default-image

সৌদি আরবের রিয়াদে বাংলাদেশ দূতাবাসে যথাযথ মর্যাদা ও নানা কর্মসূচির মাধ্যমে মহান স্বাধীনতা ও জাতীয় দিবস উদ্‌যাপন এবং গণহত্যা দিবস পালন করেছে। আলাদা দুটি কর্মসূচির মাধ্যমে আজ ২৬ মার্চ স্বাধীনতা ও জাতীয় দিবস উদ্‌যাপন এবং গতকাল ২৫ মার্চ ভাবগাম্ভীর্যে গণহত্যা দিবস পালন করা হয়।

স্বাধীনতা দিবস উদ্‌যাপন

আজ সকালে দূতাবাস চত্বরে জাতীয় সংগীত পরিবেশনের মাধ্যমে পতাকা উত্তোলন করে স্বাধীনতা দিবসের অনুষ্ঠানমালার সূচনা করা হয়। পতাকা উত্তোলন দেশটিতে নিযুক্ত রাষ্ট্রদূত গোলাম মসীহ। এ সময় দূতাবাসের সকল কর্মকর্তা-কর্মচারী ও বাংলাদেশি অভিবাসীরা উপস্থিত ছিলেন।

আলোচনা অনুষ্ঠানে রাষ্ট্রদূত গোলাম মসীহ গভীর শ্রদ্ধায় স্মরণ করেন মহান মুক্তিযুদ্ধের বীর শহীদদের। তিনি স্মরণ করেন জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানকে। তিনি বলেন, বঙ্গবন্ধুর স্বাধীনতা ঘোষণার আহ্বানে সাড়া দিয়ে দীর্ঘ ৯ মাসের সশস্ত্র সংগ্রামের মাধ্যমে আমাদের বিজয় অর্জিত হয়েছিল। স্বাধীনতার ৪৮ বছর পর বঙ্গবন্ধুকন্যা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার গতিশীল নেতৃত্বে বাংলাদেশ আজ উন্নয়নের রোল মডেলে পরিণত হয়েছে।

default-image

রাষ্ট্রদূত বলেন, প্রধানমন্ত্রীর দূরদর্শী নেতৃত্বের কারণে সৌদি আরবের সঙ্গে বাংলাদেশের সম্পর্ক আজ অন্য উচ্চতায় পৌঁছেছে। বাংলাদেশে সৌদি আরবের বিপুল পরিমাণ বিনিয়োগের সুযোগ সৃষ্টি হয়েছে। গোলাম মসীহ বলেন, সৌদি আরবে বসবাসরত প্রবাসী বাংলাদেশিদের বিভিন্ন রকম সেবা দ্রুত ও সহজে প্রদান করার জন্য দূতাবাস আন্তরিকভাবে কাজ করে যাচ্ছে। তিনি সৌদি অভিবাসী বাংলাদেশিদের দ্রুত পাসপোর্ট সেবা প্রদানের জন্য প্রচেষ্টা অব্যাহত রয়েছে বলে জানান।

দূতাবাসের মিশন উপপ্রধান ড. মো. নজরুল ইসলাম বলেন, বাংলাদেশের সঙ্গে সৌদি আরবের ব্যবসা, বাণিজ্য বৃদ্ধির পাশাপাশি বিভিন্ন ক্ষেত্রে সহযোগিতা জোরদার হয়েছে। তিনি উল্লেখ করেন, গত ৭ মার্চ সৌদি আরবের বাণিজ্য ও অর্থমন্ত্রীর বাংলাদেশ সফরের মাধ্যমে দেশে সৌদি বিনিয়োগের সুযোগ সৃষ্টি হয়েছে।

এ ছাড়া বাংলাদেশ কমিউনিটির নেতারা স্বাধীনতার তাৎপর্য তুলে ধরে বক্তব্য দেন। আলোচনা শেষে মহান মুক্তিযুদ্ধে বীর শহীদদের আত্মার মাগফিরাত কামনা করে বিশেষ দোয়া করা হয়।

default-image

উল্লেখ্য, স্বাধীনতা দিবস উপলক্ষে দূতাবাসের তত্ত্বাবধানে সৌদি আরবের দুটি ইংরেজি দৈনিক পত্রিকা ও একটি আরবি পত্রিকায় বিশেষ ক্রোড়পত্র প্রকাশ করা হয়েছে। এ ছাড়া বিভিন্ন দেশের কূটনৈতিক ও সৌদি আরবের উচ্চপদস্থ কর্মকর্তা ও সম্মানিত নাগরিকদের জন্য রিয়াদের কূটনৈতিক পাড়ায় সংবর্ধনার আয়োজন করা হয়েছে। অনুষ্ঠানে দিবসটি উপলক্ষে প্রদত্ত রাষ্ট্রপতি, প্রধানমন্ত্রী, পররাষ্ট্রমন্ত্রী ও পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রীর বাণী পাঠ করা হয়।

গণহত্যা দিবস পালন

বাংলাদেশ দূতাবাসে যথাযথ মর্যাদা ও ভাবগাম্ভীর্যে গণহত্যা দিবস পালন করেছে। গতকাল ২৫ মার্চ সন্ধ্যায় দূতাবাস চত্বরে এ উপলক্ষে এক অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়।

অনুষ্ঠানের শুরুতে ১৯৭১ সালের ২৫ মার্চ পাকিস্তানের হানাদার সেনাবাহিনী কর্তৃক সংঘটিত ভয়াবহ গণহত্যাকে স্মরণ করে দূতাবাস প্রাঙ্গণে মোমবাতি প্রজ্বালন করা হয়। রাষ্ট্রদূত গোলাম মসীহ মোমবাতি প্রজ্বালন করেন। দূতাবাসের কর্মকর্তা-কর্মচারী ও স্থানীয় বাংলাদেশি কমিউনিটির নেতারা এ সময় মোমবাতি প্রজ্বালন করে গভীর শ্রদ্ধায় স্মরণ করেন ২৫ মার্চ কালরাতের বীর শহীদদের। এ ছাড়া দাঁড়িয়ে এক মিনিট নীরবতাও পালন করা হয়।

দিবসটি পালন উপলক্ষে বাংলাদেশের সঙ্গে মিল রেখে দূতাবাসের সব বাতি বন্ধ করে এক মিনিট প্রতীকী ব্ল্যাকআউট পালন করা হয়। এ ছাড়া রাষ্ট্রপতি ও প্রধানমন্ত্রীর বাণী পাঠ করা হয়।

default-image

আলোচনায় রাষ্ট্রদূত গোলাম মসীহ বলেন, পৃথিবীর ইতিহাসে এটি একটি জঘন্যতম নির্মম হত্যাকাণ্ড। তিনি বলেন, দিবসটির আন্তর্জাতিক স্বীকৃতির জন্য প্রচেষ্টা অব্যাহত রয়েছে। রাষ্ট্রদূত গভীর শ্রদ্ধায় স্মরণ করেন মহান মুক্তিযুদ্ধের বীর শহীদদের।

আলোচনা শেষে মহান মুক্তিযুদ্ধের শহীদদের আত্মার মাগফিরাত কামনা করে বিশেষ দোয়া ও মোনাজাত করা হয়।

এ ছাড়া দিবসটি উপলক্ষে দূতাবাসের অডিটরিয়ামে মুক্তিযুদ্ধকালে সংঘটিত ইতিহাসের ভয়াবহ গণহত্যা নিয়ে নির্মিত চলচ্চিত্র ‘স্টপ জেনোসাইড’ প্রদর্শন করা হয়। বিজ্ঞপ্তি

বিজ্ঞাপন
দূর পরবাস থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন