default-image

জেদ্দায় এবার আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস নতুন মাত্রা পেয়েছে। এবারের অনুষ্ঠানে অংশগ্রহণ করেন ‘আমার ভাইয়ের রক্তে রাঙানো অমর একুশে ফেব্রুয়ারি, আমি কি ভুলিতে পারি’ কালজয়ী গানের রচয়িতা ও ভাষাসৈনিক আবদুল গাফফার চৌধুরী। এক মাস ধরেই জেদ্দার বাংলাদেশি কমিউনিটি আবদুল গাফফার চৌধুরীকে বরণ করে নিতে অধীর আগ্রহে ছিল৷ তাঁর উপস্থিতিতে অত্যন্ত ভাবগাম্ভীর্যের সঙ্গে অনুষ্ঠিত হয়েছে এবারের ভাষা দিবসের অনুষ্ঠান। ২১ ফেব্রুয়ারি শনিবার স্থানীয় সময় সকাল নয়টায় জেদ্দার বাংলাদেশ কনস্যুলেটে এবং বাংলা ও ইংলিশ স্কুলে দিবসটি পালিত হয়।

default-image

সকালে কনস্যুলেট ভবনে জাতীয় পতাকা অর্ধনমিত করেন কনসাল জেনারেল এ কে এম শহিদুল করিম ও ভাষাসৈনিক আবদুল গাফফার চৌধুরী। শহীদ মিনারের রেপ্লিকায় পুষ্পস্তবক অর্পণের মাধ্যমে শহীদদের প্রতি প্রথমে শ্রদ্ধা নিবেদন করেন কনসাল জেনারেল৷ এরপর বাংলাদেশি বিভিন্ন রাজনৈতিক ও সামাজিক সংগঠনের পক্ষ থেকে পুষ্পস্তবক অর্পণ করা হয়।

default-image

আলোচনা অনুষ্ঠানে বক্তব্য দেন আবদুল গাফফার চৌধুরী ও এ কে এম শহিদুল করিম। এর আগে আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস উপলক্ষে রাষ্ট্রপতি, প্রধানমন্ত্রী ও পররাষ্ট্রমন্ত্রীর প্রদত্ত বাণী পাঠ করে শোনানো হয়৷ বাণীগুলো পাঠ করেন মোকাম্মেল হোসেন, আছিয়া খাতুন ও রেজা ই রাব্বি।
পরে বাংলা ও ইংলিশ স্কুলে এক মনোজ্ঞ সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়।

বিজ্ঞাপন
দূর পরবাস থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন