default-image

জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ১৯৭১ সালের ৭ মার্চের ঐতিহাসিক ভাষণের তাৎপর্য আলোচনার উদ্দেশ্যে বাংলাদেশ দূতাবাস, দ্য হেগ এক আলোচনা সভার আয়োজন করে। ৭ মার্চের ঐতিহাসিক ভাষণের পটভূমি ও মহান মুক্তিযুদ্ধের প্রভাব শীর্ষক আলোচনায় বাংলাদেশ দূতাবাসের কর্মকর্তা-কর্মচারী, নেদারল্যান্ডসে বসবাসরত প্রবাসী বাংলাদেশিরা অংশগ্রহণ করেন।

অনুষ্ঠানের শুরুতেই ৭ মার্চ উপলক্ষে রাষ্ট্রপতি ও প্রধানমন্ত্রীর বাণী পাঠ করা হয়। ঐতিহাসিক ভাষণের পটভূমি-সম্পর্কিত একটি ভিডিওচিত্র এবং ৭ মার্চের ঐতিহাসিক ভাষণটি উপস্থাপন করা হয়।

বাংলাদেশ দূতাবাসের কাউন্সেলর ও চার্জ দ্য অ্যাফেয়ার্স খন্দকার এহতেশামুল কবির তাঁর বক্তব্যে জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ৭ মার্চের ভাষণকে বাঙালি জাতির মুক্তির সনদ হিসেবে আখ্যায়িত করেন। তিনি বলেন, ‘ইউনেসকো জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ১৯৭১ সালের ৭ মার্চের ঐতিহাসিক ভাষণটিকে পৃথিবীর গুরুত্বপূর্ণ দালিলিক ঐতিহ্য হিসেবে মর্যাদা দিয়েছে, যা আমাদের সকলের জন্য এক বিরল সম্মান বয়ে এনেছে। যুগান্তকারী এই ভাষণ মুক্তিযুদ্ধকালীন সকলের জন্য উজ্জীবনী শক্তি হিসেবে কাজ করেছে।’

বাংলাদেশ দূতাবাস, দ্য হেগ ‌‘মুজিব বর্ষ’ উপলক্ষে বছরব্যাপী বিভিন্ন অনুষ্ঠানের উদ্যোগ গ্রহণ করেছে। ১৭ মার্চ জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ওপর একটি আলোকচিত্র প্রদর্শনীর মাধ্যমে ‘মুজিব বর্ষ’ উদ্‌যাপন শুরু হবে। প্রেস বিজ্ঞপ্তি।

বিজ্ঞাপন
মন্তব্য পড়ুন 0