default-image

যুক্তরাষ্ট্র থেকে বান্ধবী দেশে এসেছে। বেড়াবে কিছুদিন। সঙ্গে এনেছে নানা উপহার মগ, ব্যাগ, টি–শার্ট ইত্যাদি। সবকিছুতেই যুক্তরাষ্ট্রের কিছু না কিছু ছাপ রয়েছে। এই যেমন কোথাও লেখা ‘আই লাভ নিউইয়র্ক’, কোনোটাতে সে দেশের পতাকার ছাপ, কোথাও লেখা ‘ইউএসএ’। বলতে গেলে সে দেশের স্মারক। সবাই ভাবল বাংলাদেশ ফুটে ওঠে এমন উপহার দেবে প্রবাসী বান্ধবীকে।

কিন্তু ‘সোনার বাংলা’, ‘ভালোবাসি বাংলাদেশ’ কিংবা এ ধরনের বাক্যসংবলিত উপহার খুঁজে পাওয়া দুষ্কর। আবার দেশীয় ঐতিহ্য বহন করে সে রকম পণ্য হতে হবে। মনের মতো কিছু চাইলে নিজের হাতেও গড়া যায়। এই যেমন একটা হাতপাখা। নিজেদের ঘর সাজানোর জন্য হোক বা স্বাধীনতা দিবসে বন্ধুদের উপহার দেওয়ার জন্য হোক, এমন একটা জিনিস বানাতে পারেন স্বল্প খরচেই।

উপকরণ

ফেব্রিক আঠা

গ্লু গান

লাল ও সবুজ কাপড়

কয়েক ধরনের লেস

শক্ত কাগজ

পাইপ বা লাঠি

গ্লিটার

কাঁচি।

default-image

ধাপ ১

গোল প্লেট, বাটি কিংবা কম্পাসের সাহায্যে শক্ত কাগজে আকৃতি এঁকে নিন।

default-image

ধাপ ২

আকৃতি অনুযায়ী কাগজটি কাঁচি দিয়ে কেটে নিন।

default-image

ধাপ ৩

এবার কাটা গোল কাগজটি একটি কাপড়ের (লাল রঙের) ওপর বসিয়ে বাড়তি অংশ রেখে এঁকে নিন। দাগ বরাবর কেটে নিন।

default-image

ধাপ ৪

কাগজের এক পাশে ফ্যাব্রিক আঠা লাগিয়ে কাপড়ের ওপর বসিয়ে দিন।

default-image

ধাপ ৫

এবার বের হয়ে থাকা কাপড়ের অংশ বড় ঝালরের মতো করে কেটে নিন।

default-image

ধাপ ৬

কাগজের কিনারে ফ্যাব্রিক আঠা বসিয়ে ঝালরগুলোকে টেনে টেনে আঠার ওপর লাগিয়ে দিন।

default-image

ধাপ ৭

এবারের ধাপটি ঐচ্ছিক। ইচ্ছা হলে না–ও করতে পারেন। এখানে সাটিনের লেস কুচি করে বসানো হয়েছে। যে পাশে কাপড় বসানো হয়েছে, ঠিক তার বিপরীত পাশে লেস লাগাবেন। লেস বসাতে গ্লু গান ব্যবহার করা হয়েছে। লাল ও সবুজ রঙা লেস একটার ওপর আরেকটা বসিয়ে নিন।

default-image

ধাপ ৮

আবার গোল প্লেটটি নিয়ে এর আকৃতিতে সবুজ রঙের কাপড়টি কেটে নিন।

default-image

ধাপ ৯

কাগজের যে পাশে এখনো কাপড় বসানো হয়নি, সেই পাশে ফেব্রিক আঠা দিয়ে এই সবুজ কাপড়টি বসান। লেসের গায়ে বের হয়ে থাকা আঠাগুলো ঢেকে যাবে। পাখার বেজ হয়ে গেল।

default-image

ধাপ ১০

এবার পাইপটাকে লাল রঙের লেস ও আঠা দিয়ে ফাঁকা ফাঁকা করে পেঁচিয়ে নিন।

default-image

ধাপ ১১

লাল লেসের ফাঁকা অংশে এবার সবুজ লেস ও আঠা ব্যবহার করে পেঁচিয়ে নিন। হাতল হয়ে গেল।

default-image

ধাপ ১২

গ্লু গানের সাহায্যে লেস প্যাঁচানো হাতলকে পাখার বেজের এক পাশে আটকে নিন।

default-image

ধাপ ১৩

এক টুকরো কাপড় কেটে পাইপের যে অংশ বেজে আটকানো হয়েছে, ততটুকু দুপাশ থেকে ঢেকে দিন। এখানে গ্লু গানের আঠাটাই ব্যবহার করা শ্রেয়।

default-image

ধাপ ১৪

এবার দুপাশে নানা রকম লেস বসিয়ে নিজের পছন্দমতো নকশা করে নিন। চাইলে হাতলটাকেও আরও সাজাতে পারেন। লেস না চাইলে পুঁতি, পাথর ইত্যাদি দিয়েও সাজাতে পারেন। তবে বেশি জবরজং না করাই ভালো।

default-image

ধাপ ১৫

এবার এক পাশে বিশেষ বাক্যটা লিখে নিন গ্লিটার দিয়ে। শুকালে অপর পাশে নকশা করে নিন অথবা চাইলে আরও একটি বিশেষ বাক্য লিখে নিন। এখানে শুধু বুটি বুটি নকশা করা হয়েছে।

default-image

উপকরণ ও খরচ

একটা হাতপাখা তৈরিতে মূল উপকরণ লাগে আঠা, শক্ত কাগজ, একটা লাঠি বা পাইপ, কাগজ অথবা কাপড়, সাজানোর জন্য লেস, পাতি, গ্লিটার ইত্যাদি। বাজেটের ওপর নির্ভর করে মূল উপকরণগুলো কিনতে পারেন। বাজেট বেশি হলে দামি কাপড় কিনে নিতে পারেন। কম হলে সুতি কাপড় কিংবা কাগজ ব্যবহার করতে পারেন। কাপড় ব্যবহার করলে ফ্যাব্রিক আঠা ব্যবহার করা ভালো। সেই সঙ্গে লেস বসাতে হলে গ্লু গান ব্যবহার করতে হবে।

পাখাটা তৈরি করতে ৩০০ থেকে শুরু করে ১ হাজার টাকার বাজেট ধরা যাবে। এখানে ব্যবহার করা হয়েছে মখমলের কাপড়। আধা গজের কম হয়তো বাজার থেকে কিনতে পারবেন না। তাই খরচ একটু বেশি পড়েছে। প্রতি গজ ৪০০ টাকা। আর এক গজ কাপড় দিয়ে কমপক্ষে ৩-৪টা পাখা বানাতে পারবেন। গ্লু গানের দাম ২৫০-৩০০ টাকা। আঠা প্রতি স্টিক ১০ টাকা। একবার একটা গ্লু গান কিনলে সব ধরনের হস্তশিল্পের কাজে ব্যবহার করতে পারবেন। মোটামুটি ১০০ টাকার লেস কেনা হয়েছে। হার্ডওয়্যারের দোকান থেকে একটা ১০ টাকার চিকন পাইপ কিনে পছন্দসই দৈর্ঘ্যে কেটে নিতে পারেন। একটা গ্লিটার টিউব দাম পড়ে ৩০-৫০ টাকা।

বিজ্ঞাপন
জীবনযাপন থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন