default-image

টোকিওর বাংলাদেশ দূতাবাসে কর্মরত কর্মকর্তা-কর্মচারীদের জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের আদর্শ ও নীতি অনুসরণ করে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা–ঘোষিত ‘রূপকল্প-২০২১’ ও ‘রূপকল্প-২০৪১’ বাস্তবায়নে অধিকতর নিষ্ঠা ও দায়িত্বশীলতার সঙ্গে কাজ করার আহ্বান জানিয়েছেন নবনিযুক্ত রাষ্ট্রদূত শাহাবুদ্দিন আহমদ। ২২ সেপ্টেম্বর টোকিও মিশনের সহকর্মীদের সঙ্গে এক মতবিনিময় অনুষ্ঠানে তিনি এই আহ্বান জানান।

default-image

মতবিনিময় অনুষ্ঠানের শুরুতে রাষ্ট্রদূত সর্বকালের সর্বশ্রেষ্ঠ বাঙালি জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের প্রতিকৃতিতে ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা জানান। পরে বঙ্গবন্ধুসহ ১৯৭৫ সালের ১৫ আগস্ট নির্মমভাবে নিহত বঙ্গমাতা ফজিলাতুন্নেছা মুজিব এবং বঙ্গবন্ধু পরিবারের সব সদস্য, জাতীয় চার নেতা, মুক্তিযুদ্ধের ৩০ লাখ শহীদ ও যুদ্ধাহত মুক্তিযোদ্ধা এবং সম্ভ্রম হারানো দুই লাখ মা-বোনের অবদানের কথা শ্রদ্ধাভরে স্মরণ করে দোয়া-মোনাজাত করা হয়। এ সময় মহামান্য রাষ্ট্রপতি ও মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর সুস্বাস্থ্য কামনা এবং দেশের সমৃদ্ধি প্রত্যাশা করেও দোয়া করা হয়।

বিজ্ঞাপন

রাষ্ট্রদূত বলেন, জাপান বাংলাদেশের পরম বন্ধুরাষ্ট্র এবং দুই দেশের মধ্যে নিবিড় সম্পর্ক বিদ্যমান। ১৯৭১ সালের ১৬ ডিসেম্বর বিজয় অর্জনের পরপরই, অর্থাৎ ১৯৭২ সালের ১০ ফেব্রুয়ারি বাংলাদেশকে স্বীকৃতি দেয় জাপান। তিনি বাংলাদেশ-জাপান সম্পর্ক উন্নয়ন, দেশে জাপানি বিনিয়োগ বৃদ্ধি ও বাণিজ্য সম্প্রসারণ, শ্রমবাজারের প্রসার এবং প্রবাসীদের কল্যাণে কাজ করার দৃঢ় অভিপ্রায় ব্যক্ত করেন এবং সংশ্লিষ্ট সবার সহযোগিতা কামনা করেন।

default-image

জাপান সরকারের আইন মোতাবেক ১৪ দিন সঙ্গরোধকাল অতিবাহিত হওয়ার পর শাহাবুদ্দিন আহমদ ২২ সেপ্টেম্বর দাপ্তরিক কাজকর্ম শুরু করেন। উল্লেখ্য, তিনি ১১ সেপ্টেম্বর সরকারি নিয়ম অনুযায়ী আনুষ্ঠানিকভাবে রাষ্ট্রদূত হিসেবে দায়িত্বভার গ্রহণ করেন।

তথ্য: বাংলাদেশ দূতাবাস, টোকিও, জাপান

মন্তব্য পড়ুন 0