default-image

করোনা মহামারির কারণে সামাজিক অনুষ্ঠানে নিদিষ্টসংখ্যক অতিথি উপস্থিত থাকতে পারেন। তা ছাড়া যাঁরা ডরমিটরিতে বাস করেন, তাঁদের অনেকেই ডরমিটরি থেকে বের হতে পারেন না৷ তাই এবারের মে দিবস উদ্‌যাপনের জন্য অনলাইন প্ল্যাটফর্ম বেছে নেন সিঙ্গাপুর বাংলাদেশ সোসাইটির ম্যানেজমেন্ট কমিটি (এসবিএস)।

এসবিএসের উদ্যোগে অনলাইনভিত্তিক এমন সুন্দর আয়োজনকে স্বাগত জানান আমন্ত্রিত অতিথিরা। এ সময় অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন এসবিএসের বর্তমান প্রেসিডেন্ট জহিরুল ইসলাম, সাবেক প্রেসিডেন্ট জিল্লুর রহমান সিদ্দিকী, ওয়েলফেয়ার সেক্রেটারি হোসেন মোহাম্মদ দেলোয়ার। তা ছাড়া উপস্থিত ছিলেন সিঙ্গাপুরপ্রবাসী রিপন চৌধুরী, শরীফ উদ্দিন, ওমর ফারুকী, কবির হোসেন, জাকির হোসেন খোকন ও নীল সাগর।

বিজ্ঞাপন

শুরুতে মে দিবসের তাৎপর্য ও গুরুত্ব তুলে ধরেন ক্যাপ্টেন এমদাদ হোসেন। তিনি সিঙ্গাপুরপ্রবাসী বাংলাদেশি ভাইদের প্রতি কৃতজ্ঞতা জানিয়ে বলেন, ‘আপনারা প্রবাসে ভালো কাজ করে বিদেশে দেশের নাম উজ্জ্বল করছেন। আশা করি, আপনাদের এ ভালো কাজ অব্যাহত থাকবে।’ ওয়েলফেয়ার সেক্রেটারি হোসেন মোহাম্মদ দেলোয়ার বলেন, ‘আমরা আমাদের প্রবাসী ভাইদের কর্মকাণ্ডে গর্বিত। আমরা তাঁদের সমস্যার কথা জানতে চাই এবং প্রবাসী ভাইদের পাশে দাঁড়াতে চাই।’

কবির হোসেন তাঁর বক্তব্যে প্রবাসীদের দুটি সমস্যার কথা তুলে ধরেন। তিনি বলেন, ‘আমি একজন নিয়োগকর্তা হিসেবে প্রবাসীদের দুটি সমস্যার কথা জানি। সমস্যা দুটি হলো, পাসপোর্ট রিনিউ সমস্যা ও আইপিএ সত্যায়ন সমস্যা।’

এসবিএসের সাবেক প্রেসিডেন্ট জিল্লুর রহমান বলেন, ‘প্রবাসে আমরা একেকজন একেকটা বাংলাদেশ। আমাদের উচিত সিঙ্গাপুরে এই দেশের আইনকানুন মেনে চলা। আমরা যেন প্রবাসে দেশের রাজনীতি টেনে না আনি। কারণ, সিঙ্গাপুরে রাজনীতি নিষিদ্ধ।’ তা ছাড়া তিনি সবাইকে পড়ার প্রতি আহ্বান জানান।

এরপর শরীফ উদ্দিন, রিপন চৌধুরী, জাকির হোসেন, ওমর ফারুকী তাঁদের বক্তব্য তুলে ধরেন। এ সময় তাঁরা প্রবাসীদের সঙ্গে হাইকমিশন ও এসবিএসের দূরত্বের কথা জানান। তাঁরা চান, এসবিএস প্রবাসীদের সহযোগীয় এগিয়ে আসুক। তা ছাড়া তাঁরা প্রবাসীদের কয়েকটি সমস্যার কথা তুলে ধরেন।

বিজ্ঞাপন

সমাপনী বক্তব্যে প্রেসিডেন্ট জহিরুল ইসলাম বলেন, ‘আপনাদের সমস্যাগুলো আমি নোট করে রেখেছি। আশা করি, আমরা আপনাদের কথাগুলো যথাযথ কর্তৃপক্ষের নিকট পৌঁছে দেব।’ এ সময় তিনি প্রবাসীদের ভালো কাজের প্রশংসা করে বলেন, ‘আপনাদের এ ভালো কাজগুলো আমাকে মুগ্ধ করেছে।’

এ সময় প্রেসিডেন্ট জহিরুল ইসলাম ওয়েলফেয়ার সেক্রেটারি হোসেন মোহাম্মদ দেলোয়ারকে কল করে আনুষ্ঠানিকভাবে হেল্পলাইন নম্বর উদ্বোধন করেন। এ সময় তিনি বলেন, ‘প্রবাসী ভাইদের কল্যাণে এ হেল্পলাইন চালু করা হলো। আপনারা ৯০৮৫২২০৫ নম্বরে কল করে আপনাদের কথা জানান। আমরা চেষ্টা করব আপনাদের সহযোগিতায় এগিয়ে আসার।’

পর্দার আড়ালে অনুষ্ঠানটি সফল করার পেছনে কাজ করেছিল এসবিএসের ওয়েলফেয়ার কমিটি এবং সিঙ্গাপুরে অবস্থানরত চিকিৎসক ড. মুনতাসির মান্নান চৌধুরী। তিনি বলেন, ‘প্রবাসীদের ভালো কাজগুলো এবং তাদের সমস্যাগুলো তুলে ধরাই এ অনুষ্ঠানের উদ্দেশ্য ছিল এবং আশা করি, আমরা তা করতে পেরেছি।’

দূর পরবাস থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন