default-image

কুয়ালালামপুরে বাংলাদেশ হাইকমিশনের উদ্যোগে যথাযোগ্য ভাবগাম্ভীর্যের সঙ্গে গতকাল রোববার শহীদ দিবস এবং আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস পালিত হয়েছে। দিনটি যথাযথভাবে উদ্‌যাপনের জন্য হাইকমিশনের পক্ষ থেকে বিস্তারিত কর্মসূচি গ্রহণ করা হয়।

গতকাল বিকেলে মালয়েশিয়ায় বাংলাদেশ হাইকমিশন থেকে পাঠানো বার্তায় বলা হয়েছে, দিবসটি উপলক্ষে বাংলাদেশ হাইকমিশন এই প্রথমবারের মতো মালয়েশিয়ান ন্যাশনাল কমিশন ফর ইউনেসকোর সঙ্গে যৌথভাবে একটি ভার্চ্যুয়াল অনুষ্ঠানের আয়োজন করে। এতে পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী মো. শাহরিয়ার আলম প্রধান অতিথি হিসেবে অংশ নেন। শাহরিয়ার আলম তাঁর বক্তৃতায় সাংস্কৃতিক বৈচিত্র্য, সৃজনশীলতা এবং বহুভাষিকতা রক্ষায় মাতৃভাষার গুরুত্বের ওপর জোর দেন। এমন একটি গুরুত্বপূর্ণ বিষয়ে অনুষ্ঠান আয়োজনের জন্য তিনি আয়োজকদের ধন্যবাদ জানান।

অনুষ্ঠানে স্বাগত বক্তৃতা দেন মালয়েশিয়ায় নিযুক্ত বাংলাদেশের হাইকমিশনার মো. গোলাম সারওয়ার। এ ছাড়া এ অনুষ্ঠানে ‘হিস্টোরি অব ২১ ফেব্রুয়ারি: ইন্টারন্যাশনাল মাদার ল্যাঙ্গুয়েজ ডে’ শীর্ষক একটি তথ্যচিত্র প্রদর্শন করা হয়।

দিবসটি উপলক্ষে এদিন সকালে হাইকমিশনার মিশনের কর্মকর্তা-কর্মচারীদের উপস্থিতিতে দূতালয় প্রাঙ্গণে জাতীয় পতাকা অর্ধনমিত করেন। পরে হাইকমিশনার অস্থায়ী শহীদ মিনারে পুষ্পস্তবক অর্পণ করেন।

বিজ্ঞাপন

ভাষাশহীদদের বিদেহী আত্মার জন্য বিশেষ দোয়া পাঠ এবং এক মিনিটের নীরবতা পালন করা হয়। পরে রাষ্ট্রপতি, প্রধানমন্ত্রী, পররাষ্ট্রমন্ত্রী ও পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রীর বাণী পাঠ করে শোনানো হয়। এ ছাড়া অনুষ্ঠানে শহীদ দিবস এবং আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবসের পটভূমির ওপর নির্মিত ‘মাই টাং’ শীর্ষক একটি প্রামাণ্যচিত্র প্রদর্শন করা হয়।

হাইকমিশনার তাঁর বক্তৃতায় জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান, ভাষাশহীদ, মুক্তিযুদ্ধের ৩০ লাখ শহীদ এবং সম্ভ্রমহারা ২ লাখ মা-বোনের প্রতি গভীর শ্রদ্ধা নিবেদন করেন। তিনি বলেন, মহান ভাষা আন্দোলনের মধ্যেই আমাদের স্বাধীনতার বীজ রোপিত হয়েছিল। তিনি বঙ্গবন্ধুর স্বপ্নের ‘সোনার বাংলা’ গঠনের জন্য সবাইকে আরও কঠোর পরিশ্রম করার আহ্বান জানান।

এ ছাড়া ১৮-১৯ ফেব্রুয়ারি হাইকমিশন জেনোসাইড স্টাডিজ সেন্টার, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়, স্কুল অব লিবারেল আর্টস, টেলরস ইউনিভার্সিটি মালয়েশিয়া এবং মিনিস্ট্রি অব ট্যুরিজম, আর্টস অ্যান্ড কালচার, মালয়েশিয়ার সঙ্গে যৌথভাবে একটি ভার্চ্যুয়াল অনুষ্ঠানেরও আয়োজন করে।

দূর পরবাস থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন