default-image

সিডনির বাংলাদেশি-অধ্যুষিত এলাকা লাকেম্বা। প্রায় ৫০ হাজার বাঙালির হৃদয়ের মোহনা ও প্রাণের আবাসস্থল এই লাকেম্বা। সিডনিপ্রবাসী বাংলাদেিশ সফল ব্যবসায়ীদের মধ্যে লাকেম্বার কয়েকটি ব্যবসাপ্রতিষ্ঠানের কর্ণধার ও লাকেম্বা বেলমোর চেম্বার্স অব কমার্সের সাধারণ সম্পাদক মোহাম্মদ শাহে জামান। তিনি বাংলাদেশ-অস্ট্রেলিয়া বিজনেস কাউন্সিলের (ABBC) নির্বাহী সদস্য। ক্যানটাবুরি সিটি কাউন্সিলের সঙ্গেও প্রত্যক্ষভাবে জড়িত তিনি৷ দীর্ঘদিন ধরে কাজ করছেন। ক্যানটাবুরি সিটি কাউন্সিলর মাইকেল হাওয়াত চেম্বার্স অব কমার্সের সম্মানিত সভাপতি।

স্বদেশের মাটি থেকে হাজার হাজার মাইল দূরে ভিনদেশে ভিন্ন ভাষা, সংস্কৃতি, আচার-আচরণ, নিয়ম-কানুন মেনে সুশৃঙ্খল জীবনযাপন করা বেশ চ্যালেঞ্জিং। সময়ের প্রেক্ষাপটে বাঙালিরা তাঁদের শিক্ষা, বুদ্ধিদীপ্ত আচরণ, মেধা মনন, ধৈর্য আর সহনশীলতা দিয়ে আজ বিশ্ব দরবারে প্রতিষ্ঠিত। সিডনির লাকেম্বা-বেলমোরের ব্যবসায়ীদের নিরাপত্তা, বিভিন্ন ব্যবসায়িক সুযোগ-সুবিধা, সমস্যা, প্রতিকার ও উত্তরণের বিভিন্ন দিক নিয়ে কাজ করে থাকেন সংগঠনটির সঙ্গে জড়িত ব্যক্তিরা৷

default-image

আগামী ২৮ মার্চ অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে অস্ট্রেলিয়ার নিউ সাউথ ওয়েলস রাজ্যের (স্টেট) নির্বাচন। এই নির্বাচনে সিডনির ক্যানটাবুরি এলাকায় অস্ট্রেলিয়ান লিবারেল পার্টি থেকে মনোনয়ন পেয়েছেন ক্যানটাবুরি সিটি কাউন্সিলর মাইকেল হাওয়াত। লেবার পার্টি থেকে জিহাদ ডিব। এই নির্বাচনকে কেন্দ্র করে প্রার্থীদের মধ্যে শুরু হয়েছে ব্যাপক প্রস্তুতি৷ এরই ধারাবাহিকতায় লিবারেল পার্টির মাইকেল হাওয়াত লাকেম্বায় গণসংযোগ করে গেলেন৷ এই আসন থেকে তিনি লিবারেলের প্রার্থী ছিলেন। লেবারের নিশ্চিত ভোটব্যাংক হিসেবে খ্যাত লাকেম্বায় Hightest vote swings করেন তিনি।
এই প্রথমবার নিউ সাউথ ওয়েলস রাজ্য নির্বাচনে লাকেম্বায় লেবার ও লিবারেল উভয় দলে বাংলাদেশিদের সতঃস্ফূর্তভাবে কাজ করতে দেখা যাচ্ছে। এখানে লেবার পার্টি বেশ সুপরিচিত ও জনপ্রিয়। কয়েকজন বাঙালি তাঁদের মেধা, সততা ও পরিশ্রমের ফলে অস্ট্রেলিয়ান লিবারেল পার্টি ইতিমধ্যে ক্যানটাবুরিতে শক্ত অবস্থান তৈরি করতে সক্ষম হয়েছে। বাংলাদেশিদের মধ্যে লিবারেল পার্টির নেতা হিসেবে পরিচিত হয়ে উঠছেন মোহাম্মদ শাহে জামান।
প্রথম অবস্থায় িলবারেল পার্টি থেকে মনোনয়ন পেয়েছিলেন বাংলাদেিশ ব্যবসায়ী রশিদ ভুঁইয়া। পরে দুইবারের বিজয়ী মাইকেল হাওয়াত প্রার্থী হওয়ার ইচ্ছে প্রকাশ করলে তিনি মনোনয়ন প্রত্যাহার করেন। লিবারেল পার্টির উচ্চপর্যায়ের নেতারা এ জন্য তাঁর ভূয়সী প্রশংসা করেন। এতে এখানে বাংলাদে​শি কমিউনিটির অবস্থান আরও মজবুত হয়েছে।
মোহাম্মদ শাহে জামানের নেতৃতে ৫ ফেব্রুয়ারি বর্তমান ক্যানটাবুরি সিটি কাউন্সিলর মাইকেল হাওয়াত লাকেম্বা পরিদর্শন করেন। এ সময় তিনি স্থানীয় ব্যবসায়ীদের সঙ্গে তাঁদের সুযোগ-সুবিধা, উন্নতি, পর্যাপ্ত গাড়ি পার্কিং, মানসম্মত বাংলা স্কুল প্রতিষ্ঠা এবং ভবিষ্যৎ পরিকল্পনা নিয়ে কথা বলেন। তিনি বলেন, ‘গত ২৫ বছরের অভিজ্ঞতা থেকে তাঁর উপলদ্ধি লাকেম্বাবাসী বাংলাদেশিরা সবাই কর্মঠ ও কঠোর পরিশ্রমের মাধ্যমে উপার্জন করায় ব্যস্ত। আমি সব সময় আপনাদের পাশে আছি৷ ভবিষ্যতেও আমার ক্ষমতার সর্বোচ্চ ব্যবহারের মাধ্যমে আপনাদের যাবতীয় সমস্যার সমাধানের চেষ্টা করব।’ গণসংযোগ শেষে বাংলাদেিশ রেস্তোরাঁ খুশবোতে আহার করেন।

বিজ্ঞাপন
দূর পরবাস থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন