বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
default-image

সকালের নাশতা পরিবেশনের মধ্যে দিয়ে শুরু হয় অনুষ্ঠান। এরপর শুরু হয় শিশুদের খেলাধুলা। শিশুদের ১০০ মিটার দৌড় ও চকলেট দৌড়ের পাশাপাশি নারীদের কয়েকটি খেলা। পুরুষদের সবচেয়ে আকর্ষণীয় ইভেন্ট ছিল ঢাকাই সিনেমার নায়িকা পূর্ণিমার ছবিতে টিপ পরানো। এক জায়গায় নায়িকা পূর্ণিমার ছবি টাঙানো হয়। সেখানে চোখ বেঁধে যে তিনজন সবচেয়ে কাছে পূর্ণিমার ছবির কপালে টিপ পরান, তাঁদের পুরুস্কৃত করা হয়।

default-image

দুপুরের খাবার পর সবাই মেতে ওঠেন আড্ডায়। গোল হয়ে বসে তাঁরা তাঁদের বিশ্ববিদ্যালয়জীবনের স্মৃতিচারণা করেন। বিশ্ববিদ্যালয়জীবনের বিভিন্ন স্মৃতি রোমন্থন করা হয়। হলের আড্ডা, প্রান্তিকে ঘুরে বেড়ানো, হলজীবনের ডাইনিংয়ে খাওয়ার কথা, ছাত্রশিক্ষকদের মধ্যে বিভিন্ন সম্পর্কের কথা ঘুরেফিরে আসে। বিশ্ববিদ্যালয়ের দ্বিতীয় ব্যাচের ছাত্র মতি রহমান তাঁর সময়কার কথা নতুনদের শোনান। তিনি বাংলাদেশ স্বাধীন হওয়ার পর জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ে প্রথম স্বাধীন বাংলাদেশের পতাকা উত্তোলন করেন। তিনি মুক্তিযুদ্ধ–পরবর্তী ক্যাম্পাসের কথা শোনান।

চা-চক্রের পর শুরু হয় সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান। চলে সন্ধ্যা পর্যন্ত। অনুষ্ঠান শেষে বিভিন্ন খেলায় বিজয়ীদের মধ্যে পুরস্কার বিতরণ করা হয়।

default-image
default-image
default-image
default-image
দূর পরবাস থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন