default-image

আমরা সবাই জানি ভারত আয়তনে এবং জনসংখ্যায় পৃথিবীর অন্যতম একটি বৃহৎ দেশ। ২০১৯ সালের সমীক্ষা অনুযায়ী ভারতের জনসংখ্যা ১৩৬ কোটিরও বেশি। আপনাদের জানার জন্য আরও বলছি, ভারতের ২৯টি রাজ্য এবং ৭টি টেরিটোরি আছে এবং এগুলোর অধিকাংশই আয়তনে বাংলাদেশের চেয়ে বড়। ভারতের এক রাজ্য থেকে অন্য রাজ্যে গেলে মানুষের ভাষা, সংস্কৃতি, খাবার, শারীরিক অবয়বসহ সবকিছুই বদলে যায়।

এক সপ্তাহ ধরে বিশ্ব মিডিয়া এবং বাংলাদেশের মিডিয়ায় ভারতের করোনা পরিস্থিতির যেই ভয়ানক চিত্র দেখানো হচ্ছে সেটা কেবলই দিল্লির এবং বিশেষত দিল্লির কিছু হাসপাতালের চিত্র। সত্যি কথা বলতে ভারতে স্বাভাবিক সময়েও সরকারি হাসপাতালগুলোতে এমন ভিড় লেগে থাকে। কারণ, ভারতের মতো একটা জনবহুল দেশে যেখানে অধিকাংশ মানুষই তাদের সরকারি হসপিটালের দ্বারস্থ হওয়া ছাড়া উপায় নেই।

পড়াশোনার সুবাদে ভারতেই আছি বলে, টিভিতে–পত্রিকায় খবর দেখে–পড়ে আমার পরিবার, বন্ধু এবং শুভাকাঙ্ক্ষীরা অসংখ্যবার খোঁজ নিয়েছে সাবধানে থাকতে বলেছেন। তাদের সঙ্গে কথা বলে তাদের গলার স্বরেই বুঝতে পেরেছি তারা কতটা আতঙ্কিত এই খবর দেখে এবং এ ঘটনা শুধু আমার সঙ্গে হয়েছে তা নয় বরং অন্য বাংলাদেশিসহ অন্য দেশ থেকে পড়তে আসা বন্ধুদেরও একই অবস্থা। সবাই ফোন, মেসেজ দিয়ে বারবার খবর নিচ্ছে, সাবধানে থাকতে বলছে।

এবার চলেন আমার গত কিছুদিনের রোজনামচা বলি। বর্তমানে আমি আছি হায়দরাবাদে আমার বিশ্ববিদ্যালয়ের ইন্টারন্যাশনাল স্টুডেন্ট হোস্টেলে। গত সপ্তাহেই আমি দার্জিলিং ভ্রমণ করে কলকাতায় বন্ধুর বাসায় কিছুদিন কাটিয়ে ওডিশা হয়ে হায়দরাবাদে ফিরেছি পাঁচ দিন আগে। হায়দরাবাদে গতকালকেও আমরা কয়েকজন বাংলাদেশি মিলে ইফতার করেছি বাইরের একটি রেস্তোরাঁয়। আমাদের জীবনযাপন খুবই স্বাভাবিক এখানে, পাবলিক ট্রান্সপোর্ট চলছে। বাস–মেট্রোতে ঠেলাঠেলি করে মানুষ চড়ছে। আমরাও বাইরে যাচ্ছি, বাজার করছি, খাচ্ছিদাচ্ছি এবং মাস্ক পরা বা হ্যান্ড স্যানিটাইজ করা টাইপ প্রাথমিক জিনিস আগের মতোই চলছে।

default-image

যা বলতে এত কিছু বলা, তা হলো, শুধু দিল্লির খবর দেখে পুরো ভারতের পরিস্থিতি একই রকম এমন ভাবার কারণ নেই, আর মিডিয়া সব সময়ই একটু বাড়িয়ে বলে। তবে যেহেতু অল্প কিছু মানুষ হলেও ভীষণ বাজে সময়ের মধ্য দিয়ে যাচ্ছে আমাদের উচিত তাদের জন্য দোয়া করা। সবশেষে একটাই কামনা—পৃথিবী সুস্থ হয়ে উঠুক।

*লেখক: ছাত্র, ওসমানিয়া বিশ্ববিদ্যালয়, হায়দরাবাদ, ভারত

বিজ্ঞাপন
দূর পরবাস থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন