়নায় নিজেকে দেখে বলে উঠলাম, ‘আমার এই জীবনে আর ওজন কমানো হবে না মনে হয়। সব চেষ্টাই ব্যর্থ!’ সেটা শুনে আমার ছোট ভাই মাশরাফি বলে উঠল, ‘তোমাকে ওজন কমানোর একটা বুদ্ধি দিই। এতে তোমার কোনো কষ্ট করতে হবে না, খাওয়াদাওয়াও কমাতে হবে না।’ আমি আন্দাজ করতে পারছিলাম, নিশ্চয়ই কোনো একটা দুষ্টামি। কিন্তু সেটা কী বুঝতে পারছিলাম না। তাই জিজ্ঞেস করলাম, ‘কী পদ্ধতি?’ মাশরাফি ওর বিজ্ঞান বই খুলে আমাকে দেখিয়ে বলল, ‘এই দেখো, এখানে লেখা—চাঁদে মানুষের ওজন ৬০ ভাগের ১ ভাগ হয়ে যায়। তুমি এক কাজ করো, চাঁদে চলে যাও। তোমার ওজন ৬০ কেজি হলে চাঁদে ১ কেজি হয়ে যাবে!’
সাদিয়া ইসলাম
বই
বইমেলা মানেই আমার এত্তগুলো বই কেনা। আব্বু সে উপলক্ষে বেশ কিছু টাকাও দিলেন। তাই আনন্দে ও উত্তেজনায় স্ট্যাটাস দিলাম ফেসবুকে, ‘এবার মেলা থেকে কমপক্ষে পঞ্চাশটা বই কিনব।’ দেওয়া মাত্রই এক বন্ধু কমেন্ট করল, ‘তোর মাথা ঠিক আছে তো?’ আমি বন্ধুকে পাত্তা না দিয়ে বললাম, ‘তোর কোনো আইডিয়া নাই, আমি কত্ত বই কিনতে পারি।’ বন্ধুটি বলল, ‘বই কিনলে তো সমস্যা নাই, দোস্ত! তুই তো কিনতে চাইছিস…মুহাহাহা!’ খেয়াল করে দেখি আমি স্ট্যাটাসে লিখেছি, ‘এবার মেলা থেকে কমপক্ষে পঞ্চাশটা “বউ” কিনব!’ টাইপিং মিসটেক আর কাকে বলে!

মেহরাব হোসেন

দাঁত মাজা শিক্ষা
আমার ছয় বছরের ছোট বোনকে দাঁত মাজা শেখানোর দায়িত্ব পড়ল আমার ওপর। মেয়েটা দুষ্টু, কিছুতেই কথা শোনে না। যতবারই ব্রাশে পেস্ট লাগিয়ে দিই, ততবারই পেস্ট গিলে ফেলে। কিন্তু আমি তো হতাশ হওয়ার মানুষ না। ওকে বললাম, ‘তুলতুল, আমি যা করব, তুমিও তা–ই করবে। ঠিক আছে?’ তুলতুল আবার নকল করতে ভালোবাসে। সে রাজি হলো। আমি ওকে প্রথমে ব্রাশ নিয়ে কীভাবে ফেনা তুলতে হয় সেটা দেখিয়ে দিলাম। ও আমার দেখাদেখি তাই করল। ও ফেনা গিলে ফেলার আগেই আমি চেঁচিয়ে বললাম, ‘ফেনাটা না গিলে থুতু ফেলো।’ কথা শেষ হওয়ার আগেই আবিষ্কার করলাম ওর থুতু আমার মুখে!
সৈয়দ আশফাহ তোয়াহা
গ্রন্থনা: ফাহমিদা আলম

বিজ্ঞাপন
জীবনযাপন থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন