বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

কোভিড-১৯ সংক্রমণের সবচেয়ে ঝুঁকিপূর্ণ প্রদেশ কুইবেকে থার্টি ফাস্ট নাইটে হঠাৎ করে কারফিউ জারি করা হয়। কানাডার অন্যতম বড় শহর মন্ট্রিলে রাত ১০টায় অনেকটা তাৎক্ষণিকভাবে কারফিউ জারি করার কারণে মানুষ ঘর থেকে বের হতে পারেনি। যারা বের হয়েছে, তারা ঘরে ফিরে এসেছে। এ উৎসবের দিন যারা কারফিউ অমান্য করেছে, তাদের গ্রেপ্তার করা হয়েছে। সারা দেশে থার্টি ফাস্ট নাইট ছিল যেন মৃত্যুপুরী। যে যার মতো দিনটি কাটিয়েছে বাসায়।

কানাডায় প্রতিদিন বেড়ে চলছে অমিক্রনে আক্রান্ত মানুষের সংখ্যা। ১ জানুয়ারি অন্টারিও প্রদেশে মোট আক্রান্ত মানুষের সংখ্যা ছিল ১৮ হাজার ৪৫৫। কুইবেক প্রদেশে ওই দিন আক্রান্ত হয়েছে ১৭ হাজার ১২২ জন। অন্য প্রদেশগুলোয় আক্রান্ত মানুষের সংখ্যা প্রতিদিন আগের রেকর্ড ভাঙছে। মানুষের মধ্যে নতুন করে আতঙ্ক সৃষ্টি হয়েছে। কানাডায় এখন হলিডে সিজন চলছে, কিন্তু সরকারি নির্দেশের কারণে অনেকে হলিডে ট্যুর বাদ দিয়ে বাসায় অবস্থান করছে।

অনেক প্রদেশে দীর্ঘ সময় অপেক্ষা করতে হচ্ছে করোনা টেস্ট করার জন্য। অনেকে দীর্ঘ লাইনের কারণে জ্বর, সর্দি ও কাশি হওয়ার পরও টেস্ট করতে যাচ্ছে না। বাসায় অবস্থান করছে। সব মিলিয়ে এ বছর কানাডায় মানুষ ভালো ছিল না নতুন বছরের প্রথম দিনটিতে।

দূর পরবাস থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন