মুখের দুর্গন্ধ একটি বিরক্তিকর ব্যাপার। তবে একটু সচেতন হলে এমন বিরক্তিকর সমস্যা থেকে মুক্তি মিলতে পারে। মুখের দুর্গন্ধ অনেক কারণেই হয়। যেমন: যদি মুখ নিয়মিত, ঠিকমতো পরিষ্কার করা না হয়, দাঁতের ফাঁকে ফাঁকে খাবার জমে থাকলে, মুখে ঘা থাকলে, পানি কম পান করলে ইত্যাদি কারণে হয়ে থাকে। এই দুর্গন্ধ থেকে কে না সহজেই মুক্তি চায়? প্রতিবার খাবার গ্রহণের পর মুখ ভালোভাবে পরিষ্কারের পাশাপাশি দৈনিক পর্যাপ্ত পরিমাণ পানি, ভিটামিন সি সমৃদ্ধ খাবার ও চা পানের মাধ্যমে এমন বিরক্তিকর অবস্থা এড়ানো যায়।
নিয়মিত মুখ গরগরা ও পর্যাপ্ত পানি পান করা। বারবার পানি পানে অতিরিক্ত দুর্গন্ধ সৃষ্টিকারী ব্যাকটেরিয়া ধুয়ে যাবে এবং মুখ গন্ধ হবে না। শরীরে পানিশূন্যতা থাকলে লালা তৈরি কম হয়। ফলে মুখের ব্যাকটেরিয়ার বৃদ্ধি বেশি হয় ও দুর্গন্ধ সৃষ্টি করে। আর লালা ঠিকমতো তৈরি হলে লালাস্রোতে ব্যাকটেরিয়া মুখ থেকে পরিষ্কার হয়ে যায়।
আপেল মুখ পরিষ্কার রাখে। যখন আপেলে কামড় দেওয়া হয়, তখন লালাগ্রন্থি উত্তেজিত হয় এবং বেশি বেশি লালা তৈরি করে। ফলে লালা দিয়ে দুর্গন্ধ সৃষ্টিকারী ব্যাকটেরিয়া মুখ থেকে ধুয়ে যায়। এতে মুখ পরিষ্কার থাকে ও নিঃশ্বাস হয় নির্মল।
ভিটামিন সি ব্যাকটেরিয়া ধ্বংসকারী। ভিটামিনসমৃদ্ধ খাবার যেমন: কমলা, লেবু, মিষ্টি লেবু এবং সব ধরনের সাইট্রাস ফল খেলে মুখ ও নিঃশ্বাস পরিষ্কার থাকে।
চা মুখ ও নিঃশ্বাস পরিষ্কার রাখতে সাহায্য করে। চায়ের কিছু উপাদান মুখে দুর্গন্ধ সৃষ্টিকারী, এমনকি গলাব্যথা সৃষ্টিকারী ব্যাকটেরিয়ার বংশবৃদ্ধি রোধ করে।  মেডিসিন নেট।

বিজ্ঞাপন
জীবনযাপন থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন