default-image

ফ্রান্সের রাজধানী প্যারিসে ইউনেসকো সদর দপ্তরে বৌদ্ধ ধর্মাবলম্বীদের প্রধান ধর্মীয় উৎসব ‘Internatinal Vesak Day’ শুভ বুদ্ধপূর্ণিমা উদ্‌যাপিত হয়েছে। ১৯৯৯ সালে জাতিসংঘের সাধারণ অধিবেশনে দিনটিকে একটি আন্তর্জাতিক দিবস হিসেবে ঘোষণা করা হয়। তাই দিনটিকে united nation day of Vesak (UNDV) বলা হয়। ইউনেসকো ও ফ্রান্সের শ্রীলঙ্কা দূতাবাসের যৌথ উদ্যোগে দিবসটি উদ্‌যাপন করা হয়েছে।

default-image

মহামানব গৌতম বুদ্ধের ত্রিস্মৃতিবিজড়িত শুভ বুদ্ধপূর্ণিমার এই অনুষ্ঠানে বরাবরের মতো বাংলাদেশ আনুষ্ঠানিকভাবে অংশগ্রহণ করে।

default-image

প্যারিসের ইউনেসকো ভবনে গত বৃহস্পতিবার (২৩ মে) স্থানীয় সময় সকাল ৯টায় বাতি প্রজ্বালনের মাধ্যমে বুদ্ধপূর্ণিমা উদ্‌যাপনের শুভ সূচনা হয়। বিকেলে ৩০ মিনিটের জন্য খণ্ডকালীন ভাবনা করা হয়। ভাবনা পরিচালনা করেন ইন্টারন্যাশনাল বুড্ডিস্ট সেন্টারের পরিচালক ভদন্ত চন্দারত্না নায়ক থের। এরপর the Buddha's teachings issued in the Tripitaka (the whole text of the Buddhist canon) for building lasting peace through multicultural education and communication শীর্ষক সিম্পোজিয়াম অনুষ্ঠিত হয়।

সিম্পোজিয়ামে আলোচনায় অংশ নেন শ্রীলঙ্কার সাবেক মন্ত্রী আটুডা সিনেভিরাটনে, যুক্তরাজ্যের স্পা বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপক মাহিন্দ ডিগাল ও অধ্যাপক উটে হাসকেন প্রমুখ। বক্তব্য দেন ফ্রান্সে নিযুক্ত শ্রীলঙ্কার রাষ্ট্রদূত বোধি কে আতুডাসহ বিভিন্ন দেশের ভিক্ষু ও পণ্ডিতেরা। তাঁরা বিভিন্ন বিষয়ে আলোচনায় অংশ নেন।

উপস্থিত ছিলেন ইউনেসকোয় বাংলাদেশের স্থায়ী প্রতিনিধিসহ ভারত, ভুটান, শ্রীলঙ্কা, থাইল্যান্ড, লাওস, কম্বোডিয়া, চীন, কোরিয়া, জাপান, ভিয়েতনাম, মিয়ানমার, ফিলিপাইন, নেপাল, মালদ্বীপ ও ইন্দোনেশিয়ার রাষ্ট্রদূত, প্রতিনিধিসহ আন্তর্জাতিক পরিমণ্ডলের ভিক্ষু সংঘ ও বৌদ্ধ নেতারা।

অনুষ্ঠানে বাংলাদেশ দূতাবাস নানা মুখরোচক খাবারের আয়োজন করে।

সেমিনার শেষে ফ্রান্স, জাপান, শ্রীলঙ্কা, চায়না, নেপাল, থাইল্যান্ড, কম্বোডিয়া ও ভারতের শিল্পীদের পরিবেশনায় এক সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান আয়োজন করা হয়।

default-image
বিজ্ঞাপন
মন্তব্য পড়ুন 0