default-image

বাংলাদেশের চলমান সন্ত্রাসের বিরুদ্ধে লস অ্যাঞ্জেলেসে প্রতিবাদ সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। ১ ফেব্রুয়ারি সন্ধ্যায় বাংলাদেশি-অধ্যুষিত ভাসানী মিলনায়তনে এই প্রতিবাদ সভার আয়োজন করা হয়। গত ৫ জানুয়ারি থেকে পেট্রলবোমায় নিহত ব্যক্তিদের স্মরণে এক মিনিট নীরবে দাঁড়িয়ে সম্মান প্রদর্শনের মাধ্যমে প্রতিবাদ সভার শুরু হয়। বিশেষ দোয়া মোনাজাত পরিচালনা করেন মিয়া আব্দুর রব। জাতীয় সংগীতের পর বক্তারা চলমান সন্ত্রাস-নৈরাজ্যের সমালোচনা করেন।
প্রতিবাদ সভায় শওকত চৌধুরী চলমান সন্ত্রাস বন্ধ করার জন্য অনুরোধ করেন। তোফাজ্জল জাহান তার বক্তব্যে বর্তমান সন্ত্রাস ও মানুষ পুড়িয়ে মারার বিরুদ্ধে আন্তর্জাতিক সন্ত্রাসবিরোধী আইন প্রয়োগের জন্য সরকারের দৃষ্টি আকর্ষণ করেন। জামাল হোসাইন তাঁর বক্তব্যে পেট্রলবোমা মেরে সাধারণ মানুষ হত্যার কড়া প্রতিবাদ করেন এবং কঠোর হস্তে তা দমনের আহ্বান জানান। শাহ আলম খান চৌধুরী তাঁর বক্তব্যে আরও বড় ধরনের প্রতিবাদ সভার আয়োজন করার জন্য আহ্বান জানান। ফিরোজ আলম তাঁর বক্তব্যে বিএনপির রাজনীতির ভুলগুলো তুলে ধরে বলেন, তারা এখন যা করছে তা শুধু সন্ত্রাস। এখানে রাজনীতির চিহ্নমাত্র নেই। কবি মুকতাদির চৌধুরী বর্তমান বাংলাদেশে রাজনীতির নামে অপরাজনীতির কঠোর সমালোচনা করেন। হাবিব আহমেদ তাঁর বক্তব্যে রাজনীতির নামে নৈরাজ্য বন্ধ করার আহ্বান জানান। মোস্তাইন দারা বিল্লাহ তাঁর বক্তব্যে খালেদা জিয়ার রাজনৈতিক অপরিপক্বতার দিকগুলো তুলে ধরেন। সভায় আরও বক্তব্য দেন ডা. রবিউল আলম, মিজানুর রহমান প্রমুখ৷ সভা পরিচালনা করেন তোফাজ্জল জাহান। ক্যালিফোর্নিয়া স্টেট আওয়ামী লীগের উদ্যোগে এ সভার আয়োজন করা হয়৷

বিজ্ঞাপন
দূর পরবাস থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন