default-image

গাড়িতে শিশু থাকা অবস্থায় ধূমপান নিষিদ্ধ হলো ইংল্যান্ডে। এ নিষেধাজ্ঞা পরোক্ষ ধূমপান থেকে শিশুদের রক্ষায় গুরুত্বপূর্ণ উদ্যোগ হিসেবে দেখা হচ্ছে। দেশটির প্রধান মেডিকেল কর্মকর্তা এ আইন পাসকে স্বাগত জানিয়েছেন। আইনটি আগামী ১ অক্টোবর থেকে কার্যকর হবে। সরাসরি ভোটে হাউস অব কমন্সে এই আইনের পক্ষে ৩৪২ ভোট পড়ে, বিপক্ষে পড়ে ৭৪ ভোট। খবর বিবিসির।
পরোক্ষ ধূমপানে সবচেয়ে বেশি ক্ষতিগ্রস্ত হয় শিশুরাই। ফলে দীর্ঘদিন ধরেই শিশুস্বাস্থ্য সুরক্ষায় এমন ধূমপান-নিষেধাজ্ঞা আরোপের পক্ষে প্রচারাভিযান চালিয়ে আসছিলেন চিকিৎসা ও সমাজকর্মীরা। দাতব্যপ্রতিষ্ঠান ব্রিটিশ লাং ফাউন্ডেশনের পুরোনো এক হিসাব মতে, দেশটিতে প্রতি সপ্তাহে প্রায় চার লাখ ৩০ হাজার শিশু তাদের পারিবারিক গাড়িতে বসেই পরোক্ষ ধূমপানের শিকার হয়।
ইংল্যান্ডের প্রধান মেডিকেল কর্মকর্তা অধ্যাপক স্যালি ডেভিস এই আইনকে স্বাগত জানিয়ে বলেছেন, ‘পরোক্ষ ধূমপান থেকে শিশুদের রক্ষায় এটা গুরুত্বপূর্ণ বিজয়।’
পাবলিক হেলথ ইংল্যান্ডের স্বাস্থ্যবিষয়ক জাতীয় পরিচালক অধ্যাপক কেভিন ফেনটন বলেছেন, ‘অনেক অভিভাবকই সচেতন নন যে, পরোক্ষ ধূমপানের ৮০ শতাংশই অদৃশ্য এবং গন্ধহীন হতে পারে। আমাদের শিশুদের স্বাস্থ্য রক্ষায় পুরোপুরি ধূমপানমুক্ত বাড়ি ও গাড়ি একটা দারুণ শক্তিশালী ইতিবাচক পদক্ষেপ।’
ব্রিটিশ লাং ফাউন্ডেশনের প্রধান নির্বাহী ডক্টর পেনি উডস বলেছেন, ‘ইংল্যান্ডে পারিবারিক গাড়িতে প্রতি সপ্তাহে পরোক্ষ ধূমপানের শিকার হওয়া প্রায় পাঁচ লাখ শিশুর জন্য এটা এক বিশাল বিজয়।’

বিজ্ঞাপন
জীবনযাপন থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন