default-image

‘বিশ্বসেরা ক্রিকেট অলরাউন্ডার সাকিব আল হাসান, জাতীয় টেস্ট দলের অধিনায়ক মুশফিকুর রহিম বিকেএসপির প্রাক্তন ছাত্র, ভাবলেই গর্বে বুকটা ভরে যায়।’ ক্রিকেট কোচ মাসুদ হাসানের কণ্ঠে এমন উচ্ছ্বাস!
বিশ্বকাপ ক্রিকেটে আফগানিস্তানের বিপক্ষে বাংলাদেশের জয়ের পরদিন ১৯ ফেব্রুয়ারিই সাভারের বিকেএসপিতে হাজির হই। প্রশিক্ষণ মাঠে কথা হয় কোচ মাসুদ হাসানের সঙ্গে। তিনি বলে চলেন জাতীয় দলের কৃতী ক্রিকেটারদের সাফল্যগাথা, যাঁরা এককালে তাঁর ছাত্র ছিলেন।
আফগানিস্তান-বধের নায়কই শুধু নন, সাকিব-মুশফিক জুটি বাংলাদেশের অনেক জয়ে সামনে থেকে নেতৃত্ব দিয়েছেন। তাঁদের এই যুগলবন্দী বেশ পুরোনো। কোচ মাসুদ হাসানের কাছ থেকে জানতে পারি, সাকিব বিকেএসপিতে অষ্টম শ্রেণিতে ভর্তি হন ২০০২ সালে। দেশব্যাপী প্রতিভা অন্বেষণ কার্যক্রমের মাধ্যমে বিকেএসপি খুঁজে পায় টেস্ট, ওয়ান ডে এবং টি-টোয়েন্টির বিশ্বসেরা এই অলরাউন্ডারকে। ২০০৬ সালে আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে অভিষেকের পর থেকে সাকিব তাঁর যোগ্যতার প্রমাণ রেখে চলেছেন। প্রথম বাংলাদেশি ক্রিকেটার হিসেবে সাকিব ছুঁয়েছেন চার হাজার রানের মাইলফলক।

default-image

আর মুশফিক? উত্তরে জানান মাসুদ হাসান, মুশফিক ২০০০ সালে সপ্তম শ্রেণিতে ভর্তি হন বিকেএসপিতে। পড়ালেখা, ক্লাসে উপস্থিতি থেকে খেলার মাঠ—সবকিছু মিলে মুশফিক ছিল খুব গোছানো। মুশফিক মানবিক বিভাগ থেকে এইচএসসি পরীক্ষায় জিপিএ-৫ নিয়ে উত্তীর্ণ হন। এরপর ক্রিকেটের ব্যস্ততার মধ্যেও জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের ইতিহাস বিভাগ থেকে স্নাতক ও স্নাতকোত্তর দুটিতেই পেয়েছেন প্রথম শ্রেণি। ২০০৫ সালে টেস্ট অভিষেক, বর্তমানে টেস্ট দলের অধিনায়ক। দেশের হয়ে একমাত্র ডাবল সেঞ্চুরিটিও তাঁর।

default-image

শুধু সাকিব বা মুশফিকই নন, চলমান আইসিসি ক্রিকেট বিশ্বকাপে বাংলাদেশ দলের ছয়জনই বিকেএসপির আবিষ্কার। সাকিব ও মুশফিক ছাড়া অন্যরা হলেন: এনামুল হক বিজয়, নাসির হোসেন, মুমিনুল হক ও সৌম্য সরকার।
তবে শুধু এই বিশ্বকাপেই নয়, বিকেএসপি থেকে তৈরি হয়েছেন জাতীয় ক্রিকেট দলের অনেক খ্যাতিমান খেলোয়াড়। তাঁদের মধ্যে আছেন বাংলাদেশের প্রথম টেস্ট অধিনায়ক নাঈমুর রহমান। আছেন আল শাহরিয়ার, নিয়ামুর রশীদ রাহুল, সজল চৌধুরী, আবদুর রাজ্জাক, নাঈম ইসলাম, নাজমুল হোসেন, রাকিবুল হাসান, সাব্বির খান, সোহরাওয়ার্দী, শামসুর রহমান, মোহাম্মদ মিঠুন প্রমুখ।
কোচ মাসুদ হাসান আরও জানান, ক্রীড়াক্ষেত্রে বিকেএসপির এই ধারাবাহিকতা উদ্বুদ্ধ করছে বর্তমান শিক্ষার্থীদেরও। বিকেএসপির ক্রিকেট বিভাগে বর্তমানে সপ্তম শ্রেণি থেকে স্নাতক (পাস) পর্যন্ত পড়ছেন ১৮২ জন শিক্ষার্থী।
তথ্য সহায়তা: বিকেএসপি ও ক্রিকইনফো

বিজ্ঞাপন
জীবনযাপন থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন